পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- অগস্ত্য [es] থাকিলেও তাহার বিধান হয় না, কোন কোন প্রত্যब्रांलिङ्ग fयथाम दिकरग्न झग्न । श्रांवांद्र ८कांशं७ छेङ ठिन প্রকার ভিন্ন অন্ত কোন রূপে প্রত্যয়াদি প্রযুক্ত হয়। এই চারি প্রকার বিধির নাম বাহুলক । [ বাছলক দেখ] অগস্ত্য (পুং ) অগ-স্ত্যৈ-ক। অগং বিন্ধ্যাচলং স্ত্যায়তি। অগস্ত্যমুনি। বকবৃক্ষ। অগস্ত্যের পুত্র-আগস্ত্য । * । ঋষ্যন্ধকবৃঞ্চিকুরুভ্যশ্চ । পা ৪ । ১। ১১৪ বশিষ্ঠাদি প্রসিদ্ধ ঋষিদের নামের উত্তর এবং অন্ধক, বৃষ্ণি ও কুরু শন্ধের উত্তর অপত্যার্থে অণু প্রত্যয় হয় । বাচস্পতি লিখিয়াছেন—‘মস্কা- যঞ । আগস্ত্যস্তদপত্যে।’ এটা পাণিনি বিরুদ্ধ প্রসঙ্গ করা হইয়াছে। অগস্ত্যশস্ব ষষ্কাদি গণের অন্তর্গত নহে। উহার উত্তর অর্ণ হইবে, যএনেছে। অগস্ত্যশস্বাদৃশ্যগ্‌ ইতি জয়াদিত্যঃ । অগস্ত্য নক্ষত্র দক্ষিণ দিকে উদিত হয় বলিয়। দক্ষিণদিকের নাম আগস্ত্য দিক। কেীবেরদিগভাগমপান্তমাৰ্গ— মাগস্ত্যমুয়াংগুরিবাবতীর্ণ । মাঘ। ৩। ১ । সংসারে আম্বর গুণেরই অধিক। লোকে বংশমর্যাদা আগে দেখেন, কিন্তু কৈ ?—কেবল সংকুলের ত ততটা গৌরব দেখি না। সবগুণের উপর কুলমৰ্য্যাদা থাকে-ভালই; না থাকে, ক্ষতি নাই। মুক্তার জন্ম ঝিনুকে। ঝিনুকে জন্ম বলিয়া মুক্তার অনাদর নাই। মুণালের পন্ধে উৎপত্তি, ডাটায় কাটা; তাই বলিয়৷ প্রস্ফুটিত পদ্মপুষ্পে কাহারও অযত্ন দেখি না। অগস্ত্য মহাতেঙ্গ, মহাতপা,—জন্ম তাহার কুম্ভে । ঋগ্বেদে কথিত আছে যে, যজ্ঞস্থলে উৰ্ব্বশীকে দেখিয়া মিত্র ও বরুণের রেতঃস্খলন হয়। সেই শুক্র যন্ত্রীয় কুস্তে পড়িয়াছিল। তাহাতেই বশিষ্ট ও অগস্ত্যের উৎপত্তি। সত্রেহ জাতবিম্বিত। নমোভিঃ কুম্ভে রেতঃ সিষিচতুঃ সমানং। ততোহ মান উদিয়ায় মধ্যাত্ততে জান্তমূযিমাহর্বশিষ্ঠম্। ( ৭ । ৩৩ । ১৩ ) । এস্থলে অগস্ত্যের নাম মান লিখিত হইয়াছে। সাণাচাৰ্য্য ঋগ্বেদের উক্ত মণ্ডলের ও সুক্তের একাদশ ঋকের ব্যাখ্যান্থলে বৃহৎ সংহিতা হইতে কয়েকট শ্লোক উদ্ধৃত করিয়াছেন। এই মহর্ষি কি কারণে প্রথমে মান নামে প্রসিদ্ধ হন, তাহার কারণ ঐ শ্লোকে নির্দিষ্ট আছে। छत्राब्रानिङाप्ञाः जरल्ल झंडे।ञ्चझनभूो । শ্নেড়শ্চন্ধলা তৎকুম্ভে ম্ভপতালতীবয়ে । , , cङमर छू भूहूर6न रौर्षीयएको छ*विप्नौ { অগস্ত্যশ্চ বশিষ্টশ্চ তত্রী সম্বভূবতুঃ। বহুধা পতিতং রেতঃ কলসে চ জলে স্থলে । স্থলে বশিষ্ঠত্ব মুনিঃ সম্বভূবধিসত্তমঃ। কুম্ভে অগস্ত্য সন্থতো জলে মৎস্তে মহাজাতিঃ। উদিয়ায় ততো ইগস্ত্যঃ শম্যামাত্রে মহাতপা । মানেন সন্মিতো যুন্মান্তন্মা মান্ত ইহোচ্যতে । ষদ্ধ কুস্তাদৃষিজাতঃ কুম্ভেনাপিহি মীয়তে। কুন্তু ইত্যভিধানঞ্চ পরিমাণস্ত লক্ষ্যতে। অর্থাৎ—মিত্র ও বরুণ দেবতা আদিত্যযজ্ঞে উৰ্ব্বশীকে দেখিলে বাসতীবর নামক যঞ্জীয় কুম্ভে তাহাদের রেতঃস্খলন হয়। মুহূৰ্ত্ত মধ্যে তাহাতে অগস্ত্য ও বশিষ্ঠ নামে দুই বীর্যবন্ত তপস্বী উৎপন্ন হইলেন। সেই রেতঃ কলাস ও জলে স্থলে বহুধা হইয়া পতিত হইয়াছিল । স্থলে ঋষিসত্তম বশিষ্ঠ জন্ম লইলেন ; কুন্তে অগস্ত্য এবং জলে ছাতিমান মৎস্ত। মহাতপ অগস্ত্যের আকার লাঙ্গলের জোয়ালের স্থায় হইয়াছিল। এই আকার পরিমিত, সে জন্য তিনি মান্ত নামে প্রসিদ্ধ হন। অথবা কুম্ভ একটী পরিমাণের নাম (কুম্ভ ১॥৪ সের, দ্রোণীভ্যং শূৰ্পকুম্ভে চ চতুঃষষ্টিশরাবক: )। অগস্ত্য কুম্ভে জন্মিয়াছিলেন, অতএব কুম্ভ দ্বারা তাহার পরিমাণ হইতেছে ( তজ্জন্য তিনি মান নামে প্রথিত)। বিষ্ণুপুরাণে এবং ভাগবতে মিত্রাবরণ হইতে বশিষ্টের পুনর্জন্মের কথা উল্লিখিত হইয়াছে, কিন্তু সেখানে অগস্ত্যমুনির জন্মগ্রহণের নামপ্রসঙ্গও নাই। ইক্ষাকৃতময় নিমি, সহস্ৰ বৎসরব্যাপী একটা যজ্ঞ আরম্ভ করেন। সেই যজ্ঞে হোতা হইবার জন্য তিনি বশিষ্ঠকে বরণ করিয়াছিলেন। কিন্তু সেই সময় ইন্দ্রও পঞ্চশতবর্ষব্যাপী এক মহাযজ্ঞে বশিষ্ঠকে নিযুক্ত করিয়াছিলেন বলিয়া তিনি নিমিরাজের যজ্ঞে আসিতে পারিলেন না। সুতরাং নিমি গৌতমকে লইয়া যজ্ঞারম্ভ করিলেন । ইঞ্জের । যজ্ঞ সম্পন্ন হইলে, বশিষ্ঠ আসিয়া দেখেন যে, গৌতম মুনি তাহার শিষ্যের যজ্ঞে ব্ৰতী হইয়াছেন। এই অপমানে মহৰ্ষি ক্রুদ্ধ হইয়। রাজাকে অভিসম্পাত করিলেন -‘छूशि cमश्शैन इ९ ।’ निभिe कूरु इहेद्रा लाभ निरशम —“গুরুরও দেহের পতন হউক। এই শাপের জন্ত বশিষ্ঠতেজ মিত্ৰাবল্লশের তেজে প্রবিষ্ট হইল। তাছার পর, উৰ্ব্বশীদর্শনে মিত্ৰাবক্ষণের রেতঃপাত হইলে বশিষ্ট অন্ত দেহ প্রাপ্ত হইলেন। (বিষ্ণুপুরাণ )। অগস্ত্যমুনির এধর্ম নাম মান; পরে দ্বিগিরি :