পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৬৭৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অষ্টাদশবিবাদপদ লইয়। ঐ সাভ শ্রেণীর বিভাগ করা হইয়াছে। যেমন,— ১ পিতা ঋণ করিলে পুত্র সেই ঋণ পরিশোধ করিবে। ২–কিন্তু পিতা সুরাপানাদি দোষে আসক্ত হইয়া ঋণ করিলে তাহার জন্য পুত্র দায়ী নয়। ৩—যে পুত্র পিতৃ ধনের অধিকারী হয় না, সে পিতার ঋণও পরিশোধ করিবে না। ৪—যে পুত্র পিতৃধনের অধিকারী হইবে, পিতার ঋণের জন্য সেই দায়ী । ৫—বিদেশস্থ পিতার ঋণ ৰিশ বৎসরের পরে পরিশোধ করিতে হর এবং বৃদ্ধিতে ৰেঋণ করা হয় তাহ বৃদ্ধির সঙ্গে পরিশোধ করা আবশুক । ৬—উত্তমৰ্ণে ঋণ দান । ৭—উত্তমৰ্ণে ঋণ আদান, সৰ্ব্বসমেত এই সাত প্রকার। ২ নিক্ষেপ—নিজের ধন অপরের কাছে গচ্ছিত রাখিলে তাহাকে নিক্ষেপ কহে। ৩ অস্বামিবিক্রয়— ধে ধনে যাহায় সত্ত্ব নাই তেমন ধন যদি সেই ব্যক্তি বিক্রয় করে, তবে তাহাকে অস্বামিবিক্রয় বলা যায়। • সন্থয় সমুখান—অনেকে মিলিয়া বাণিজ্যাদির অনুষ্ঠান করিলে তাহার নাম সভূয় সমুখান। ৫ দত্তাপ্রদানিক— ৰে ৰস্তু একবার কাহাকে দেওয়া হইয়াছে ক্রোধাদি করিয়া পুনৰ্ব্বার তাহা ফেরত লইলে তাহাকে দত্তাপ্রদাদিক কহে । ৬– বেতনাদান—ভৃত্য প্রভৃতিকে বেতন না দিলে তাহার নাম বেতনাদান। ৭ সম্বিদ্ব্যতিক্রম— সকলে মিলিয়া কোন কাৰ্য্য করা হইবে এরূপ প্রতিভার পর তাহার অল্পথ। করিলে ইহাকে সম্বিত্ব্যতিক্রম বলে। ৮ ক্রয়বিক্রয়াঙ্কুশল্প—কোন দ্রব্য কিনির তাহা বিক্রয়ের পর যদি অধিক লাভের আশায় অনুশোচন করা হয়, ভবে তাহাকে ক্রয়বিক্রয়ামুশয় বলা যায়। ৮স্বামিপাল— স্বামী এবং পশুপালকের সঙ্গে যে বিবাদ হয় তাহার নাম স্বামিপাল । ১• সীমাৰিবাদ–ভূমি প্রভৃতি সীমা লইয়া প্রজার মধ্যে যে বিবাদ হয়, তাছাকে সীমাবিবাদ ৰছে। ১১ বাকৃপারুয্য ও দণ্ডপারুষ্য-অর্থাৎ গালাশালি ও মারামারী। ১২ স্তেয়—অন্তের দ্রব্য চুরি করাকে ঞ্চেস্থ কৰে। ১৩সাহস—বলপূৰ্ব্বক অপরের দ্রব্য কাড়িয়া লইলে তাহাকে সাহস বলা যায়। ১৪ খ্রীসংগ্রহণ— কোন জীলোকের সঙ্গে পরপুরুষের প্রসক্তি ঘটিলে তাহার নাম স্ত্রীলংগ্রহণ। ১৫ খ্রীপুংসধৰ্ম্ম-দম্পতীর মধ্যে জে রূপ সম্ভাব ও নিয়মাদি থাকা আবশুক তাহাকে স্ত্রীপুংসধৰ্ম্ম বলে । ১৬ বিভাগ যিবাদ—পৈতৃক ধন বিভাগ কৱিবার জন্ত উপস্থিত হইলে তাহার নাম বিভাগবিবাদ। २१ पूछ-दांछि ब्रांषिब्रा क्बा गांनी अंकृछि औफ़ारक ["শু৫২ ] অষ্টাদিশাদিক দ্যুত কহে। ১৮ আহ্বয়—বাজি রাখিয়া ভেড়াকে কিন্তু পক্ষী প্রভৃতি জন্তুকে যুদ্ধ করাইলে তাহাকে আহায় বলে। অষ্টাদশাঙ্গ (পুং ক্লী) অষ্টাদশ অঙ্গানি ধরে। আঠারট দ্রব্যের পাচন বিশেষ। ইছ চারি প্রকার। যথা—১ দশমূল্যাদি, ২ ভূনিস্থাদি, ৩ দ্রাক্ষাদি, ৪ মুস্তকাদি। দশমূল্যাদি যথা—দশমূলী, শঠি, শৃঙ্গী, পুক্ষরমূল (ইহার পরিবর্তে কুড় ব্যবহৃত হয় ), রালভা, ভাগী, কুটজবীজ, পটোল, কটকী। প্রত্যেক মিলিত ২ তোলা, জল ৩২ তোলা, শেষ ৮ তোলা । এই পাচন সন্নিপাতজরে বিশেষ হিতকর। ইহাতে কাস, হৃদগ্রহ, পার্শ্ববেদনা, হিকা, শ্বাস এবং বমি নষ্ট হয়। ভূনিম্বাদি—চিরাতা, দেবদারু, দশমূল, শুঠ, মুতা, কটকী, ইন্দ্রযব, ধনের চাউল, গজপিপ্পলী, প্রত্যেক মিলিত ২ তোলা, জল ৩২ তোলা, শেষ ৮ তোলা । এষ্ট পাচন সেবন করিলে তন্ত্রা, প্ৰলাপ, কাস, অরুচি, দাঙ্ক, মোহ এবং শ্বাস ও জ্বর নষ্ট হর । দ্রাক্ষাদি-দ্রাক্ষা, গোলঞ্চ, শঠ, শৃঙ্গী, মুথা, রক্তচন্দন, গুঠ, কটকী, পাঠা, চিরাতা, দুরালভা,বেণারমূল, পদ্মকাষ্ঠ, ধনে, বালা, কণ্ঠকারি, পুক্ষরমূল, নিম্বছাল, প্রত্যেক মিলিত ২ তোলা, জল ৩২ তোলা, শেষ ৮ তোলা । ইহা পান করিলে জীর্ণজর, শ্বাস, কাস এবং সন্নিপাত উপশমিত হয়। মুস্তকাদি—মুগা, ক্ষেভপাপড়া, বেণারমূল, দেবদারু, গুঠি, ত্রিফল, ফুরালভা, বননীল, কাম্পিলা, তেউড়ী, চিরাত, পাঠ, বালা, কটকী, জ্যেষ্ঠমধু, পিপুলমূল, প্রত্যেক মিলিত ২ তোলা, জল ৩২ তোলা, শেষ ৮ তোলা । ইহা সেবন করিলে সন্নিপাত, পাশ্ববেদন, শিরোরোগ প্রভৃতি উপদ্রব নষ্ট হর । অষ্টাদশোপচার (পুং ) বহুব• । তন্ত্রোক্ত পূজার আঠার প্রকার উপচার। আসন, স্বাগত, পাদ্য, অর্থ, আচমনীয়, স্নান, বস্ত্র, উপবীত, ভূষণ, গন্ধ, পুষ্প, ধূপ, দীপ, অর তর্পণ, মাল্যামুলেপন, নমস্কার, বিসর্জন। অষ্টাদিশাদিক (পুং) শৰং বেত্তি অধীতে বা শান্ধিক:, আদিভূতঃ শান্ধিকঃ শাক-তৎ। তত: অষ্টে চ তে আদিশান্ধিকাশ্চেতি কৰ্ম্মধla ৷ সংজ্ঞাত্বান্ন দ্বিগু: আটজন প্রসিদ্ধ শান্ধিক। ইন্দ্র, চন্দ্র, কাশকৃৎক্ষ, আপিশলী, শাকটায়ন, পাণিনি, অমর ও জৈনেন্ত্র । এই আটজনে প্রথমে শব্দশাস্ত্র প্রণয়ন করেন, তজ্জন্ত ইহঁাদিগকে ‘अहेाभिंौकिक’ काइ 1 -