পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৭১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अश्लTांदौरे পত্নী। তাহার এক পুত্র ও এক কল্প ছিল । পুত্রের নাম মালীরাও। কওঁীরাওয়ের মৃত্যুর পরে মালীরাও অল্পকাল রাজত্ব করিয়া ১৭৬৬ খৃঃ অস্বে পরলোক গমন করেন। অহল্যার কন্ঠার নাম মুক্তাবাই। তিমি যশোবস্তু রাওকে বিবাহ করিয়াছিলেন । মালীরাওরের মৃত্যুর পর অহল্যাবাই নিজে রাজ্যেশ্বরী হইলেন। তিনি স্বভাবতঃ অতিশয় ধৰ্ম্মশীলা ও বুদ্ধিমতী ছিলেন । কিন্তু তিনি তাপমার হাতে রাজাভার লক্টলে গঙ্গাধর যশোবন্ত নামে একজন রাজপুরোহিত বিরোধী হইয়া উঠিলেন। তাঙ্কার ইচ্ছা, রাণী একজম দত্তকপুত্র গ্রহণ করেন। দত্তকপুত্র গ্রহণ করিলে তিনি নিজে রাজ্যের কর্তী হইয়৷ থাকিতে পরিবেন। কিন্তু আ হল্যাবাই সে প্রস্তাবে সম্মত হইলেন মা। রাঘব দাদা মামে মহারাষ্ট্রীয় রাজার পিতৃব্য, গঙ্গাধরের সপক্ষ হইয়। অহল্যার বিরুদ্ধে যুদ্ধ সজ্জা করিতে লাগিলেন । এই কথা শুনিয়া অহল্যাবাষ্ট, মহারাষ্ট্রদেশের রাজা মধুরাওকে বিশেষ অনুরোধ করির একখানি পত্র লিখিলেন। মধুরাও পত্র পাইরা আপনার ভাইপো রাঘবদাদাকে বিরোধ হইতে ক্ষাস্ত করিলেন। কাজেই আর যুদ্ধ ঘটিল না। তাহার পর অহল্যাবাই গঙ্গাধরকে ক্ষমা করিয়া তাহাকে প্রধাম মন্ত্রী করিলেন । এদিকে ত কাজী হলকার নামক জনৈক ব্যক্তিকে সেনাপতি নিযুক্ত করা হইল। ত কাজী অতি বিচক্ষণ লোক। সে জন্ত শীঘ্রই তিনি অন্ত মন্ত কাজের ও ভায় পাইয়াছিলেন। অহল্যাবাই নিজে মহীম্বয়ে থাকির। শাতপুরা পৰ্ব্বতের উত্তরে যে সকল দেশ অাছে তাহার রাজস্ব আদায় করিতেন। এ দিকে মালয, নিমাড় এবং দক্ষিণ অঞ্চলেয় করও তাছার নিকটে আসিয়া পোছিত। ত কাজী শাতপুর পৰ্ব্বত্ত্বের দক্ষিণে থাকিয়? ছলকারের অধিকারস্থ সকল দেশেয় রাজস্ব সংগ্ৰহ করিতেন। অহল্যাবাইয়ের সমরে রাজ্যে কোন প্রকার বিশৃজ্বল ছিল না । সকল কৰ্ম্মচারীই নিয়মিতরূপে বেতন পাইত। কর্মচারীদের বেতন দিয়া ৰে টাকা উন্মুক্ত । থাকিত যুদ্ধাদির ব্যরের নিমিত্ত তাহ সঞ্চয় রাখা इहेङ । त्रिन लेि म अश्णjांबाईtब्रब्र थेक्ति”द्धि दाफ़िtङ লাগিল। ভারতবর্ষের সকল রাজার উকীল ও প্রতিনিধি আসিয়। তাছায় পড়াতে উপস্থিত থাকিতেন। এ দিকে অহল্যারাণীর ৪ প্রতিনিধি পুনা, ছায়দ্রাবাদ, [ ও৮৬ ] जा इलाांशाहै প্রয়ঙ্গপত্তন, নাগপুর, লক্ষ্মেী ও কলিকাতা নগরে থাকিয়া তথাকার সকল কাজ নিৰ্ব্বাহ করিতেন। ফলতঃ রাজকাৰ্য্যের এমন ব্যবস্থা পূৰ্ব্বে অ্যু কখন इद्र माझे । হিন্দু মহিলারা অস্তঃপুরে বন্ধ থাকেন,কিন্তু অহল্যাবাই রাজসভার বলিয়৷ মন্ত্রী ও পারিষদদিগকে লইয়। সকল কাজের পরামর্শ করিতেন। তিনি প্রতিদিন হুর্য্যোদয়ে পূৰ্ব্বে উঠিয়। আগে স্নানাদির পর প্রাত:কৃত্য সারিতেন। পূজা আহিকের পরে কিছুকাল ধৰ্ম্মগ্রন্থ পড়া হইলে নিজ হাতে কয়েক জন ব্ৰাহ্মণ ভোজন করাইয়। শেষে আপনি ভোজন করিতেন । তিনি মৎস্ত মাংস খাইতেন না। ভোজনাস্তে কিছুকাল বিশ্রাম কয়িরা বেলা আড়াই প্রহরের সময়ে রাজপরিচ্ছদ পরিয়া সভায় যাইতেন। সন্ধ্য। পর্য্যন্ত দরবার হইত। সায়ংকৃত্য এবং রাত্রিতে ভোজনের পরে ও আবার তিনি সভায় বসিতেন । পূৰ্ব্বে ইনোর অতি সামান্ত গ্রাম ছিল। অহল্যাবাইয়ের যত্নে ক্রমে এই স্থান সমৃদ্ধিশালী ও একটা প্রসিদ্ধ নগর হইয়া উঠিল । তিনি কখন প্রজার ঐশ্বর্য্যের প্রতি লোভ করিতেন না। র্তাহার নিজ ব্যয়ের জন্য বার্ষিক পাচ লক্ষ টাকা আয়ের সম্পত্ত্বি নির্দিষ্ট ছিল। তম্ভিন্ন হুলকার রাজ্য হইতে তিনি দুই কোটি টাক পাইয়াছিলেন । এই টাকা সৎকৰ্ম্মেই ব্যর করা হইরাছিল । প্রথমে তিনি কয়েকট দুর্গ নিৰ্ম্মাণ করাইয়াছিলেন। তাহার পর বিন্ধ্যপৰ্ব্বতের উপরে জাম নামক দুর্গে একটা রাস্ত বাধাইয়া দেন। বেদারনাথের যাত্রীদের সুবিধার জন্য একটা ধৰ্ম্মশালা ও একটা কুও করিয়৷ দিয়াছিলেন। ঐ ধৰ্ম্মশালা মনার নামক স্থানের উত্তয়ে আজও বিদ্যমান রহিয়াছে। মইৗসুরে এবং মালব প্রদেশেও তাহায় প্রতিষ্ঠিত অনেক ধৰ্ম্মশালা ও কূপ আছে। এতদ্ভিন্ন, সেতুবন্ধ রামেশ্বর, দ্রাবিড় এবং শ্ৰীক্ষেত্রেও র্তাহার এক একটা কীৰ্ত্তি রহিয়াছে। কিন্তু সকল স্থানেয় চেয়ে তাহার গয়াধামের কীৰ্ত্তিই অধিক প্রশংলায় বিষয়। গরায় তাহার প্রতিষ্ঠিত অনেক দেবালর আছে, তাছার মধ্যে বিষ্ণুপদ মন্দির এবং লাট মন্দির অতিশয় আশ্চর্য্য । মন্দিরের কাব্লিকরি গুলি বিশ্বকৰ্ম্ম যেন নিজেয় হাত দিয়া সারিয়াছেন। উপরেয় খিলান অতি চমৎকার,—খেন.শূন্তের উপরে জাপনি