পাতা:বিশ্বকোষ ষষ্ঠ খণ্ড.djvu/৪১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তাই তাহার নিমাইয়ের বিস্তীশিক্ষার বিশেষ মনোযোগ করি তেন না । জগন্নার্থের বিশ্বাস ছিল যে, বিস্ত শিখিলে প্রাণধিক নিমাইও বিশ্বরূপের অনুকরণ করিবে। এদিকে গৌরাঙ্গের বালা-চাঞ্চল্য ও দৌরাত্ম্য হ্রাস না হইয়া উত্তরোত্তর বুদ্ধি পাইতে লাগিল । বৃদ্ধবয়সের সস্তান বলিয়া পিতামাত বড় একটা শাসন করিতেন না । নিমাই ও তাহাদিগকে বিশেষ ভয় করিতেন না । কিন্তু অগ্রজ বিশ্বরূপকে বড় ভয় করিতেন, তাহাকে দেখিলেই শাস্ত হইয়া বসিতেন— “পিতা মাত কাহারে না করে প্রভু ভয় । - বিশ্বরূপ অগ্রজে দেখিলে নম্র হয়।” (চৈ" ভা" ১৬ অঃ) গঙ্গার ঘাটে স্নান করিতে যাইয়া নিমাই বড়ই দৌরাত্ম্য করিতেন । তাহার দৌরাত্ম্যে প্রতিবেশীগণ বিরক্ত হইয়া শচী বা জগন্নাথের নিকটে জানাইত, তাহারা মিষ্ট্রলাক্যে সাস্বনা করিয়া তাহাদিগকে বিদায় করিতেন, কিন্তু পুত্রশ্নেহে নিমাইকে বেশী শাসন করিতে পারিতেন না । ইহার কিছুদিন পরে নিমাই গঙ্গাদাস পণ্ডিতের টোলে ব্যাকরণ পড়িতে আরম্ভ করেন । চূড়ামণিদাস চৈতন্তের বিদ্যাভ্যাসের পূৰ্ব্বে একটা নুতন ঘটনা বর্ণনা করেন । ঘটনাটি সত্য হইলে এই হইতেই চৈতন্তের ভাবি-জীবনের সূত্রপাত ও বিকাশ স্বীকার করিতে হইবে । ঘটনাটা এই— - পুত্র নিমাইয়ের দৌরাত্ম্যের কথা প্রতিবেশীর মুখে শুনিতে শুনিতে শচীর মনে অতিশয় খেদ হইল । তিনি জগন্নাথের নিকটে যাইয়া নিমাইকে অধ্যয়ন করাইবার জন্ত অনুরোধ করেন । মিশ্র মহাশয় শচীর কথা কাটিয়া বলেন যে, নিমাইয়ের লেখা পড়ার দরকার নাই, আমার যে ধন আছে, তাহাতেই একরূপ খাইয়া পরিয়া কাটাইতে পরিবে । ৰিশ্বণ্ডর পিতার কথা শুনিয়া বড়ই দুঃখিত হইলেন, তিনি ভাবিয়াছিলেন যে লেখাপড়া শিখিয়া জগন্ডের কোন না কোন উপকার করিতে পরিবেন । যখন দেখিলেন যে তাছার সে অাশা ফুরায়, পিতা তাহাকে বিদ্যাভ্যাস করিপ্তে দিবেন না, তখন র্তাহার আমার চুঃখের সীমা থাকিল না। তিমি অনেক ভাধিয়া স্থির করিলেন যে, ‘ধৰ্ম্মশাস্ত্রের মতে যাহার অস্থি গঙ্গায় পড়ে, তাহারই মুক্তি হইরা থাকে, অতএব আমি যতদূর পারি মৃত প্রাণীর অস্থি গঙ্গাজলে ফেলিয়া দিব । অতএৰ ইহাতেও জগতের অনেকট উপকার সাধন হইতে পরিবে I* বিশ্বম্ভর বাল্যকাল হইত্তেই দৃঢ়প্রতিজ্ঞ ছিলেন, যখন যাহা কৰ্ত্তব্য বলিয়া স্থির করিতেন, তাহ সাধনের জন্ত প্রাণপণে চেষ্টা করিতে এটা ! WI > * 8 ৪১৩ ] कहबनवत्राप्मा अत्रकजननात्र बन्न रुजूरुआशाउनाग्निड़ा कब्रिाउन जा। डनि वनकभित्क गरेमा भनाइ छानिबउँ রিশাল ময়দান হইতে ৰোকা বোৰ হাড় জানিয়া জলে ফেলিতে লাগিলেন। গঙ্গার জল অস্থিময় হইয়া উঠিল, মনেকেরই স্নানাহিকে বাধা পড়িল । সকলে মিমাইকে ৰারণ করিলেন, কিন্তু নিমাইয়ের প্রতিজ্ঞা অটল, তিনি কিছুতেই বিরত হইলেন না । পরে এই সংবাদ মিশ্রেয় নিকটে পৌছিল। মিশ্র ক্রোধভরে গঙ্গাতীরে অসিয়া লিমাইয়ের কাও দেখিয়া ' অবাক হইলেন । পরিশেষে অনেক ভৎসনা ও ভয় দেখাইলে বিশ্বম্ভর কঁদিতে কঁাদিতে সমস্ত মনোভাব ব্যক্ত করেন । বালক নিমাইয়ের এতদূর গুরুতর উদ্দেশু শুনিতে পাইয়া সকলেই যারপর নাই সুখী হইলেন । মিশ্র মহাশয়ও পূৰ্ব্বপ্রতিজ্ঞ পরিত্যাগ করিয়া নিমাইকে টোলে পাঠাইলেন । ( চূড়ামণিদাসের চৈতন্তচল্লিত ) গঙ্গাদাস পণ্ডিত নবদ্বীপের প্রধান বৈয়াকরণ ছিলেন । তাহার চতুষ্পাঠীতে দেশীয় অনেক বুদ্ধিমান ছাত্র অধ্যয়ন করিত। নিমাই অতিশয় মনোযোগের সহিত অধ্যয়ন করিতে লাগিলেন । র্তাহার অধ্যবসায় ও প্রতিভা দেখিয়া গঙ্গাদাস পণ্ডিতের আনন্দের সীমা রছিল না। নিমাই কলাপ ব্যাকরণ অধ্যয়ন করেন। টীকা, পঞ্জী প্রভৃতিও বিশেষ আদর করিয়া অভ্যাস করিতেন (১) । তাহার স্বাভাবিক বুদ্ধি ও স্মরণশক্তি এত সুতীক্ষ ছিল যে, যাহা একবার পড়িতেন বা যাহার ব্যাখ্যা শুনিতেন তাহা কখনও ভুলিতেন না । তাহার গুণ ও অসাধারণ শক্তির কথা সৰ্ব্বত্র রাষ্ট্র হইল, র্তাহার মাতাপিতার আর আনন্দের সীমা রছিল না। কিছুদিন এই ভাবে চলিল, ক্রমে চৈতন্তের উপনয়নের বয়স দেখিয়া মিশ্র মহাশয় মহাধুমধামে বিশ্বস্তরের উপনয়ন দিলেন । বৈশাখমাসের অক্ষয়তৃতীয়ার দিন নিমাইয়ের উপনয়ন হইয়াছিল। পণ্ডিত গঙ্গাদাস নিমাইয়ের সাবিত্ৰীদীক্ষার আচাৰ্য্য (২) । কিছুদিন মুখে কাটিয়া গেল। এই সময়ে মিশ্র মহাশয় জ্যেষ্ঠপুত্র বিশ্বরূপের বিবাহের উদ্যোগ করিতে লাগিলেন । বাল্যকাল হইতেই বিশ্বরূপের হৃদয়ে বৈরাগ্য জন্মিয়াছিল, ( » ) "भंत्र मtन नeिउ ध्रुttन *tफून १iा कब्र१ ।। अश्व १५ भtcज कc$ £कल घुद्धिश्छ** । জল্পকালে হৈলা পঞ্জী টকভে বীণ ! ब्रिकाप्णब्र गफ्.जो जिम्म रहेछ। नवीन ।” { कूकदीन रेकछछ* श्रीरिजौजt ४९ च# ) (२) **ीफ़ाब्रवनिद्रा विध *जाँदtcन कब्र ॥ निन यग्नि विचचstद्र tभए छैननम्न ॥ चशि cय यूंश्ङ्ग ििम हंङ्ग *श्triश्रतः । - चक्षुङ्ठौ* ७िश् िबैरैड्भ:५ ५tश ॥’ tछूज्॥१f१ुtम w.