পাতা:বিশ্বকোষ ষষ্ঠ খণ্ড.djvu/৫৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


為 জগজখি [ ৫৯৫ ) छ*बांभं ৰহোদরে বর্ণিত হইয়াছে। (মূর্তির প্রতিরূপ পূর্বেই ! হইয় থাকে। ੋ ফাইল পশ্চিমে লোকনাথ প্রকাশিত হইয়াছে। ) কিন্তু পূৰ্ব্বে দেবের এরূপ কলেবর হুইত মা । মারদ ও ব্রহ্মপুরাণে এবং উৎকলখও ও কপিলসংহিতায় জগন্নাথ ও বলরামের চতুর্তজ মূৰ্ত্তি এবং স্বভদ্রার দ্বিভূজমূৰ্ত্তির উল্লেখ আছে। উক্ত গ্রন্থগুলির বিবরণ পাঠ করিলে বোধ হয় যে, ভূবনেশ্বরস্থ অনস্তবাসুদেবের মন্দিরে জগন্নাথ, বলরাম ও স্বভদ্রার যেরূপ প্রস্তরময়ী মূৰ্ত্তি আছে, পূৰ্ব্বে ঐক্ষেত্রেও দারুময়ী ক্রমূৰ্ত্তি গুলিও ঐরূপ নিৰ্ম্মিত হইত। নীলাত্রিমহোদয়ে চারিমূৰ্ত্তির স্থানে সপ্তমূৰ্ত্তির উল্লেখ আছে, কিন্তু ত্রীচৈতন্যদেব যখন জগন্নাথদর্শনে গমন করেন, তখনও তিনি চারিটা মূৰ্ত্তিই দেখিয়াছিলেন, সপ্তমূৰ্ত্তি দেখেন নাই । (চৈতন্যভাগবত ২ অঃ ) চৈতন্সের জীবনচরিতলেখকগণও লিথিয়াছেন যে, তিনি জগন্নাথের চতুর্ভজ মূৰ্ত্তিই দর্শন করিয়াছিলেন । শ্রীচৈতন্যদেব জীবনের অধিকাংশ সময়ই এই ক্ষেত্রধামে অতিবাহিত করেন, শুিনি শ্ৰীক্ষেত্রস্থ তীর্থ, উপতীর্থ প্রভৃতি সমস্তই দর্শন করিয়াছিলেন। কপিলসংহিতায় মেলাবুকেশ্বর নামে এক প্রসিদ্ধ লিঙ্গের উল্লেখ আছে । চৈতন্য এখানে যে যে তীর্থ দৰ্শন করেন, তাহার পারিষদবর্গ তাহা লিপিবদ্ধ করিয়া গিয়াছেন, কিন্তু তাহারা অলাবুকেশ্বরের নাম পৰ্য্যস্ত উল্লেখ করেন নাই, উৎকলখও, পুরুষোত্তমমাহাত্ম্য এবং ১৩৯৬ শকে রচিত পুরাণসৰ্ব্বস্বে জগন্নাথস্থ নানাতীর্থ ও লিঙ্গাদির উল্লেখ থাকিলেও অলাবুকেশ্বরের আদৌ উল্লেখ নাই, ইত্যাদি কারণে স্পষ্টই বোধ হইতেছে যে ১৩৯৬ শক অথবা চৈতন্যদেবের পরে অলাবুকেশ্বর লিঙ্গ প্রতিষ্ঠিত হইয়াছে (১)। সুতরাং এরূপ স্থলে স্বীকার করিতে হইবে যে, অলাবুকেশ্বর-প্রসঙ্গমূলক কপিলসংহিতাও চৈতন্যদেবের পরে রচিত হইয়াছে। রঘুনন্দনকৃত পুরুষোত্তমতত্ব প্রভৃতি গ্রন্থে কপিলসংহিতার আদৌ উল্লেখ না থাকায় এই প্রস্তাবের কতকটা সমর্থন করিতেছে। কপিলসংহিতায়ও দেবের চতুভূজ মূৰ্ত্তির স্পষ্ট উল্লেখ আছে, ইহাতে স্বীকার করা যায় খৃষ্টীয় ১৫শ ও ১৬শ শতাৰেও জগন্নাথাদির চতুভূজ মূৰ্ত্তি ছিল, এখনকার মত অপূৰ্ব্ব মূৰ্ত্তি ছিল না, বোধ হয় সেই জন্যই এখনও স্নানযাত্রাদির সময়ে জগন্নাথ ও বলরামের চতুভূজ মূৰ্ত্তিই চিত্রিত (১) উড়িষ্যায় ঐতিহাসিকগণের মতে জলাবুকেশ্বরের মন্দির রাজা জলাৰুকেশনীর সময়ে নির্শিত হয় ; কিন্তু জলাবুকেশরী নামে কোন রাজা से९कtण ब्राजष कब्रिह्छन किमl cषानि डॉणगि दा यामानिक अtइ ठाशाब्र ●धंबाँ*{{छाँव । নামে এক প্রসিদ্ধ শিরমন্দির আছে । নারদ ও ব্রহ্মপুরাণে, উৎকলখও, কপিলসংহিতা-ও পুরাণসৰ্ব্বশ্বে অথবা চৈতন্যদেবের তীর্থভ্রমণ প্রসঙ্গে এই লোকনাথের উল্লেখ না থাকিলেও নীলাত্রিমহোদয়ে লোকনাথের বিষয়ণ বর্ণিত আছে, এরূপ স্থলে চৈতন্তদেবের আবির্ভাব ও কপিলসংহিত রচিত হইবার পরে ষে লোকনাথ আবির্ভূত হইয়াছেন, তাহাতে কিছুমাত্র সন্দেহ নাই, এরূপ স্থলে বোধ হয় লোকনাথ-প্রসঙ্গ-মূলক নীলাদ্রিমহোদয়ও খৃষ্টীয় ষোড়শ শতাব্দীতে অথবা তাহার অনতি পরে রচিত হইয়াছে। মুসলমান ঐতিহাসিকগণের মতে ১৫৬৮ খৃষ্টাব্দে কালাপাহাড় উড়িষ্য জয় করেন। সকলে জানেন যে দুষ্ট কালাপাহাড়ই জগন্নাথ মূৰ্ত্তি আনিয়া অগ্নিতে নিক্ষেপ করে। বেসর মহাস্তি সেই দগ্ধমূৰ্ত্তি লইয়া গিয়া কুজঙ্গে খণ্ডাইতের ঘরে রক্ষা করেন । তৎপরে রাজা রামচন্দ্রদেব সেই মূৰ্ত্তি আনিয়া প্রতিষ্ঠা করেন। মাদলাপঞ্জীতে লিখিত আছে, রামচন্দ্রদেবের সময় দেবের নব কলেবর হইয়াছিল । বোধ হয়, শ্ৰীমূর্তিগুলি দগ্ধ হইবার পর ষে রূপ প্রাপ্ত হইয়াছিল, সেই মূৰ্ত্তিই এখন আমরা দেখিতে পাই এবং তাহারই অাদর্শে শ্ৰীমূৰ্ত্তির নব কলেবর হইয়া থাকে । এই অভিনব মূৰ্ত্তির বিবরণই নীলাদ্রিমহোদয়ে বর্ণিত হইয়াছে। ভারতের নানা স্থানে ম্লেচ্ছ কর্তৃক শত শত অঙ্গহীন দেবমূৰ্ত্তি দেথিতে পাওয়া যায়, সেই সকল দেবের মন্দিরাদি বারম্বার পুনঃসংস্কার হইলেও দেবমূৰ্ত্তির আর পুনঃসংস্কার হয় না, সেই ভগ্নরূপেই পূজা পাইয়া থাকেন। বোধ হয় জগন্নাথের দগ্ধ মূৰ্ত্তিও সেইরূপে পূজা পাইয়াছিল, সেই রূপ পরিবর্তন করিতে কেহ সাহসী হয় নাই । অম্লান্ত তীর্থ ও উপতীর্থ —মহামন্দিরের অৰ্দ্ধমাইল উত্তরে মার্কণ্ডেয়ত্ত্বদ । নারদ ও ব্রহ্মপুরাণ কপিলসংহিতা ও উৎকলথওে এই মাকণ্ডেয়ন্ত্রদের মাহাত্ম্য বর্ণিত আছে । শ্ৰীক্ষেত্রের পঞ্চ তীর্থের মধ্যে ইহাও একটা । এখানে মার্কণ্ডেয়বট ছিল । কপিলসংহিতার মতে স্বয়ং শ্ৰীকৃষ্ণ মাকণ্ডেয়ের মঙ্গলাখ মাকগুেয় বট নিৰ্ম্মাণ করেন । ব্ৰহ্মপুরাণে লিখিত আছে—মার্কণ্ডেয়হ্রদে স্নান করিয়া মার্কণ্ডেয়েশ্বর শিব দর্শন করিলে দশ অশ্বমেধের ফল, সকল পাপ হইতে মুক্তি ও শিবলোক লাভ হয়। মার্কণ্ডেয় সরোবরের দক্ষিণ কুলে মার্কণ্ডেয়েশ্বরের মন্দির। এই মনির নাটমন্দির, মোহন ও মূলস্থান ভেদে তিন অংশে বিভক্ত । ইহার চারিদিকে আগুনাথ, হরপার্বতী, কাৰ্ত্তিকেয়, পঞ্চপাণ্ডবলিঙ্গ, যষ্ঠীমাতা প্রভৃত্তিয় মূৰ্ত্তি-জাছে।