পাতা:বিশ্বকোষ ষষ্ঠ খণ্ড.djvu/৬৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


vo জরৎকার - [ అహిఆ } अब्रभूज পরিসীমা নাই। আমাদের জরুৎকারু নামে এক ছত্তভাগ্য পুত্র জাছে, সেই দুৰ্ম্মতি দারপরিগ্রছ না করিয়া অর্ধশিশি কেবল তপস্তায় কালাতিপাত করিতেছে । সুতরাং কুলক্ষয় खे°श्ऊि ८मशिग्रl dहे भशंशप्é शत्रभांन ब्रहिब्राझि । जांबांদের বংশবৰ্দ্ধন জরৎকারু থাকিতেও আমরা অনাথ ও দুষ্কৃতের স্তায় রছিয়াছি । তুমি কে ? কি নিমিত্তই বা বান্ধবের দ্যায় অস্থশোচনা করিতেছ।” তখন জরৎকার কছিলেন, “আমিই সেই আপনাদের হতভাগ্য সস্তান জরৎকার । এখন কি করিব, আপনার আজ্ঞা করুন।” তাহারা ইহার বাক্যে অতিশয় সত্তোষলাভ করিয়া কহিলেন, “বৎস । দারপরিগ্রহ করিয়া সস্তানোৎপাদনপুৰ্ব্বক আমাদিগকে রক্ষা কর।” জরৎ কারু কহিলেন, “আমি প্রতিজ্ঞা করিলাম, যদি কঙ্গ আমার স্বনামী হয় এবং তাহার বন্ধুৰান্ধবগণ স্বেচ্ছাপূর্বক আমাকে সেই কন্যা ভিক্ষ স্বরূপ দান করে, তাহা হইলে তাহাকে আমি যথাবিধি বিবাহ করিয়া তাহার গর্ডে সন্তানোৎপাদন করিব।” এই বলিয়া তিনি অভীষ্ট স্থানে গমন করিলেন । একদিন অরণ্যে প্রবেশ করিয়া উচ্চৈঃস্বরে তিনবার ‘কস্তা ভিক্ষা করিলেন । র্তাহার সেই ভিক্ষীবাক্য শ্রবণ করিয়া নাগরাজ বাসুকি নিজ ভগিনী জরুৎকারুকে আনিয়া মহৰ্ষিকে প্রদান করেন। ইনিও তাহাকে স্বনামী জানিয়া বিধিপূৰ্ব্বক বিবাহ করিলেন। বিবাহ করিবার সময় এই নিয়ম হইল যে, ইনি কখনও পত্নীর ভরণপোষণ করিবেন না এবং পত্নীও ইহার অপ্রিয়াচরণ করিলে তৎক্ষণাৎ ইনি তাহকে পরিত্যাগ করিবেন। এইরূপে কিছু দিন অতিবাহিত হইলে পর, নাগকস্তা জরৎকারু মহর্ধি-সংযোগে গর্ভিণী হইলেন। এক দিন মহর্ষি পত্নীর অঙ্কে মাথা রাখিয়া নিদ্রিত আছেন, এমন সময় সূৰ্য্যাস্ত হইতে দেখিয়া স্বামীর ক্রিয়ালোপের আশঙ্কায় ইহার পত্নী স্বামীর নিদ্রা ভঙ্গ করিলেন । মহর্ষি জরৎকারু নিদ্রাভঙ্গে কুপিত হইয়া বলিলেন, “তুমি আজ আমার অবমাননা করিয়াছ, এই নিমিত্ত তোমাকে আজ জন্মের মত পরিত্যাগ করিলাম। তুমি তোমার ভ্রাতাকে কহিও, সেই মুনি চলিয়া গিয়াছে। অারও ৰলিও তোমার যে গর্ত হইয়াছে, ইহাতে প্রদীপ্ততেজা এক পুত্র জন্মিবে।” এই বলিয়া মুনি প্রস্থান করিলেন। পত্নীর অনেক কাকুতি মিনতিতেও জরুৎকার আর কর্ণপাত করিলেন না । ( ভারত আদি ) ( স্ত্রী ) ২ জরৎকারুর পত্নী, আস্তিকের মাতা, বাসুকিয় ভগিনী, মনসাদেবী । [ মনসা দেখ । } “श्राखिकछ बूएनभडिा छशिनैौ बांट्रक्रिडथ । জরৎকার মুনেঃ পত্নী মনসাদেবী নমোংশু তে ।” o জরৎকারুপ্রিয় (স্ত্রী ; জরৎকারো স্বনামখ্যাতন্ত মুনেঃ প্রিয় (ভত৭)। মনসাদেবী। - - छङ्गडौ (जैौ) अब्र९-ठौथ् । (ॐनिष्ठwक । °1 8॥२७) इक। (ब्रांजनि°) জরথুস্ত্র, প্রাচীন পারসিক ধর্শ্ব-প্রচারক। ঐকদিগের নিকট ইনি wwwtwr (Zarastrades) și cattutvrtza (Zoroastres), রোমকদিগের নিকট জোরোমস্তার (Zoroaster) (এই নামেই যুরোপে প্রসিদ্ধ) এবং বর্তমান পারসীদিগের নিকট জয়দোস্ত, नाम्म थाऊ । क्ख् िगाङ्गलिक जाठिङ्ग थाम्रैौनज्रय अइनश्रृश् “জরথুস্ত্র” নামেই অভিহিত । এখন জরথুস্ত্র বা জরদোস্ত বলিলে কেবল একমাত্র আবপ্তিক ধৰ্ম্ম প্রচারককেই বুঝায়। কিন্তু পুৰ্ব্বকালে একাধিক জরথুস্ত্র ছিল, অবস্কা গ্রন্থে তাহার উল্লেখ আছে। তদৃষ্টি বোধ হয়, বয়সে ও জ্ঞানে যিনি সৰ্ব্বপ্রধান ও বৃদ্ধ তাহাকেই জরথুস্ত্র বলা হইত। বৈদিক জরদষ্ট শব্দের সহিত এই জরথুস্ত্র শব্দের অনেকটা সোসাদৃশু আছে। এখন যেমন "দস্তুর" বলিলে অগ্ন্যুপাসক পারসিক পুরোহিতকে বুঝায়, পুৰ্ব্বকালে জরথুস্ত্র বলিলেও এই রূপ বুঝাইত । ধৰ্ম্মপ্রচারক জরথুস্ত্রও প্রথমে এই রূপ একজন "দস্তুর” ছিলেন । ইহার পিতার নাম পৌরুষম্প । ইনি ম্পিতমবংশে জন্মগ্রহণ করিয়াছিলেন বলিয়া ম্পিতমজরথুস্ত্র নামেই প্রাচীন গ্রন্থে বিবৃত। স্পিতমবংশ “হএচড়স্প” নামেও খ্যাত ছিল। এই জন্তই ধৰ্ম্মবীর স্পিতম জরথুস্ত্রের কস্ত যশ্ন গ্রন্থে "পৌরুচিষ্ট হএচড়ম্পানী স্পিতামী” নামে বর্ণিত হইয়াছেন । কোন কোন গ্রন্থে ইনি “জরথুস্ত্ৰতেমো” অর্থাৎ শ্রেষ্ঠতম ও সৰ্ব্বোচ্চ জরথুস্ত্র নামে অভিহিত। ইহাতে বোধ হয় তিনি বর্তমান চুম্ভর-ই-দস্তুরাণের দ্যায় সৰ্ব্বপ্রধান আচাৰ্য্য ছিলেন । অপরাপর প্রাচীন ধৰ্ম্মবীরদিগের স্তায় জয়পুত্র-সম্বন্ধে প্রকৃত ইতিহাস জানা যায় না । গ্ৰীকদিগের মধ্যে লিদিয়াবাসী জনথোস (৪৭০ খৃঃ পূৰ্ব্বাদে) সৰ্ব্বপ্রথম লেখেন যে, জরদোস্ত ট্রয়যুদ্ধের ছয়শত বর্ষ পূৰ্ব্বে জীবিত ছিলেন। আরিষ্টটল ও ইউডোক্সস প্লেটোর ছয় হাজার বর্ষ পূৰ্ব্বে ইহার আবির্ভাবকাল স্থির করিয়াছেন। প্লিনির মতে ট্রয় যুদ্ধের ৫ হাজার বর্ধ পূৰ্ব্বে জয়দোস্ত আবিভূতি হইয়াছিলেন। এ দিকে অগ্ন পাসক পারসীগণ বলিয়। থাকেন—“জন্দঅবন্তায় ধিনি কব-বীন্তাম্প নামে বৃণিত, তিনিই পারস্তরাজ দরায়ুসের পিত হয়স্তাম্পেস। তাহারই সময় জরদোস্ত, অবিভূত হন। এরূপ স্থলে করথুস্ত্র ৫৫ • খৃঃ পূৰ্ব্বাদের লোক হইল্প পড়িতেছেন। কিন্তু প্রসিদ্ধ