পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/১৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


লবণ [ »१¢ ] লবণ /• আন সের লবণ বিক্রয় হইতেছে। পূৰ্ব্বহারে প্রতি সের v১৫ দরে বিক্রয় হইত। তখন প্রতি মণের ৩w• মূল্য নির্দিষ্ট ছিল । বর্তমান হারের লবণ উহ অপেক্ষা প্রায় ১ টাকা কম হইয়াছে। পূৰ্ব্বহারে ভারতের নানাস্থানে স্বৈরূপ হারে লবণ বিক্রয় হুইত, নিয়ে তাহার তালিকা দেওয়া গেলস্থানের নাম টা জ৷ পী স্থামের নাম টা জা পা ঐহষ্ট্র 8 o 8 sitcotz, w t 8 কামরূপ 8 豪 @ মুলতান 8 : כל কলিকাতা ৩ ১৪ • করাচী 9 % в कछेदः ७ ७ ७ अकप्रे 8 : כל পাটনা wo bro বোম্বাই 19 - y - : কাণপুর ৩ ৪ ৯ স্বরাট ג כל • शैौब्रांछे ৩ ৫ ৬ হোসঙ্গাবাদ ৪ ৭ • জয়পুর 8 & סל জব্বলপুর 8 & § আবু చి by e আকোলা 8 纖 變 লাখ নেী ৩ ও ৩ সিকন্দরাবাদ ৪ ዓ 畿 সীতাপুর ও ৮ • মহিমুর 8 q о ইন্দোর ৩ ১২ e শিমোগা ৪ so গোয়ালিয়র ৩ ১৪ • মাম্রাজ २ ४२ ७ বেরেলি ○ ● 8 উপর শুল্ক মুসলমান-রাজগণের অধিকারকালে লবণের আদায়ের ব্যবস্থা ছিল । ১৮৯৩ খৃষ্টাব্দের ৩৮ ধারা অনুসারে ইংরাজ-গবমেণ্ট সৰ্ব্বপ্রথম প্রতি মণ (৮২ং পাউণ্ড ) লবণের উপর ১২ টাকা শুষ্ক ধাৰ্য্য করেন। ক্রমে প্রতিমণের শুষ্ক ৩০ তিন টাকা চার আনা পর্যন্ত উঠে। ১৮৮২ খৃষ্টাৰো অন্যাস্থ্য প্রদেশ অপেক্ষা বাঙ্গালার লবণগুস্ক অধিক বন্ধিত হইয়াছে দেখিয়া ভারতরাজ-প্রতিনিধি ভারতের সর্বত্রই সমান শুদ্ধ গ্রহণের , ব্যবস্থা করির প্রতিমণ ২॥• ধাৰ্য্য করেন ; কিন্তু সীমান্ত প্রদেশে গোলমাল ঘটিবার ভয়ে কোহাট ও মণ্ডির লবণ-খনির উপর তিনি কোন কয় ধাৰ্য্য করেন নাই। কেবল ফোহাট-থনি হইতে যে লৰণ আফগান সীমান্তে যাইত, তাহার প্রতি মণ শিকা ওজন্স = ১১২ পাউণ্ড) ॥• জানা ধাৰ্য্য হইয়াছিল। মণ্ডির খনিজাত হৈম-লবণের তদপেক্ষ অধিক শুষ্ক নির্দিষ্ট হইয়াছিল। কিন্তু ইংরাজী লৰণ অপেক্ষ তাহাও অনেক কম। লবণের এই গুৰুগ্রহণের জন্য ইংরাজ-গবমেণ্ট দেশীয় রাজা, সৰ্গার ও জমিদারদিগকে ক্ষতিপূরণ স্বরূপ রাজস্বের কতকাংশ মৰুৰ করির দেন। বাণিজ্য ও কারবার জঙ্ক ভারতে যত প্রকার লবণ প্রচলিত | আছে, তারত গবৰ্মেন্টের রাজবিরণীতে তাহার একটা তালিকা । मृहे श्द्र । भै नक्ग हिडिम थकांग्र णय१ बिछिद्र cथगैष्ठ নিবন্ধ হইয়াছে ৪— ১ খনিজ বা সৈন্ধব লবণ ( Rook-salt )—কোহাট, মণ্ডি প্রভৃতি স্থানের খনি হইতে এই লবণ বিক্রয়ার্থ মালাস্থানে ज्ञांमझांर्नौ हङ्ग । R on s of woo (Lake and Pit salt)—otto, দিবোন, পচভন্ন ও দিল্লীর লবণের কারখানায় ইহা প্রস্তত হয় । ৩ সামুত্র লবণ (Sea salt ও Pit salt}–ভারতের সমুদ্রোপকুলবর্তী বিভিন্ন স্থানে প্রস্তুত হইয়া থাকে। ৪ আনুপ লবণ ( Marsh salt )–লবণাক্ত জল হইতে উৎপন্ন। দিল্লী প্রভৃতি স্থানের লোণামাটা খুড়ির লওয়ায় যে খাত হইয়াছে, সেইরূপ খাত-জল হইতে প্রস্তুত । ৫ খাড়িজ লবণ (Swamp salt)-সমূত্রোপকূলবর্তী জলখাড়িসমূহের লবণাক্ত কর্দম হইতে গৃহীত। সমুদ্রজল ঐ সকল খাড়িতে প্রবেশ করিয়া আর বাহির হইতে পায় না, পরে স্বভাবতঃ শুকাইয়া মাটির উপর দানাকারে নিপতিত থাকে। উহা বিশুদ্ধ। উহাতে প্রায় ৯৭ ভাগ Chloride of sodium RİLKE ! e forfea-era (Saline efflorescence) of vrg via স্থানবিশেষে নুন ফুটয় উঠে। যে স্থানে এরূপ লবণ ফুটিয়া উঠে, সেই সকল স্থানে কখন বৃক্ষাদি জন্মে না। এই জাতীয় লবণ উত্তর-পশ্চিমপ্রদেশে খরিয়ার, লোণহা, রেহ ও কল্লার-সোর ( সোরার কলে যে মাটিতে সোরা শুকান হয়, সেই মৃত্তিক হইতে প্রস্তুত ) বলে। ৭ ক্ষারলবণ ( Earth salt )—হিন্দুস্থানে ইহাকে খারি নিমক বলে। গোয়ালিয়ার, পাতিয়ালা ও মধ্যভারতে এই লবণ উৎপন্ন হয় । ৮ নিমক সোর (Saltpetre salt )—সোর হইতে যে মিশ্র লবণ প্রস্তুত হয় । উত্তর ও পশ্চিম-ভারতে যতগুলি লবণখনি আছে, তৎসমূহের মধ্যে যেরূপ স্তরে লবণ অবস্থিত থাকে, তাহা বিশেষ আলোচনার জিনিষ। এই সকলের মধ্যে লবণগিরির স্তরসমূহ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। এই শৈলমাল ৭১৭৩৯ হইতে ৭৩"৩• গ্রাঘিমা পূৰ্ব্বে এবং ৩২২৩ হইতে ৩০° উত্তর অক্ষাংশ মধ্যে অবস্থিত। সিন্ধলাগর দোয়াষের অধিত্যকাভূমি ও কোহি স্থানবিভাগ লইয়া লবণশৈল গঠিত। ইহার একপ্রাস্তে ঝিলাম নদী ও অপরপ্রান্তে সিন্ধুনদ । প্রায় ১৪২ মাইল বিস্তীর্ণ এই গার্বত্যপ্রদেশে যেরূপ স্বগষ্ঠীর স্তরে লবণরাশি মিছিত রহিয়াছে