পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


এই সময়ের রোমের কনষ্টিটিউশন’ বা শাসনব্যবস্থা অতিসংক্ষেপে বলা উচিত। পূৰ্ব্বে প্লিবিয়ান পিটশিয়ান্‌ পক্ষের বিরোধ ব্যাপার উল্লিখিত হইয়াছে। এখন o" বিমানগণ সকল বিষয়েই গোটুশিয়ানদিগের সমকক্ষতা লাভ করিয়াছিলেন। দ্বিতীয় পিউনিক যুদ্ধের পর হইতে উভয় দলে আর কোন বিরোধ ঘটে নাই। কারণ প্রতি বৎসর দুইজন কন্সল এবং চুইজন সেন্সর প্লিবিয়ান পক্ষ হইতে নিয়মিতরূপে নিৰ্ব্বাচিত হইতেন । পেটশিল্পানদিগের কোন কোন কাল্পনিক উৎকর্ষ ভিন্ন অন্ত কোন সুবিধা ছিল না । প্রত্যেক রোমবাসী ভিন্ন ভিন্ন সরকারী কাৰ্য্য করিবার পরে কন্সল হইতে পারিতেন । কিন্তু র্যাহার নিম্নতন পদে কাৰ্য্য করতেন না, তাহাদের গুণাধিক্য থাকিলেও কন্সল হইতে পারিতেন না। কেবল প্রসিদ্ধ সিপিওর নিয়োগবিষয়ে এই নিয়মের ব্যভিচার ঘটয়াছিল। ১৭৯ খৃঃপূঃ’লেক্স আনালিস্নামে এক আইন প্রণীত হয়, তামুসারে কোয়েষ্টরশির’ বা নিম্নতম মাজিষ্টেটু পদে অধিষ্ঠিত ব্যক্তির বয়স ২৮ বৎসর নির্দিষ্ট হয় এবং তদূৰ্দ্ধতর ইডাইলশিপের ৩৭, প্রিটরশিপের ৪০ এবং কন্সল পদের জন্য ৪৩ বৎসর বয়স নির্দিষ্ট হইল। র্যাহারা উক্ত পদে ক্রমান্বয়ে কার্য্য করিতেন তাহারাই যথাকালে কন্সল পদের প্রার্থ হইতে পারিতেন। উপরোক্ত মজিষ্ট্রেটগণ দুইভাগে বিভক্ত ছিলেন–রাজচিহ্নালঙ্কত কিউরিউল যথা কন্সল, প্রিটর ইত্যাদি এবং নন-কিউরিউল মাজিষ্ট্রেট বা ডিক্টেটর প্রভৃতি । ১ । কোয়েষ্টরগণ রাজ্যের বেতন প্রদানের এবং রাজস্বসংগ্রহের কর্তা ছিলেন। তাহার রাজস্ব আদায় এবং সাময়িক ও দেওয়ানী কার্য্যের কৰ্ম্মচারীদিগকে বেতন দিতেন। তাহাদের অধীনে কোষাগার থাকিত । ২ । ইডাইলগণ ঠিক পাবলিক ওয়ার্কস্ ডিপার্টমেণ্ট বা সরকারী পূর্বকাৰ্য্যের নির্বাহক ছিলেন। ইহঁদের তত্ত্বাবধানে সরকারী অট্টালিকা-নিৰ্ম্মাণ ও মেরামতাদি হইত, পথ প্রস্তুত, নর্দাম নিৰ্ম্মাণ প্রভৃতি সমস্ত কাৰ্য্য ইস্থাদিগের অধীনে থাকিত । এতদ্ধির ইছারা পুলিলের পরিরক্ষক ছিলেন। সরকারী ক্রীড়া কৌতুক, আমোদপ্রমোদ ও উৎসবাদি ইহঁদ্বিগের পরিচালনে নির্বাহিত হইত । ৩। প্রিটর ও কন্সল ( বা রাজকীয় ম্যাজিষ্ট্রেট) প্রিটরগণ সেনেট-সভা আহবান, ব্যবহার-শাস্ত্রপ্রণয়ন এবং সামরিক শাসন বিষয়ে অধিকারী ছিলেন। প্রত্যেক গ্রিটরের ৬ জন লিক্টর থাকিস্ত। প্রথমে সিবিল বিচার বা নাগরিক বিচার-কার্যের জন্য একজন প্রিটর নিযুক্ত হইতেন । ২৪৬ খৃঃ পূঃ হইতে অন্ত XVII ( తీరి ) 冷 রোম-সাম্রাজ্য o-...----- একজন গ্রিটর নিয়োগের ব্যবস্থ হয়। ইনি বৈদেশিক শাসনের বিচার-নির্বাহক ছিলেন। কিন্তু ২২৭ খৃঃ পুঃ সিসিলি ও সাউनिब्र-भांगटनब्र जछ अछ श्जन विफ़ेब्र निबूङ श्न । नcब्र »०१ খৃঃ পূঃ স্পেনের জন্তু আর ২ জন প্রিটর নিযুক্ত হইলেন । এই প্রকারে প্রিটরের সংখ্যা ৬টী হয়, তন্মধ্যে দুইজন রোমের ও অপর চারিজন বিদেশস্থ রাজ্যের । ৪ । কন্সলগণ উচ্চতম মাজিষ্ট্রেট ছিলেন। তাহার রাজ্যশাসন ও সামরিকবিভাগের পরিচালক ছিলেন। তাহার সেনেট জাহান এবং সাধারণ সভার অধিবেশন করিতে পারিতেন । র্তাহারাই লেনেটের সভাপতিরূপে কৰ্বৰ করিতেন। এতদ্ব্যতীত সাধারণের সন্মতিক্রমে ইষ্ঠার সৈন্তবিভাগের সর্বময় কর্তা ছিলেন। তাহারাই প্রকৃত প্রস্তাবে সৈন্যগণের দণ্ডমুণ্ডের কর্তা ছিলেন। তাহদের প্রত্যেকের অধীনে ১২ জন লিষ্টর থাকিত । উপরোক্ত মাজিষ্ট্রেটগণ প্রতি বৎসরেই নুতন করিয়া নির্বাচিত হইতেন । ইহঁদের *ীমে , কখন কখন প্রে-কন্সল ও প্রো-প্রিটরগণ নিযুক্ত হইতেন। সাধারণ তন্ত্রের পরবর্তিকালে কন্সলগণের শাসনকাল ফুরাইলে তাহারাই প্রে-কন্সলরূপেবৈদেশিক শাসনকর্তা নিযুক্ত হইতেন। ৫ । দ্বিতীয় পিউনিক যুদ্ধের পূর্ব পর্যন্ত ডিক্টটরশিপের বিশেষ প্রচলন ছিল। কিন্তু রোমের প্রাধান্তবৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এই অসাধারণপদের তত আবশ্বকত হুইত না। তবে কন্সলগণ কোন যুদ্ধবিগ্রহের সময় ডিক্টেটরের ক্ষমতা প্রাপ্ত হইতেন । ৬ । সেন্সরগণ—প্রত্যেক ৫ বৎসরে দুইজন সেন্সর নিযুক্ত হইডেন। কিন্তু ১৮ মাসের অধিক কেহ উক্ত পদে কাৰ্য্য করিতে পারিতেন না । ইহঁাদিগের কার্য্য বিশেষ প্রয়োজনীয় ও দায়িত্বপুর্ণ ছিল। ইহঁাদিগের কার্য্য ৩ ভাগে বিভক্ত ছিল— (১) ইহঁাদের সর্বপ্রথম কাৰ্য্য মানুষ গণনা এবং তৎপরে ইহার গণনাতালিকা প্রস্তুতপূৰ্ব্বক প্রত্যেক অধিবাসীর সম্পত্তির মূল্য নিৰ্দ্ধারণ করিতেন, আয়কর ও রাজস্বনিৰ্দ্ধারণের জন্তই সম্পত্তির মূল্য নিৰ্দ্ধারিত হইত। পরে সম্পত্তির পরিমাণ অনুসারে অধিবাসিগণের শ্রেণীবিভাগ হইত। পূৰ্ব্বে উক্ত হইয়াছে যে, সার্ডিয়া টালিয়াস এই প্রথা সৰ্ব্বপ্রথমে প্রবর্তিত করিয়া যান। (২) সেন্সয়গণের দ্বিতীয় কাৰ্য্য-অধিবাসিগণের চরিত্র ও ব্যবহারের প্রতি দৃষ্টি রাখা। এ বিষয়ে তাহারা নিজের কৰ্ত্তব্য জ্ঞানের উপর নির্ভর করিতেন, কাহার অনুরোধাদি ও প্রশংসাপত্র মানিতেন না। তাহারা ব্যক্তিগত ও সাধারণ অসদ্ব্যবহারের জন্ত শাস্তি বিধান করিতেন. ইহঁাদিগের শাসন মতে সকলেই প্রাচীন রোমকের জাতীয় ধৰ্ম্ময়ক্ষা করিতে বাধ্য