পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রোমসাম্রাজ্য [ to J হইয়াছে। ইহার পর সেনেট পার্থির যুদ্ধের ভাপ করিয়া তাহার দুই লিজন সৈন্ত চাহিয়া লইলেন। পরে তাহাকে পুন: পুনঃ পত্রদ্বারা সৈন্তাধ্যক্ষতা পরিত্যাগ করিতে বলিয়া পাঠাইলে, সিজার তখন উত্তর ইতালীর রাজের নামক স্থানে অবস্থিত থাকিয়া পত্রোত্তরে লিখিলেন, “ৰদি পম্পি সৈন্তাধিপত্য পরিত্যাগ করেন, তবে আমিও করিব।” এই সময়ে পম্পির খণ্ডর সিপিও জাঙ্গ৷ দিলেন যে,”যদি সিজার নির্দিষ্টদিনে সৈন্তাধ্যক্ষতা ত্যাগ না করেন তবে তিনি রোমের শত্রু বলিয়া বিবেচিত হইবেন।” সেনেট নবনিযুক্ত কন্সলদিগকে ডিষ্টেটরের ক্ষমতা প্রদান করিলেন বটে, কিন্তু টিবিউন আন্টোনিয়াস্ ও কাসিও এই বিরুদ্ধ আদেশের প্রতিবাদ করিয়া রোম হইতে বিতাড়িত হইলেন। পরে তাহারা ছদ্মবেশে রাভেল্লায় সিজারের শিবিরে উপস্থিত হুইয়া সাহায্য প্রার্থনা করিলেন । ইহাতে পুনৰ্ব্বার আন্তর্জাতিক যুদ্ধ বাধিয়া উঠিল। সেনেট পপিকে যুদ্ধের সেনাপতি করিলেন। সিজার সেনেটের দৃঢ়সম্বর দেখিয়া সৈন্তসমাবেশপুৰ্ব্বক সৈন্তদিগের মত জিজ্ঞাসা করিলেন । সৈন্তগণ একবাক্যে র্তাহার আদেশ পালনে প্রতিজ্ঞা করিল। ইতালীর উত্তর সীমা ফ্লবিকন নদী অতিক্রম করিয়া তিনি অল্প সংখ্যক : সৈন্ত লইয়া ইতালীর অভিমুখে দ্রুতবেগে ৪৪ খৃঃ পূঃ) অগ্রসর হইলেন। অনায়াসে আরিমিনিয়া নগর হস্তগত হইলে নগরবাসিগণ সিজারের পক্ষাবলম্বনপূর্বক তাহাকে নগরার খুলিয়া দিল। সিজারের লোকরঞ্জকতাগুণে ক্রমে ক্রমে সকল নগরই তাহাকে বিনা যুদ্ধে আত্মসমর্পণ করিল এবং তাহার যুদ্ধযাত্রা যেন বিজয়োৎসবের ছায় প্রতীয়মান হইতে লাগিল। সিজারের এই জৈত্রযাত্রায় রোমবাসিগণ ভীতি-বিহ্বল হইয়া পড়িলেন। সিজার বিজয়লাভ করিতে করিতে পিসেনা ছাড়াইয়া কর্কিনিয়ামে পৌঁছিলেন। এই স্থানে পম্পির পক্ষীয় ডমিলিয়াস্ অহেনোবার্বাস একদল সৈন্যসহ অবস্থিত ছিলেন। তিনি সসৈন্তে বহুসংখ্যক সেনেটের সদস্ত এবং কতিপয় প্রসিদ্ধ ব্যক্তির সহিত বন্দী হইলেন, কিন্তু সিজার তাহাদের প্রতি কোনরূপ নিষ্ঠুর ব্যবহার করিলেন ন, তাহাতে সাধারণে সিজারের প্রতি অত্যন্ত অসুরক্ত इहेब्र। फेणि । সিজারের পুনঃ পুনঃ বিজয়লাতে পম্পি এবং সাধারণ তন্ত্রের প্রতিনিধিগণ ভয়ে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হইয়া পড়িলেন। পম্পির সৈন্যগণ র্তাহাকে পরিত্যাগপুৰ্ব্বক সিজারের দলভুক্ত হইল, এই সমস্ত কারণে পম্পি কাপুরুষতাপূৰ্ব্বক পলায়ন করিতে সঙ্কল্প কম্বিলেন। সন্ধ্যায় অন্ধকারে পম্পি গোপনে রোম পরিত্যাগ করিলেন। ভয়ে তিনি কোষাগার হইতে অর্থ পৰ্য্যয় লইতে अ|सूर्द्धाठिक द! পরিলেন না । কন্সলগণ, সেনেটের সদস্ত সকল এবং বহুসংখ্যক বিখ্যাত ব্যক্তি পম্পির সহিত পলায়ন করিলেম । রোমবাসিগণের মধ্যে যাহারা পলাইতে অক্ষম হইলেন, তাহারা সাল্লা ও মেরাস্বাসের বীভৎসকাহিনী পুনরায় আগতপ্রায় মনে করিয়া ভয়বিহ্বল ছইয়া পড়িলেন। এদিকে পম্পি পলায়নপূর্বক প্রথমে কাপুর, পরে তথা হইতে ব্ৰাগুলিয়ামে উপস্থিত হইলেন। সিজার এই সংবাদ পাইরা অবিলম্বে পম্পিকে ধৃত করিবার জন্ত ব্রাঙুলিয়াম অবরোধ করিলেন । কিন্তু পম্পি অনুচরবর্গের সহিত কৌশলে জাহাজে আরোহণপূর্বক গ্রীসে পলায়ন করিলেন। জাহাজের অভাবে সিজার তৎকালে তাহার অনুসরণে ক্ষান্ত থাকিলেন ; সুতরাং সিজার তথা হইতে রোমে প্রত্যাগমনপূর্বক ৩ মাস মধ্যে সমগ্র ইতালীবিজয় সম্পন্ন করিলেন। সিজার রোমসাম্রাজ্যশাসনের সৰ্ব্বময় প্রভু হইয়া উঠিলেন। কেবল টিবিউন মেটাল্লাস্ তাহাকে পবিত্র ধনভাণ্ডারে হস্তক্ষেপে বাধা প্রদান করিয়া ছিলেন। তম্ভিয় নিৰ্ব্বিবাদে সিজার শীঘ্রই রোমের অদ্বিতীয় অধীশ্বর হুইয়াছিলেন। সিজার লেপিডাসের উপরে রোমরক্ষায় এবং আন্টোনিয়াসকে সৈন্তসহ ইতালি রক্ষার ভার দিয়া পম্পিপক্ষীয় সেনাপতিদিগকে পরাজয় করিতে স্পেনদেশে যাত্র করিলেন এবং কিউরিওকে ও ভালেরিয়াসকে সিসিলি ও সার্ডিনিয়া রক্ষা করিতে পাঠাইলেন। র্তাহারা উভয়ে উক্ত দুই স্থান অনায়াসে অধিকারপূর্বক পম্পিপক্ষীয় সেনাধ্যক্ষদিগকে আক্রমণ করিবার জন্য আফ্রিকা যাত্রা করিলেন। কিন্তু কিউরিও পম্পিয় সহযোগী মপ্লেটনিয়ার রাজা দুবার সহিত যুদ্ধে নিহত হইলেন। এদিকে সিজার মাসেলিয়ায় আসিয়া দেখিলেন, সেই স্থানের অধিবাসিগণ অধীনতা স্বীকারে অসন্মত। তখন সিজার ট্ৰেবোনিরাস ও ব্রটাসকে উক্ত স্থান অবরোধ করিতে আজ্ঞা দিয়া সসৈন্তে স্পেনযাত্রা করিলেন। পম্পির লেপ্টেনাপ্টম্বর আফ্রিনিয়া ও পেটিয়াস সিজারের বিরুদ্ধে ইলরেড নামক স্থানে বিশাল সৈন্যদল সজ্জিত করিলেন। সিজার অদ্ভুত রণকৌশলের্তাহাদিগকে পরাজিত করিলেন। উভয় লেপ্টেনাণ্ট গতান্তরহীন হইয়া আত্মসমর্পণ করিলেন। সিজার তাহাদিগকে মুক্তিদানপুৰ্ব্বক তাহাদের সৈন্যদলকে নিজ সৈন্তভুক্ত করিয়া লইলেন। সিঙ্গার তখন পশ্চিম স্পেনে ভারোর বিরুদ্ধে যাত্রা করিলেন। ভারোও অবিলম্বে পরাজিত হইয়া কর্ডোবা নামক স্থানে আত্মসমর্পণ করিলেন। এইরূপে ৪০ দিনে সমগ্র স্পেন দেশ জয় করিয়া সিঙ্গর গলে উপস্থিত হইলেন । মাসেলিয়া নগর এ পর্যন্ত অধিকৃত হয় নাই। কিন্তু সিজারের আগমনসংবাদে উীত হইয়া দুর্গবাসিগণ অবিলম্বে আত্মসমপণ করিল।