পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তদশ খণ্ড.djvu/৬৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বর্ষ [ ૭86 ] বর্ষ ফাটিয়া যায় ; তখন তাহাদের রসে জম্বনদী নামে এক নদী হয়, সেই নদী মেরুমদার শৈলের শিখর হইতে অযুতযোজন অস্তরে ভূমণ্ডলে পড়িয়াছে। ঐ নদী যথায় পড়িতেছে, তখা হইতে আপন দক্ষিণদিকে সমগ্র ইলাবৃত বর্ষ ব্যাপিয় প্রবাহিত হইতেছে। ঐ নদীর মৃত্তিক তাহার জলরসে অনুষিদ্ধ হওয়ায় বায়ুও স্বৰ্য্য-সংযোগে বিশেষ পক্কতা পাইয়া জাম্বনদ অর্থাৎ স্ববর্ণে পরিণত হয়। ঐ সুবর্ণই অমর ও অমরকামিনীগণের অভিয়ণ । মুপার্শ্ব পৰ্ব্বতের পার্শ্বদেশে মহাকদম্ব নামে এক বৃক্ষ আছে । তাহার কোটরনিকর হইতে পঞ্চব্যাম পরিমিত পাঁচটি মধুধারা ঐ শৈলশিখরে পড়িয়া পশ্চিমস্থ ইলাবৃতবৰ্ষকে স্বীয় সৌগন্ধে আমোদিভ করিতেছে। যাহারা ঐ পৰ্ব্বতের মধুধার সেবন করেন, তাহাদের মুখ-মারতে চারিদিকের শতযোজনব্যাপী ভূভাগ । সুবাসিত । কুমুদ পৰ্ব্বতে শতবলশ নামে একটা বটবিটপী আছে। তাহার স্কন্ধদেশ হইতে অধোদিকে দধি, দুগ্ধ, য়ুত, গুড়, অন্ন প্রভৃতি এবং বসন ভূষণ শয়ন মাসনাদি অতীন্সিত বস্তু দোহনকারী নদ সকল ঐ পৰ্ব্বতের অগ্রভাগ হইতে বাহির হইয়া তাহার উত্তর দিক্ৰন্থ ইলাবৃতযর্ধবাসী লোকদিগের অশেষ উপকার সাধন করিতেছে। তথাকার অধিবাসী প্রজাবৰ্গ ঐ সকল সামগ্রী সেবন করিয়া কথন অঙ্গবৈপ্লব্য, ক্লাস্তি, ঘৰ্ম্ম, জরা, রোগ, অপমৃত্যু, পীত বা উষ্ণজন্ত বৈবৰ্ণ এবং অন্তান্ত উপসর্গ কিছুই | ভোগ করে না। এজন্য ঐ বর্ষের অধিবাসীর যাবজ্জীবন কেবল । সুখভোগে দিন যাপন করে। অগ্নীদ্রের যে ময় পুত্রের নামে নয়ট বর্ষ চলিয়াছে, ঐ পুত্ৰ গণের মধ্যে নাভি জ্যেষ্ঠ, নাভি বর্ষাধিপতি হইলেও তাহার অধি কত বর্ষ তদীয় পৌত্র ভরতের নামেই প্রসিদ্ধ হইয়াছে। নাভির পুত্র ঋষভ, ঋষভ হইতেই প্রসিদ্ধ ভরতরাজের জন্ম। এই ভরতের নামানুসারেই এই বর্ধ ভারতবর্ষ নামে অভিহিত। sarর পিতা ঋষভ অজনাভ নামক একটি বিশিষ্ট প্রদেশে প্রভুত্ব করিয়াছিলেন এই ভ্ৰষ্ঠ তাহার অধিকৃত সমগ্র বর্ধ অজনাভ নামে প্রথিত ছিল । পরে তংপুত্র ভরত রাধ হইলে তঁহারই নামে এই বর্ষ বিখ্যাত হইয়াছে । এই ভারতবধে বহু নদ নদী ও বহুতর শৈলশ্রেণী আছে । শৈলসমূহের মধ্যে মলয়, মঙ্গলপ্রন্থ, মৈনাক, ত্রিকুট, ঋষভ, ফুটক, কোং, সহ, দেবগিরি, ঋষ্যমুখ, ঐশৈল, বেঙ্কট, মহেশ্র, কৰি,ে বৰা, শুক্তিমান, ঋক্ষগিরি, পারিপায়, রোগ, চিত্ৰইট, গোবৰ্দ্ধন, রৈবতক, ককুড়, নীল, কোকামুখ, tafи, в কামগিরি এই কয়ট পৰ্ব্বতই অনেকটা প্রথিত। এতরি আরও বে কত শত পৰ্ব্বত আছে, তাহার ইরক্ত হয় না । XVII tp:R উক্ত শৈল সকলের নিতম্বদেশ হইতে কত. যে নদ নদী বাহির হইয়া ভারতবর্ষ বক্ষ বিধৌত করিতেছে, তাহারও সকলের সংখ্যা হওয়া অসম্ভব । সেই সকল নদ নদীর জলেই ভারতসস্তানেরা পানাবগাহন সমাধান করেন। ভষ্মধ্যে চঞ্জৰশা, তাম্রপণী, অবটোদ, কৃতমালা, বৈহায়নী, কাবেরী, বেথা, পয়স্বিনী, শর্করাবৰ্ত্তা, তুঙ্গভদ্র, কৃঞ্চযেখ, ভীমরণী, গোদাবরী, নিৰ্ব্বিন্ধ্যা, পয়োঞ্চী, তাপী, রেব, মুরস, নৰ্ম্মদা, চৰ্ম্মন্ধতী, অন্ধনদ (ব্রহ্মপুত্র), শোণনদ, মহানদী, বেদস্তুতি, ত্রিসোম, কৌশিকী, মনাকিনী, যমুনা, সরস্বতী, দৃশদ্বতী, গোমতী, সরযু, ওখবতী, যষ্ঠবতী, সপ্তৰতী, সুষমা, শতদ্রু, চক্ৰভাগ, মরুধা, বিতপ্ত, অসিী, এবং বিশ্বা এই গুলি মহানদী। উক্ত মহানদীসমূeেব নামোচ্চারণ মাত্রেই লোক পবিত্র হয়। পরস্তু ভারতবর্ষীয় প্রজাগণ এই জলে অবগাহন করিয়া থাকেন। পুরুষের এই বর্ষে জন্ম লইয়া স্ব স্ব সাত্ত্বিক, রাজসিক ও ভামসিক কৰ্ম্ম জ্বালা আপনাদের দিব্য, মাসুধী ও নারকী গতিষ্ট নিৰ্ম্মাণ করিয়া থাকে । যে বর্ণের যেরূপ মোক্ষ প্রকার নির্দিষ্ট আছে, তHমুসারে মুক্তি এই বর্ষেই হইয়া থাকে। যাবতীয় বর্ধ মধ্যে ভারতবর্ষকেই কৰ্ম্মক্ষেত্র বলা যায়। অন্ত আট বর্ধ স্বৰ্গীদিগের পুণ্যশেষে উপভোগের স্থান । জম্বদ্বীপ এই ভারতবর্ষ ভিন্ন অন্যাস্ত অষ্টবর্যে যে সকল পুরুষ বাস করেন, তাহাদের পুরুষ পরিমাণে অযুতবর্ণ পরমায়ু অযুত হস্তীর তুল্য বল এবং বস্ত্রবৎ সুদৃঢ় শরীয়গঠন। ঐ শরীরে এরূপ ধল, যৌবন এবং হর্ষ যে, তদ্বারা মহাস্করতব্যাপারে স্ত্রীপুরুষ অত্যধিক প্রমূদিত হয় এবং সম্ভোগান্তে একবৎসর আয়ু: শেষ থাকিতে তাহাদিগের কলর একবার মাত্র গর্ভ ধারণ করে । এইরূপে বিষয়মুথের উৎকর্ষ হেতু এই সকল বর্ণের পুরুষের ত্রেতাযুগের স্তায় পরমসুখে কাল যাপন করে। এই সকল বর্ষে দেবাধিপগণ স্ব স্ব অমুচর পরিচারকদিগের স্বারা মহা উপচারে অৰ্চিত হন । স্বেচ্ছামত আশ্রমায়তনসমূহে, গিরি-গহবরে এবং অমল জলাশয়াদিতে ক্রীড়া করিয়া বেড়ায় । তথায় স্বয়মুন্দরীগণের জলক্রীড়া, অন্যান্ত কেলিফলা বা কামোনাদিনীদিগের সবিলাস হান্ত ও লীলাললিত বিলোকনে তথাকার পুরুষদিগের চিত্ত ও নেত্র আকৃষ্ট হইয়া থাকে। এই সকল বর্ষস্থিত যে সমস্ত আশ্রম আয়তনে পুরুষপুঙ্গবদিগের বিহারের কথা বলিলাম, তাহার শোভা যে কত চমৎকার তাহা আর কি বলিব ? ভথাকার তরুরাজির শাখা-প্রশাখাগুলি সকল ঋতুর পুষ্পস্তবকে, ফলে ও নবীন কিশলয়সঞ্চয়ে সমৃদ্ধির সহিত পরপর নত হইয়া পড়িয়াছে ; সেই শাখায় আবার বক্ত লতা আশ্রয় লইয়াছে। আর সেই সকল জলাশয় । সে শোভ।