পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/১৩৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জুনাগড় ১৭৩৫ খৃঃ অঙ্গের প্রারম্ভে গুজরাটের মোগলসম্রাটুপ্রতিনিধি ক্ষমতা হারাইতে লাগিলেন। এই সময় তাহার अशैनन्ह छैटेमक विश्वानघाङक नछ क्रमठांनानौ श्हेब्रा खजब्रांप्ले হইতে র্তাহাকে দূরীভূত করিল ও তথার নিজ অধিকার স্থাপন করিল। তাহার উত্তরাধিকারিগণই নবাব উপাধি ধারণ পূর্বক জুনাগড়ের রাজত্ব করিতেছেন। প্রবাদ এইরূপ, পুৰ্ব্বে যখন জুনাগড়ে হিন্দুরাজ্য ছিল। সে সময়ে গির্নরের উগ্রসেনের কন্যা ও অরিষ্টনেমির স্ত্রী রাজীমতীর বাসগৃহ ছর্গের নিকটই ছিল। নেমিনাথ এক দিন তাহার জ্ঞাতিভ্রাত কৃষ্ণের অতি প্রকাও শখ বাজাইয়া ছিলেন। কৃষ্ণ র্তাহার সামর্থ্যে ঈর্ষাপরবশ হইয় তাহার দৈহিক বল হরণ করিবার জন্ত নেৰ্মিনাথকে ১•• গোপী বিবাহ করিতে বলেন এবং রাজীমতীর সহিত নেমিনাথের বিবাহ সম্বন্ধ স্থির করেন। কথিত আছে বালা বংশীয়গণ পূৰ্ব্বে জুনাগড়ে রাজত্ব করিতেন । এই বংশীয় রামরাজ নিঃসন্তান ছিলেন। নগরঠঠার রাজার সহিত র্তাহার ভগিনীর বিবাহ হইয়াছিল, সেই রাজা সন্মাবংশীয় ছিলেন। রামরাজ তাহার ভাগিনেয় রা গারিওকে নিজ রাজত্ব প্রদান করেন । রা গারিও জুনাগড়ের চুড়াসমাবংশীয় রাজাদিগের একরূপ আদিপুরুষ। রা গারিওর মৃত্যুর পর দুইজন রাজা জুনাগড়ে রাজত্ব করেন। পরে রা দয়াস সিংহাসনে অভিষিক্ত হইলেন । এই সময় পট্টনরাজ একবার জুনাগড় অধিকার করেন। পট্টনের রাজকুমারী সোমনাথ দর্শনে আগমন করিলে রায় দয়াস র্তাহার সৌন্দর্য্যে মুগ্ধ হইয়া বলপূর্বক তাহাকে বিবাহ করিতে চেষ্টা করেন। পট্টনরাজ এই বিবরণ অবগত হইয়া জুনাগড়রাঞ্জকে দমন করিবার জন্য একদল সৈন্ত প্রেরণ করিলেন । * রায় দয়াস গিরনর দুর্গে আশ্রয় গ্রহণ করিলেন। পট্টনৱাজ বহুদিন অবরোধের পরও দুর্গ অধিকার করিতে না পারিয়া ভগ্নমনোরথ হইয়া স্বরাজ্যে প্রত্যাগমনের উদ্যোগ করিলেন । এমন সময় বিজল নামক একজন চারণ আসিয় তাহার সহিত ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হইল। বিজল পারিতোষিকের লোভে রায় দয়াসের মস্তক পট্টনরাজকে আনিয়া দিতে স্বীকৃত হইল। সে জানিত রায় দয়াস কর্ণের কায় দাতা। বাস্তবিক প্রার্থনা করিবামাত্রই তিনি নিজ মস্তক অর্পণ করিলেন । যে দিন চারণ রাজার নিকট গমন করিল, তাহার পূর্বরাত্রে সোরঠরাণী স্বপ্নে দেখিলেন যেন একটা মস্তকহীন মনুষ্য র্তাহার নিকট রহিब्रांtछ् ।। ८णशांडिरिर्वन्शन रौणि८णन, नैौञ्चद्दे उँीशग्न यांमैौ निख [ ১৩ত ] মন্তক কৰ্ত্তন করিয়া কাহাকেও উপহার দিবেন। রাণী তীত w WII - <28 জুনাগড় झहेब्र ੋਂ नूकाहेग्रा ब्राषिप्णन । किढ नग्नकगक दिछन রাজার গু বাল-স্থল অবগত হইয়। তাছার নিকটে আসিয়া সঙ্গীত আরম্ভ করিল। রাজা একগাছি দড়ি ও লাঠি ঝুলাইয়া দিয়া তাহাকে নিজের নিকট আনয়ন" লেন। সেই পাপাশয় রাজার মস্তক প্রার্থনা করিলে তিনিও তৎক্ষণাৎ তাহা প্রদান করিতে স্বীকৃত হইলেন । সোরঠরাণী চারণকলঙ্কের মত পরিবর্তনের জন্য অনেক অনুরোধ করিলেন । কিন্তু কিছুতেই কিছু হইল না ; রাজার প্রতিজ্ঞাও কিছুতেই বিচলিত হুইবার নহে । রাজা তাছার মস্তক ছেদন করিয়া সেই চারণকে দিতে আদেশ করিলেন। ‘রাজার মৃত্যুর পর পট্টনরাজ সহজেই জুনাগড় রাজ্য অধিকার করিলেন এবং থানদারকে তথায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করির স্বরাজ্যে প্রস্থান করিলেন। রায় দয়াসের প্রথম স্ত্রী সহমৃতা হইলেন, তাহার দ্বিতীয়া স্ত্রী রাজবাই স্বীয় পুত্র নোঘাণের সহিত বাস্থলী নামক স্থানে বাস করিতেছিলেন । রাজবাই পুত্রকে দেবৈহুবোদর নামক আলিদর-বোড়ীধরের জনৈক আহীরের বাটতে লুকাইয়া রাখিলেন । দেবৈতের ভ্রাতার নিকট গুনিয়া খানদার দেবৈংকে ডাকিয়া পাঠাইলেন এবং নোঘাণকে অর্পণ করিতে আদেশ করিলেন। তিনি উত্তর করিলেন, “আমি তাহার বিষয় কিছুই জানিনা, তবে আমার গৃহে থাকিলে তাহাকে পাঠাইবার জন্য লিখিতে পারি।” দেবৈতের পত্র পাইয়া চারিদিক হইতে আহীরগণ মিলিত হইয়া যুদ্ধার্থ প্রস্তুত হইল । এদিকে নোঘাণের আসিতে বিলম্ব দেখিয়া থানদার কতকগুলি সৈন্ত ও দেবৈৎবোদরকে সঙ্গে লইয়া আলিদর বোড়িধরে আসিয়া উপস্থিত হইলেন। দেবৈৎ দেখিলেন, বাধা প্রদানে কোন ফল হইবে না । তিনি অল্প কোন উপায় না দেখিয়া নিজ পুত্ৰ উগকে আনিয়া থানদায়ের সম্মুখে উপস্থিত করিলেন । উগ নোঘাণের সমবয়স্ক । নরপিশাচ থানদার উগকে তৎক্ষণাৎ হত্যা করিয়া ফেলিল। দেবতুল্য উদারহৃদয় বোদর একবিন্দু অশ্রুপাত করিলেন না ; রাজকুমার নোখাশকে রক্ষা করিতে পারিয়াছেন বলিয়া বিশেষ প্রফুল্প হইলেন । তিনি তাহার জামাতা সংস্তিওকে আনাইয়া সকল জানাইলেন এবং জুনাগড় সিংহাসনে নোঘাণকে অভিষিক্ত করিবার জন্ত পরামর্শ করিলেন । বোদরের কম্ভার বিবাহ উপলক্ষে থানদারকে নিমন্ত্রণ করা হইল। সেই রক্তপিপাসু নরকুলকলঙ্ক আগমন করিলে গুপ্তস্থান হইতে আছীয়গণ বহির্গত হইয়া সৈন্ত সমেত তাহাকে বিনাশ করিয়া পাপের উপযুক্ত প্রতিফল প্রদান করিল। ৮৭৪ সম্বতে নোঘাণ জুনাগড় সিংহাসনে অভিষিক্ত হইলেন। জুনাগড়ে