পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/১৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Çማኻ कब्रिदांब्र गब्रिदर्स कांब्रांनt७ नखिंड कब्र श्छ । यान्नैौन কালে অপরাধীর দোষ সংশোৰিত হউক বা না হউক তাহার প্রতি কোনরূপ দৃষ্টি না রাখিয়। তাছাকে গুরুতর শাস্তি ●यमांन कब्र हद्देऊ -শাস্তিপ্রদানের কোন প্রকার নিয়ম ছিল না । কারাগারগ্ৰথা প্রচলিত হইবার পরেও য়ুরোপে কয়েদীদিগের প্রতি বিশেষ অত্যাচার করা হইত। যুরোপের জেলগুলি এক একটা নরক স্বরূপ ছিল । বন্দিগণ যেরূপ উৎপীড়িত হইত, তাহ ধর্ণনাতীত। বিশ্বপ্রেমিক জন হাউস্নার্ডের অদম্য উৎসাহ ও অসীম ক্লেশসহিষ্ণুতা গুণেই উক্ত বীভৎস নরকগুলি সংস্কৃত হইয়াছে। উক্ত মহাত্মার অটল যত্নে ১৭৭৩ খৃঃ অব্দে কারাগারের স্বাস্থ্যবিধান সম্বন্ধে একটা আইন বিধিবদ্ধ হইল। এই সময়েই কারাগারে মতিরিক্ত শান্তিদানের প্রথা রহিত হইল। পূৰ্ব্বে সকল প্রকার করেদীকেই একত্র রাখা হইত এবং জেলাধ্যক্ষ অর্থলোভে করাগার মধ্যে বিবিধ প্রকার বীভৎস কার্ব্যের প্রশ্রয় প্রদান করিত, ইহাতে অপরাধিদিগের দোষাবলী দূরীভূত না হইয় বরং বদ্ধমূল হইত। জেলখানায় বায়ুসঞ্চালনের প্রশস্ত পথ না থাকায় এবং বিবিধ অপরিচ্ছন্নত্ত বশতঃ একপ্রকার জ্বরের উৎপত্তি হইত সে জ্বরে অনেক সময় কয়েদীদিগের জীবন যাইত । ক্রমে ক্রমে এই অসুবিধাগুলি দূরীভূত হইতে লাগিল । অনেক মহাত্মা কারাগারের দোষগুলি অপসারিত করিবার জন্ত প্রাণপণে চেষ্টা করিয়াছেন, কিন্তু এখনও পর্য্যন্ত দোষগুলি সম্পূর্ণরূপে নিরাকৃত হয় নাই। স্ত্রী ও পুরুষ কয়েদীদিগকে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে রাখা হয় । তাহাদিগকে পরম্পর দেখা সাক্ষাৎ করিতে বা কথাবার্তা কহিতে দেওয়া হয় না । • প্রত্যেক কয়েদীর যাহাতে শরীর সুস্থ থাকে এবং যাহাতে কাহাকেও সাধ্যাতিরিক্ত পরিশ্রম করান না হয়, তৎপ্রক্তি জেলাধ্যক্ষ দৃষ্টি রাখিবেন। প্রত্যেক জেল দেখিবার জন্য এক একজন চিকিৎসক নিযুক্ত আছেন । গুরুতর অপরাধিদিগকে সময় সময় নির্জন কারাবাসে দণ্ডিত করা হয়। এই সময় ইহুদিগকে কাহারও সহিত কথা বলিতে দেওয়া হয় না, অন্ত লোকের নিকটও ইহাদিগকে যাইতে দেওয়া হয় না। কয়েদীগণ নির্জন কারাবাসের নিয়মভঙ্গ করিলে পূৰ্ব্বে তাহাদিগকে কঠোর শারীরিক শাস্তি প্রদান করা হইণ্ড এবং আইনানুসারে এই শাস্তির বিরুদ্ধে কোনরূপ আবেদন চলিতে পারিত না। কধুেণীগণ দ্বারা নানারূপ কাৰ্য্য করান হয়—যথা ( 3; } জেলা স্বরকি ভাঙ্গা, ঘানী টানা ইত্যাদি। ইহা দ্বারা গন্টের অনেক আয় হয়। এ দেশে যুরোপীয় কয়েীদিগের জন্য ভিন্নরূপ বন্দোবস্তু আছে । তাছাদিগকে যে বিখ্যাঙ্কণ সুবিধা ভোগ করিতে দেওয়া হয়, দেশীয়দিগকে তাহার ইলে ও দেওয়া হয় না । জেলখানায় যুরোপীয় কয়েদীদিগের নীতিশিক্ষার জন্ত লোক নিযুক্ত আছে, কিন্তু দেশীয়দিগের জন্ত ক্ষুেণ্ড কোন বিশেষ বন্দোবন্ত নাই । মধে২ অল্প বয়স্কদিগের জন্তু অন্তরূপ বন্দোবস্ত । যে সমস্ত বালক বাগিক কোন, আইন বহির্ভূত কার্যের জন্ত জেলে গ্রেরিত হয়, তাহাদিগকে কোনরূপ গুরুতর পরিশ্রম করিতে দেওয়া হয় না ... তাহাদিগের জন্ত নিৰ্দ্ধারিত জেলকে witz-signsofa (Reformatory Jail) of তাহাদিগকে শিক্ষা দিবার জন্ত ঐ জেলে শিক্ষক নিযুক্ত আছেন। সংশোধনাগারের উদ্যানে ফুলের গাছ রোপণ কুরিবার জন্ত মাট প্রস্তুত করা ও ফুলের গাছে জল দেওয়া প্রভৃতি কার্যে এই বালক অপরাধীদিগকে নিযুক্ত করা হয়। কিন্তু অন্যান্য কয়েদীদিগের জন্ম যেরূপ নিয়ম বিধিবদ্ধ আছে, প্রায়ই তাহীর অপব্যবহার হয়। কয়েদীদিগকে যে পরিমাণে খাদ্য দিবার বিধি আছে, প্রকৃতপক্ষে কার্ঘ্যে তাহ দেওয়া হয় না । বিশেষ একটা কুৎসিত নিয়ম এ দেশের জেলখানায় প্রচলিত আছে, রাত্রিকালে কোন কয়েদীকে মলপরিত্যাগ করিবার জন্য বাহিরে যাইতে দেওয়া হয় না—রাত্রিকালে তাহার ঘরের মধ্যেই মলত্যাগ করে এবং দিবাভাগে তাহা স্বহস্তে পরিষ্কার করে । যে উদ্দেশু্যে কারাগারে অপরাধীদিগকে রাখা, তাহা সুসিদ্ধ হইতেছে না। আজকাল্প প্রায়ই দেখা যাইতেছে, জেলখান। হইতে মুক্ত হইয়াই দণ্ডিত লোকগণ আবার অতি শীঘ্রই কুকার্য্যে প্রবৃত্ত হইতেছে । ভারতীয় জেলে স্বাস্থ্যরক্ষার নিয়মগুলি মুলাররূপে প্রতিপালিত হয় না । কয়েদীদিগের স্বাস্থ্যরক্ষার জন্য তত যত্ন লওয়া হয় না । এখানকার জেলে প্রায় স্বাদশাংশ লোক অনেক সময়ে পীড়িত থাকে। ইংরাজ রাজত্বকালে প্রত্যেক খিভাগে ও প্রতি উপবিভাগে এক একটা জেল স্থাপিত হইয়াছে। উপবিভাগের জেল অপেক্ষা বিভাগীয় জেলে অধিক ংখ্যক কয়েদী রাখা হয়। বঙ্গদেশে আলিপুরের জেলটই সৰ্ব্বাপেক্ষা বৃহৎ । জেলা ( পারসী জিলা ) বিচারকার্য্য ও রাজস্ব দি আদায় জল্প ইংরাজাধিকৃত ভারতবর্ষের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্ধ বিম্ভাগ। এই শব্দ