পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/২৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জোল্লারপেট निदांब्र गभग्न श्राहकों कॉल हद्दे८ठ महेथांना मृग्नांझेब्र! ब्रांथिल, ङांह হইলে কাক চাল হইতে নামিতে পারিবে না । ইহার বোকামির জন্য অনেক সময় বৃথা মার খায়, এক সময় ভেড়ার লড়াই দেখিতে গিয়া নিজেই এক তাল খায় । “করিঙ্গা ছাড় তমসি যায়, প্রধান ষ্টেসন আছে। U. জোলাহ্ (আরবী) জোলাপ, বিরেচক ঔষধ। 6° জোলী ( দেশজ ) জোল, জুলী জোল দেখ। ] জোবাই, আসামের অন্তর্গত খালি জেলার জয়স্তিয়া-গিরিমালার 宫 নাহক চোট জোল খায়।”• অর্থাৎ জোল তাত ছাড়িয়া তামাসা দেখিতে গেল এবং বিনা কারণে মার থাইল । * আর একটী গল্প আছে—এক দৈবজ্ঞ এক জেলাকে বলিল কুঠারে তাহার নাক কাটা যাইবে, এইরূপ তাহার অদৃষ্টে লেখা আছে। জোল সহজে বিশ্বাস করিবার পাত্র নহে । সে কুঠার লইয়া বলিতে লাগিল, “ইয়া করবাতো গোড় কাটুৰ, ইয়া করবাতো হাত কাটুবা, আউর ইয়৷ করবা তব না”—আমি যদি এমনি করি তবে হাত কাটিব, যদি এমনি করি তলে হাত কাটিব, আর এমনি না করিলে ত না. , এমন সময় তাহার নাক কাটা গেল । g একটা প্রবচন আছে—“জোলা জানথি জে কাটে ?” জেলা কি যব কাটিতে জানে ? এই কথার একটা গল্প আছে। এক জোল ঋণ পরিশোধ করিতে না পারিয়া মহাজনের জমিতে খাটিয়া দেন শোধ করিতে ইচ্ছা করিল। কৃষক মহাজন তাহকে যব কাটিতে পাঠাইলে নিৰ্ব্বোধ যব না কটিয়া উহার খড়ের ভাজ ছাড়াইতে লাগিল । আর ও উহাদের নির্বদ্ধিতাজ্ঞাপক বিস্তর প্রবচন আছে—“কোওয়া চলল বাসর্কে জেলা চলল ঘাস কেঁ --অর্থাৎ কাক যপন বাসায় যায়, জোলা তখন ঘাস কাটিতে বাহির হয় । "জোলা কি জুতি সিপাহি কি জোয়, ধরি ধরি পুরাণি হোয় ।” অর্থাৎ জেলার জুতা ও সিপাহির স্ত্রী ব্যবহারাভাবে জীর্ণ হয় । "জোল চোরাবথি নড়ি নড়ি, খোদা চোরপথি এক্কেবেরি” অর্থাৎ জোলা এক একটা স্থতার নলি চুরি করে, আর ভগবান এক বারে তাহার (সমস্ত কাপড় খান ) চুরি করেন। স্থানে স্থানে কতকগুলি হিন্দু জোলা আছে, কিন্তু ইহাদের সংখ্যা অত্যন্ত্র এবং জোল বলিলে মুসলমান তাতিকেই বুঝায়। ২ নিবোধ, মূখ। জোল্লারপেট ( বা জলারামপেত ) মাদ্রাজ প্রেসিডেন্সীর । সালেম জেলার তিরুপাতুর তালুকের অন্তর্গত ও সমুদ্রপৃষ্ঠ হইতে ১৩১ • ফিট উচ্চে অবস্থিত একটী নগর । অক্ষা” ১২° ৩৪' উঃ, দ্রাঘি ৭৮° ৩৮' পূঃ। এখানে অধিকাংশই o Behar Peasants' Life. উপবিভাগের সদর গ্রাম। এই গ্রাম সমুদ্রপৃষ্ঠ হইতে ৪৪২২ ফিট উদ্ধে অবস্থিত। আদিষ্টাণ্ট ডেপুটি কমিশনর এই গ্রামে বাস করেন । অনেকগুলি গিরিবষ্ণু এই স্থান দিয়া যাওয়ায় এখানে কিয়ুৎপরিমাণে বাণিজ্য হইয়া থাকে। কার্পাস, রবর প্রভৃতি রপ্তানী হয়। আমদানির মধ্যে চাউল, শুষ্ক মৎস্ত ও কার্পাস বস্ত্রাদি প্রধান। এখানে বৃষ্টির পরিমাণ অত্যন্ত অধিক । ১৮৮১ খৃঃ অদ পর্যন্ত পূৰ্ব্বে ৫ বৎসরে গড় বার্ষিক বৃষ্টিপাত ৩৬২-৬৩ ইঞ্চি হইয়াছিল । ১৮৬২ খৃঃ অব্দে যে জাতীয় বিদ্রোহ হয়, জোবাই তাহার কেন্দ্রস্থল । জোবাট, ১ মধ্যভারতের ভোপাবর অর্থাৎ ভাল এজেন্সির অন্তর্গত একটা ক্ষুদ্ররাজ্য। এই রাজ্য ২২, ২৪ হইতে ২২৩৬ উত্তর অক্ষরেখা এবং ৭৪° ৩৭ হইতে ৭৪° ৫১′ পূৰ্ব্ব দ্রাঘিমার মধ্যে অবস্থিত। পরিমাণফল ১৩২ বর্গমাইল। আলি রাজপুর রাজ্যেরই একটা শাখা মাত্র। ইহার ভূমি পৰ্ব্বতময় এবং অধিবাসীগণ অধিকাংশই ভীল। মালবে মহারাষ্ট্রীদিগের উপদ্রবের সময় এই প্রদেশ শান্তি ভোগ করিয়াছিল। উত্তরসীমাস্থ বিন্ধ্যপৰ্ব্বতশ্রেণীর কএকটি শাখ পৰ্ব্বত ইহার মধ্যে প্রবেশ করিয়াছে। ইন্দোর হইতে ধার, রাজপুর (আলি রাজপুর ) দিয়া গুজরাট পর্য্যন্ত রাস্ত৷ এই রাজ্যের উত্তর পূৰ্ব্বাংশ দিয়া গিয়াছে। জোবাটের রাণী রাঠোর-বংশীয় রাজপুত। ২ মধ্যভারতের ভোপাবর এজেন্সীর অন্তর্গত জোবাট রাজ্যের প্রধান সহর। অক্ষা” ২২• ২৬°৪৫' উঃ, দ্রাফি ৭৪° ৩৫৩০′ পূ: । এই নগরের নামানুসারে রাজ্যের নাম জোৰাট হইলেও ইহা রাজধানী নহে। রাজ্যের প্রধান মন্ত্রী তিন মাইল দূরবত্তী ঘোরা গ্রামে বাস করেন। Aঘারা একটা সামান্য গ্রাম হইলেও ইহার জলবায়ু জোবাট অপেক্ষ ভাল । সেই জন্য জোবাট উঠাইয়া ঘোরাতে স্থাপন করিবার প্রস্তাব হইয়াছিল । তিন দিকে উচ্চ জঙ্গলময় পৰ্ব্বতবেষ্টিত একটী পৰ্ব্বতচূড়ায় অবস্থিত রাণার দুর্গের পাদদেশে জোবাট সহর অবস্থিত, এই সহর কতকগুলি গৃহ ও আপণশ্রেণীর সমষ্টিমাত্র । অধিবাসীগণ জর রোগে অত্যন্ত কষ্ট পায়। এখানে খাজনাথানা ও জেল আছে। ঘোরায় রাজার দাতব্য চিকিৎजोशम्न श्राप्झ् ! &