পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/৬৪৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ङाँ* “গৃভূণাতিরিগ্রমবিরত তাম্ব” । (ঋক্ ৯৭৮) ‘তাস্ব স্বকীদেন ৰন্ত্রেণ । ( সারণ ) - তাম্বঙ্গ (পুং ) তম্বঙ্গের অপত্য। o o তাপ (পুং) তপ-ঘঞ, ১ ক্লেশজনক উষ্ণাদি স্পর্শ জন্য সন্তাপ। ২ কৃচ্ছ ৩ উষ্ণত।। ৪ যাতনা-মনঃপীড়া। ৫ জর .৬ অধ্যাত্মিক, আদিদৈবিক ও আধিভৌতিক দুঃখ দুঃখ দেখ। ] তাপ ( Heat) প্রকৃতিকাৰ্য্যের সামঞ্জস্য বিধানে বিশেষ উপযোগী । & ইহা দ্বারা বাত্য প্রভৃতি কত শত আশ্চৰ্য্য ভয়ানক ঘটনা সংঘটিত হইতেছে। ইহা ন হইলে রসায়নশাস্ত্র বিশেষরূপে পরীক্ষা দ্বারা আলোচনা করিতে পারা যায় না । বস্তুতঃ পদার্থগণের সংশ্লেষণ, বিশ্লেষণ, অবস্থান্তর বা রূপান্তর প্রাপ্তি প্রভৃতি ক্রিয়ার তাপ একটা প্রধানতম সাধক ৷ অধিক কি, এমন কোন রাসায়নিক ক্রিয়াই নাই যাহাতে তাপের বিনিয়োগ উদ্ভব বা বিলয়ন হয় না । ইহার মূলতত্ত্ব ও যথাযোগ্য বিনিয়োগ প্রণালী অবগত হইতে পারিলে সংসারে কত শত অদ্ভূত ও মহোপকারক কাৰ্য্য সংসাধন করিতে পারা যায় ! বাষ্পীয় শকট, বাষ্পীয়যান ও তাপমান যন্ত্র প্রভৃতিই ইহার নিদর্শন। কি প্রাণিরাজ্যে, কি জড়রাজ্যে তাপের মহোপাদেয়ত সৰ্ব্বত্র বিশেষরূপে লক্ষিত হয় । তাপ না থাকিলে প্রাণী বা উদ্ভিজ্জগণের জন্ম, পরিবদ্ধন বা পচন কিছুই হইত না। তাপবিশেষ উপকারী, কিন্তু তাহার লক্ষণ কি ? তাপ অদৃশু । প্রদীপ জলিতেছে, দেখিয়া কিছু বলা যায় না, যে সে উত্তপ্ত । ইহা ভারবিহীন ; কোন বস্তুর শীতকালেও যতটুকু ভার, গ্রীষ্মকালেও ততটুকু ভার থাকে । তাপনিবন্ধন ভারের কিছুই বৈলক্ষণ্য হয় না । অথচ তাহার সন্তার উপলব্ধি হইতেছে । সে সত্ত্বা স্পর্শগ্রাহ ও প্রক্রমামুমেয় । তাপ কোন বস্তুতে উপসংক্রামিত হয়, বস্তু তাছা শোষণ করে এবং তখন অবস্থাস্তর বা রূপান্তুর প্রাপ্ত হয়। তখন তাপের প্রক্রম দেখিতে পাওয়া যায় । তখনই বিস্তারণ, তরলীকরণ, বাষ্পীকরণ প্রভৃতি ক্রিয়ার উপলব্ধি হয় । তাপ সকল পদার্থেই বর্তমান থাকে। তবে অল্প আর অধিক। তুষারপিও যে এত শীতল, ইহাতেও তাপ আছে। কারণ তাপমান-যন্ত্রদ্বারা ইহা নির্ণীত হইয়াছে যে, শীতপ্রধান দেশে তুষার গ্রীষ্মকালে যত শীতল থাকে, শীতকালে তাহ অপেক্ষ অধিক শীতল হইয়া যায়। তাপের গতি সরলরেখার এবং আলোকের স্তায় ইহা दखरडcग्न थङिकलिङ दां সংক্রামিত হয়। কোন কোন WII - ১৬১ [ ७8> ] তাপ बख हेशtक अंग्रजां९ बां ८भाविठ कtद्र । cरुन ८कांन বস্তু দ্বারা প্রতিফলিত হয়। কোন কোন বস্তার পৰুি চালিত, প্রসারিত ও বিকীরিত হয়। সকল স্থলে তাপ প্রত্যক্ষগ্রাহ ও পরিমেয়। কোন কোন ‘বৰ তাপকে শোষিত করে, কিন্তু সে বস্তু উত্তপ্ত হয় না, কিম্বা হইয়াছে, এমন দেখা যায় না। এখানে তাপ গুড়, অনিষ্ক্রিয় গ্রাহ বা अछूभिङि-&ांश् । সুতরাং তাপ দ্বিবিধ-প্রত্যক্ষগ্রাহ (sensible) ও অমুfirfsósto (latent) কিন্তু তাপের লক্ষণ কি ? যাহা কোন বস্তুতে থাকিলে সেই বস্তু উষ্ণ বোধ হয়, তাহার নাম তাপ। এখানে জিজ্ঞাসা করিতে পার, যখন গৃঢ়ভাবে কোন বস্তুতে থাকে, তখন কি সে তাপ তাপ পদবাচ্য হইবে না ? হইবে, কারণ সেখানে পূর্বে তাহার অস্তিত্ব লক্ষিত হইয়াছে এবং পরেও তাছার অস্তিত্ব দৃষ্ট হইয়া থাকে, সুতরাং সে অবস্থায় দৃষ্ট না হইলেও অনুমান করা যাইতে পারে, যে তাপ সেখানে বর্তমান । কোন এক বৰ্ত্তল উপরে ফেলিয়া দিলাম, তাহ না পড়িয়া কোন এক ছাতে বা অন্ত কোন উচ্চ ভূমিতে গিয়া রছিল, তাহার পতন সেই আধার সংযোগে নিবারিত হইল । তখন কি বলিব যে তাহার পতনশক্তি নষ্ট হইল না, কাবু সেই আধার শূন্ত করিলে সেই বৰ্ত্তল অমনি ভূমিতে পতিত হইয়া যাইবে । ক্ষণকালমাত্র সেই আধার ভূমি উক্ত বৰ্ত্তলের পতনশক্তির প্রতিরোধ করিয়াছিল। তুল্য বল বিরোধিত-নিবন্ধন সে শক্তি তখন প্রত্যক্ষীভূত হয় নাই, সেইরূপ তাপও সময়ে গৃঢ়ভাবে থাকে, বস্তু উষ্ণ হইয়াছে, এমন বোধ হয় না, অর্থাৎ তাপের কোন কাৰ্য্যই সেখানে দৃষ্ট হয় না, কিন্তু অবস্থাস্তরে বিলক্ষণ লক্ষিত হয় । ইহা একে একে বাহুল্যরূপে বলা যাইতেছে । stroff 2 Ffs (Nature of heat) fr ? অনেক বিজ্ঞানবিং পণ্ডিত এ বিষয়ে নানাবিধ মত প্রকাশ করিয়া গিয়াছেন, কিন্তু সে সকলের মধ্যে একট৪ সৰ্ব্বাঙ্গ সুন্দর বলিয়া গৃহীত হইতে পারে না । কিন্তু এটা স্থির তাপ, আলোক এবং তাড়িত এ তিনই এক পদার্থ। একই প্রকৃতির রূপান্তর মাত্র । এই তিনের উপাদানীভূত পদার্থ ইথর ( Ether ), ইহা অণু সকলের পরস্পর অবাস্তর প্রদেশে পরিব্যাপ্ত হইয়া অবস্থান' করে। প্রাচীন পণ্ডিতগণ বলিতেন, যাহার উষ্ণ পর্শ আছে, তাহার নাম ভেজ।" পূৰ্ব্বতন যুরোপীয় পণ্ডিতগণ