পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/৬৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


डांशिल अथन७ जांविप्फब्र नांनांश्रन थडूठ जनगैर्डिं थाईौन ২জন সমৃদ্ধির বিশেষ পরিচয় প্রদান করিতেছে। এখানকার প্রাচীন জৈনধর্মাবলম্বিদিগকে নীচ জলভ্য বা ৱেছজাতি বনিয়া গণ্য করা যায় না। কোন কোন खांषिtबिल् बश्मनि। করেন, স্ব গ্রসিদ্ধ কুমারিলভট্ট আৰু দাবিড়” শৰে যে দ্রাবিড়ভাষার উল্লেখ করিয়াছেন।৯ তাহ। তাহারই সমকালীন জৈনগণের ব্যবহৃত তামিল ভাষা। " পাও্যরাজ শুন্দরপাও্য পরম শৈব ছিলেন । তাছারই সময়ে তামিল-ভূমে শৈবদিগের প্রাধান্ত স্থাপিত হয় এবং জৈনধৰ্ম্মের অবনতির স্বত্রপাত ঘটে । শঙ্করাচার্য্যের অভু্যদয়ে এখানকার জৈনধৰ্ম্ম এককালে হীনপ্রভ হইয়া পড়ে । তামিলদিগের মধ্যে বহুকাল শৈবধৰ্ম্মই প্রৰল ছিল, এখন শিবোপাসকগণ স্মাৰ্ত্ত বলিয়া প্রসিদ্ধ। রামানুজের স্বত্বে বৈষ্ণবধৰ্ম্মের প্রাধান্ত স্থাপিত হয় । তামিলদিগের মধ্যে এখন দুইশ্রেণীর বৈষ্ণব দেখা যায়, একের নামে তেঙ্গল বা দক্ষিণবেদী এবং অপর শ্রেণীর নাম বড়গল বা উত্তরবেদী । উত্তরভারতে যেমন এখন আর পূর্ববৎ বেদের প্রচলন নাই, কিন্তু দ্রাবিড়ে এখনও সেরূপ ঘটে নাই । তামিলে এখনও বেদের যথেষ্ট আদর দেখা যায়। এমন কি দ্রাবিড়ের এমন কোন মন্দির নাই, যেখানে প্রত্যেহ না বেদ পাঠ হয় ! তামিল ব্রাহ্মণদিগের মধ্যে এখনও সকল ধৰ্ম্মকৰ্ম্মে বেদপাঠই একটা প্রধান অঙ্গ বলিয়া গণ্য । ব্ৰাহ্মণগণ এখনও যথাসাধ্য শাস্ত্র মানিয় চলেন। এখানে বর্ণবিচার প্রথাও শিথিল হয় নাই ! এখনও এমন অনেক স্থান আছে, যেখানে ব্রাহ্মণগণ শূদ্র স্পর্শ করিলেও ধৰ্ম্মনাশের আশঙ্কা করিয়া থাকেন। এমনও অনেক ব্রাহ্মণগ্রাম আছে, যেখানে শূদ্রের প্রবেশ করধারও অধিকার নাই । মুসলমান-আধিপত্যকালে অতি অল্প সংখ্যক তামিলই ইস্লাম ধৰ্ম্ম গ্রহণ করিয়াছিল। তাহাদের সস্তান সন্ততিগণ আবার অনেকে খৃষ্টীয় ১৬শ শতাব্দে ফ্রান্সিস জেভিয়রের वtङ्ग शू?ीब्र थ८षं नीभिङ श्ब्र। ७थन उॉभिगनिtशद्र भाषा श्रृङकङ्गt &थंiघ्र ५क चन ख्रिश्न! शूद्देनि ८१! यानि । ভাষা ও সাহিত্য । ভারতে যতগুলির বর্ণমালা অাছে, তন্মধ্যে তামিল বর্ণমালা অসম্পূর্ণ। ডাক্তার বুর্ণেল সাহেবের মতে, তামিল বর্ণমালা বত্তেলুগু, নামক এক প্রাচীন বর্ণমালা झ्हेप्टङहे डेङ्ख्यादिङ ७द९ श्रछि थाह्रैोन कोप्ण किनिकैौम्न वन्धिकनिtश्वब्र निकल्ले इहे८उ शृशैऊ । क्रूि ७ नषरक जांयांप्नग्न अज्रखनःि षitछ् । [ द{णिl cझषं ।। ] हेहॉट्सङ्ग च, षं, हे. में, ले, से, {, ( गैौर्ष ) ७, 'e, ( ौ९ ) [ છ૧૯ | डांशिश्न ७, भै ७ष५ 8 #३ दांत्री चत्र अवर क, s, छै, ठ, भ, बू, ७. এ, ণ, ন, ম, স, ষ, র, ল, ব, ড়, ল, এই ১৮টা ব্যঞ্জন । ४ं खांशांश्च रु, १, श्रृं, ष ७्र छद्रिौ बनि, E, ए, च, ঝ এই চরিটীয়, ট, ঠ, ড, ঢ এই চারিটীয়, ত, থ, দ, ধ এই চামিটার এবং প, ফ ব ভ এই চারিটা বর্ণের উচ্চারণ এক । অর্থাৎ ক থাকিলে তাহাতে ক, খ, গ, ঘ এই চারিটী বর্ণ উচ্চারিত হইতে পারে। এতদ্ভিন্ন শ, ষ, স, হ, , ; এই कब्रठिी वर्ष थरूकारणहे नाहे । नश्कूङ डांशां★ ८षभन बरुण२षाक यूङयाङन इद्देद्रा ५८क, उांभिशङांवाग्न ८भक्र* रुग्न नां । কেবল স্ট, স্ত, র, ষ্ম, ক, ৯ এইরূপ কএকটা এবং টুক, টুপ, রক, রচ, রূপ, যা, ল, ৰা, নূর এই কয়ট যুক্তব্যঞ্জন দেখা যায়। তিনটী ব্যঞ্জনের যোগ কেবল ও এবং স্বর্ণ। সংস্কৃতের छांब्र नकल बग्नश्चन ठांभिशङांवॉग्न नां श्वाकांग्र ८कांन नश्कूड শব্দ তামিল ভাষায় প্রয়োগ করিতে হইলে ,তাহার রূপান্তর হয় ; যেমন সংস্কৃত কৃষ্ণ তামিল কিরুটিন বা কিটিন । যুরোপীয় ভাষাবিদগণ স্থির করিয়াছেন—তামিল ভাষা সংস্কৃতমূলক নহে। সংস্কৃতমূলক হইলে তামিলভাষায় এত অল্প বা অসম্পূর্ণ বর্ণমালা থাকিত না । কেহ কেহ প্রাকৃতমূলক দ্রাবিড়ী ভাষাকেই তামিল ধরিয়া সংস্কৃতমূলক বলিতে প্রস্তুত। আধুনিক তামিলভাষায় অনেক সংস্কৃত শব্দের প্রয়োগ থাকিলেও তামিলভাষায় লিখিত যে সকল প্রাচীনতম শিলালিপি বা গ্রন্থ পাওয়া গিয়াছে, তাহাতে সংস্কৃতের ७छाद श्राप्तो गकिङ श्य न । ७हे गरुण फाब्रट्न भूण তামিলকে সংস্কৃতমূলক বলা সঙ্গত নহে । তামিলভাষাও নিতান্ত অপ্রাচীন, নহে। বোধ হয় রামচন্দ্র ও এখানে বর্তমান তামিলভাষার প্রাচীনস্বর শ্রবণ করিয়াছিলেন । বাইবেলের প্রাচীনভাগে হিরমের জাহাজে সলোমানের নিকট ময়ুর আনিবার প্রসঙ্গ আছে। বাইবেলের এই স্থানে ময়ুরের যে নাম • দেওয়া হইয়াছে, তাহ। তামিলভাষামূলক । এতদ্ভিন্ন গ্রীকভাষায় ধান্ত প্রভৃতি ভারতের বহু প্রয়োজনীয় শস্তাদির ষে নাম লিখিত হইয়াছে এবং যাহা ভারত হইতেই য়ুরোপে প্রথম নীত হয়, তাহার অধিকাংশ নাম আমরা সংস্কৃত ভাষায় পাই না, কিন্তু তামিল ভাষায় দেখিতে পাই । - " তামিলভাষা আবার দুই প্রকার। একটর নাম শেন দমির অর্থাৎ প্রাচীন তামিল এবং ਬਾਂ, নাম কোড়ন • ° बाश्रवण'बुब्रत्व कि' नाव पूज्न चाइ, ७२ भज आविण केtि* वा 'छ्रेन श्रेtड शृशैफ ।