পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छिख জিগা (পারলী) মুকুট রাজার মন্তকাভরণ। জিগির (আরবী) চীৎকার, স্পষ্ট প্রকাশ, প্রত্যক্ষ। ञ्जिष्ठांद्धिं (*५९) গু বাহুলকাৎতি দ্বিখঞ্চ । আচ্ছাদক। "জিগর্কি মিজো অপজগুরাণঃ* ( ঋক্ ৫২৯৪ ) জিগৰ্ত্তিং গয়ন্তমাচ্ছাनग्नस्त्र३' (जोग्नु) জিগীষা (স্ত্রী) জেতুমিচ্ছ জি-সন ভাবে অ। ১ জয়েচ্ছ, জয় করিবার ইচ্ছা । ২ প্রকর্ষ । ৩ উদ্যম । জিগীষু (ত্রি) জি-সন্‌ তত উ। ১ জয়েছু। ২ উৎকৰ্ষ লাভেচ্ছ। ৩ উদ্যমশীল । জিগুনি, মধ্যভারতের বুন্লেখও এজেন্সীর অধীনস্থ একটী দেশীয় ক্ষুদ্র রাজ্য। পরিমাণফল ২১২৮ বর্গমাইল। হামীরপুর জেলার উত্তরপশ্চিমে দসান ও বেতবা নদীর সঙ্গমের সন্নিকটে এই রাজ্য অবস্থিত। প্রধান নগর জিগ্‌নি। অক্ষা ২৫° ৪৫ উঃ, দ্রাঘি ৭৯ ২৮ পূঃ । জিগ্‌নির রাজা এই নগরেই বাস করেন। ইনি বুনোলা জাতীয় হিন্দু। বার্ষিক রাজস্ব প্রায় ১৪০০০ টাকা। রাজার দত্তক গ্রহণের অধিকার আছে। বুন্দেলখণ্ড ইংরাজ রাজ্যভুক্ত হইবার সময় এই রাজ্যে ১৪টা গ্রাম ছিল, কিন্তু রাজার স্বেচ্ছাচারিতার জন্ত সেই সমস্তই বাজেয়াপ্ত হয়, পরে ১৮১৯ খৃঃ অব্দে ৬টা গ্রাম রাজাকে পুনরায় দেওয়া হইয়াছে। রাজার ৫১ জন পদাতিক ও ১৯ জন অশ্বারোহী সৈন্ত রাখিবার ক্ষমতা আছে। জিগুf ( ত্রি ) [ বৈ ] জয়শীল, বিজয়ী । জিঘত্ব, পুং) হন পৃযোদরাদিত্বাৎ সাধু । জিঘাংসা, হননেচ্ছ । "যোনঃ সমৃত্য উতবা জিঘত্ব, (খক ২৩০৯) ‘জিঘত্ব জিঘাংস্ক’ ( সায়ণ ) জিঘৎসা (স্ত্রী) অত্ত মিচ্ছা, আসেন ঘসাদেশ ভাবে অ। ভক্ষ ণেচ্ছ, ক্ষুধা । ( হেম” ) ঞ্জিঘংহ (ত্রি) অদ সন ঘসাদেশন্তত উঃ ভোজনেচ্ছ বুভুকু। জিঘাংসক (ত্রি ) প্রতিহিংসক, হননেচ্ছ। জিঘাংসা ( স্ত্রী) ১ হনন করিবার ইচ্ছ। । ২ প্রতিহিংসা। জিঘাংসিন (ত্রি) জিঘাংসাকারী। ञ्जिघांश् (जि) श्रुभिष्कूः श्म-नन्-ङउ डै। इनरनष्कू। ঞ্জিস্তৃক্ষ (স্ত্রী) গ্রহীতুমিচ্ছা, গ্রহসন ভাবে অ। গ্রহণেচ্ছ । জিম্বুকু (ত্রি) গ্রহসন তত উ। গ্রহণেচ্ছু, গ্ৰহণাভিলাষী। জিন্দ্র (ত্রি ) জিব্ৰতি ভ্রা-কর্তরি শ । ( পাঞ্জাখাধেটাশঃ । প৷ ৩১।১৩৭ ) ১ ঘ্ৰাণকৰ্ত্তা। ২ প্রত্যয়বিশেষ, লটু লোট লও, বিধিলিঙের বিভক্তিতে সাধাতুস্থানে জিঘ্ৰ আদেশ হয়। “স্বামী নিশ্বসিতেইপাঙ্কয়তি মনোজিমঃ সপত্নীজন ।” C © (সাহিত্যদ” ৭lse.) 'ᎳᏞᎨ 緣 জিজিয়া क्रिक्रि (ौ) भबिई । (श्रखत्र”) জিঞ্জিনী (স্ত্রী) জিগি গর্তে পিনি। শান্মলী জাতীয় বৃক্ষ, ভেদ, কৃষ্ণশালী, চলিত কথায় কাকশিমুল। ইহার নির্ধ্যাস ' অত্যন্ত সুগন্ধযুক্ত। পর্যায়—ঝিঙ্গিনী, ঝিঙ্গী, মুনিৰ্য্যাসা, প্রমোদিনী । ইহার গুণ—মধুর, উষ্ণ, কষায়, যোনিবিশোধন, কটু, ব্রণ, হৃদ্রোগ, বাত ও অতীসার-নাশক । (ভাবপ্র” ) জিঙ্গী ( স্ত্রী ) ছিগি গতৌ-অচ গেীরা উীপ্ত। মঞ্জিষ্ঠ । [ब्रिक्रिनैौ cनर्थ । ] জিজা (হিন্দী) ভগিনীপণ্ডি । - জিঞ্জিয়া (হিন্দী) ১ ভগিনী। (আরব্য ) [ অধিকার, বশীভূতকরণ বা ক্ষতিপূরণবোধক ধাতু হইতে উৎপন্ন ।] ২ মুসলমানদিগের প্রবর্তিত অধীনস্থ মুসলমান ভিন্ন অন্য ধৰ্ম্মাবলম্বী ব্যক্তিমাত্রের উপর মুগুকর। আইন-ই-আকবরীতে উল্লেখ আছে যে খলিক ওমার মুসলমান ব্যতীত অপর সকল জাতির উপর এক কর স্থাপন করেন। উচ্চ শ্রেণীস্থ ব্যক্তিগণের পক্ষে ইহার হার ৪৮ দহাম, মধ্যবিত্ত্বগণের ২৪ দর্হাম এবং অপেক্ষাকৃত হীনাবস্থদিগের পক্ষে ১২ দছাম ছিল । * কোন সময়ে ভারতবর্ষে ইহা প্রথম প্রবর্তিত হয় ঠিক বলা যায় না। টড় সাহেব অনুমান করেন, সম্রাটু বাবর শাহ তম্ঘা করের পরিবর্তে ভারতবর্ষে ইহা প্রথম স্থাপন করেন। কিন্তু তাহার বহুপূৰ্ব্বে আলাউদ্দীনের সময় হইতে ইহার নামেল্লেখ পাওয়া যায়। জিয়াউদ্দীন বরণী ও ফেরিস্তা-লিখিত পুস্তকে আলাউদ্দীন ও র্তাহার কাজি মুঘিস্উদ্দীনের কথোপকথন এইরূপ বর্ণিত আছে। আলী কহিল, “কোন প্রকার হিন্দু হইতে বহুত ও কর গ্রহণ করা ধৰ্ম্মসঙ্গত ?” নীচমন কাজি উত্তর করিল, “ইয়াম হানিফ কহিয়াছেন যে কাফেরদিগকে মৃত্যুর পরিবর্তে মৃত্যু সদৃশ গুরু জিজিয়া করভারে প্ৰপীড়িত করাই ধৰ্ম্মসঙ্গত । এই জিঞ্জিয়া উহাদের রক্ত শোষণ করিয়া যতদূর সম্ভব কঠোররূপে আদায় করিতে হইবে, কেন না এই দণ্ড যাহাতে মৃত্যু দণ্ডের গ্রায় তুল্য হয়, তাহার বিশেষ চেষ্টা করা উচিত।” যাহা হউক এই সময় বোধ হয় ব্রাহ্মণ ব্যতীত অপর সকলের উপরই এই কর স্থাপিত হয়। ব্রাহ্মণেরা ইহার পরও ফিরোজশাহের সময় পৰ্য্যস্ত এই কর হইতে মুক্ত ছিলেন । শমসি সিরাজ লিখিত পুস্তকে ইহার প্রমাণ পাওয়া যায়। তাহাতে লিখিত আছে, সম্রাট ফিরোজশাহ নিম্নলিখিত কথা বলিয়া ব্রাহ্মণদিগের উপর সর্বপ্রথম জিজিয়া স্থাপন করেন। “উপবীতধারী ব্রাহ্মণগণ এ পর্য্যন্ত জিজিয়া হইতে মুক্ত 、>