পাতা:বিশ্বপরিচয়-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরমাণুলোক গরমিল, অতিরিক্ত হয়ে পড়বে পজিটিভ বৈদ্যুতের চার্জ । মেয়েপুরুষে মিলে যেখানে গৃহস্থালির সামঞ্জস্য সেখানে মেয়ের প্রভাবকে যে-পরিমাণে সরিয়ে দেওয়া যাবে, সে সংসারটা সেই পরিমাণে হয়ে পড়বে পুরুষপ্রধান এও তেমনি । এই চার্জ কথাটা ইলেকটি সিটির প্রসঙ্গে সর্বদাই ব্যবহারে লাগে । সাধারণত যেসব জিনিস নিয়ে নাড়াচাড়া করি তাদের মধ্যে বৈদ্যুতের কোনো ছটফটানি দেখা যায় না, তারা চার্জ করা নয়, অর্থাৎ তুই জাতের যে-পরিমাণ বৈদ্যুতে মিলেমিশে থাকলে শান্তি রক্ষা হয় তা তাদের মধ্যে আছে । কিন্তু কোনে জিনিসে কোনো একটা জাতের বৈদ্যুত যদি সন্ধি না মেনে আপন নির্দিষ্ট পরিমাণ ছাপিয়ে বাড়াবাড়ি করে তাহলে সেই বৈদ্যুতের দ্বারা জিনিসটা চার্জ করা হয়েছে বলা হয় । একটুকরে। রেশম নিয়ে কাচের গায়ে ঘষা গেল । ফল হোলো এই যে ঘষড়ানিতে কাচের থেকে কিছু ইলেকট্রন এল বেরিয়ে, সেটা চালানো হোলো রেশমে । কাচে নেগেটিভ কমতেই পজিটিভ বৈদ্যুতের প্রাধান্ত হোলো, ওদিকে রেশমে নেগেটিভ বৈদ্যুতের প্রভাব বাড়ল, সেটা হোলো নেগেটিভ বৈদ্যুতের দ্বারা চার্জ করা । ইলেকট্রন-খোয়ানো কাচ তার পজিটিভ চার্জের ঝোকে টেনে নিতে চাইল রেশমটাকে, ર (?