পাতা:বিষাদ-সিন্ধু এজিদ্‌-বধ পর্ব.pdf/৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ծ: o এজিদ-বধ পৰ্ব্ব । | নিক্ষেপ করিব। হানিফার অস্ত্র আজ পর্য্যন্ত কাহারও পৃষ্ঠ নির্দেশে নিক্ষেপ হয় নাই। অগ্রে চক্ষে র্যাদা না “লাগাইয় অদৃশ্যভাবে কাহারও শরীরে প্রবেশ করে নাই। তুমি মনেও করিও না যে, তোমার পিছনে থাকিয়৷ পৃষ্ঠে আঘাত করিব । তুমি জঙ্গলে যাও, পাহাড়ে যাও, হানিফ তোমার সঙ্গ ছাড়া নহে ।” * এজিদ, হানিফার রক্তমাখা শরীর প্রতুি একবাব মাত্র দৃষ্টি করিয়াছেন। একবার মাত্র চারি চক্ষু একত্র হইয়াছে। এজিদ হানিফার দিকে ২য় বাব চাহিতে সাহসী হন নাই। কিন্তু সে রক্তজবা সদৃশ আঁখি, রন্ধুমাথা -রবারী, তাহাব চক্ষের উপর অনববত ঘুৰিতেছে । হৃদয়ে জাগিছেছে। মূহুর্তে মূহুর্ভে প্রাণ কঁাপিতেছে। আতঙ্কে দক্ষিণ বামে দেহ দুলিতেছে, কোন সময় সম্মুখে কুৰিতেছে। অশ্বচালনে বিশেষ পরিপক্ক হেতুতেই আসন টলিতেছে না। মোহাম্মদ হানিফ পুনবীয় উচ্চৈঃস্বরে বীব বিক্রমে বলিতে লাগিলেন, এজিদ । বহু পরিশ্রমের পব তোমার দেখ। পাইয়াছি। কখনই চক্ষের অন্তরাল হইতে পারিবে না। তুই জানিস্ হানিফার বল বিক্রম প্রকাশেৰ আজই শেষ দিন। আজই হানিফার ক্রোধাঙ্কের শেষ অভিনয় । * আজই বিষাদের শেষ-বিষাদ-সিন্ধুর শেষ,—তোর জীবনের শেষ। ঐ দেখৃ। সূৰ্য্য অস্ত যায়। এই অস্তের সহিত কত আস্তের ষে যোগ আছে, তাহ কে বলিতে পারে ? আমি দেখিতেছি, তিন অস্ত একত্রে মিশিবে। এক সঙ্গে একযোগে ঘটবে। তোর পরমায়, দামস্কের স্বাধীনতা, এবং উপস্থিত স্বৰ্য্য। চাহিয়া দেখ । যদি জ্ঞানের বিপৰ্য্যয় না ঘটিয়া থাকে, তবে চাহিয়া দেখ, গমনোন্মুখ স্বৰ্য্য কেমন চাকচিক্য দেখাইয়া স্বাভাবিক নিয়ম রক্ষা করিতেছে। নিৰ্ব্বাণোন্মুখ দীপও ঐরূপ তেজে জ্বলিয় উঠে। প্রাণ বিয়োগ সময়ে শয্যাশায়ী রোগীর নাড়ীর বলও ঐরূপ সতেজ হয়। তোর কিঞ্চিৎ অগ্রসরও তাহাই । আর বিলম্ব নাই। যে একটুকু অগ্রসর হইয়াছিল, সে বঁাচিবার জন্য নহে। ভূবিস্তুর জন্য। মৰুভূমিতে ঘুরিয়াছ, বনে প্রবেশ कबिंबाकू, পৰ্ব্বতে উঠিয়াছ, ক্ষু হইতে সরিয়া যাইতে; কত চক্ৰই খেলিয়াছ, সরিতে পার নাই । হানিফার চক্ষে ধুলি দিয়া ক্ষের অন্তরাল হইতে সাধ্য হয় নাই। এখন নিকটে বন জঙ্গল নাই যে, অন্ধকারে গা ঢাকা দি বাচিয়া, যাইবে। তুই