পাতা:বিসর্জন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোবিন্দ । আমার যন্ত্রণ দেখে গলুক হৃদয়! তুমি তো নিষ্ঠুর কভু ছিলে নাকে প্রভু, কে তোমারে করিল পাষাণ ! কে তোমারে আমার সৌভাগ্য হতে লইল কাড়িয়া ! করিল আমারে রাজাহীন রানী ! প্রিয়ে, আমারে বিশ্বাস করো একবার শুধু না বুঝিয়া বোঝে মোর পানে চেয়ে ! অশ্রু দেখে বোঝে, আমারে যে ভালোবাস সেই ভালোবাসা দিয়ে বোঝে— আর রক্তপাত নহে । মুখ ফিরায়ো না দেবী, আর মোরে ছাড়িয়ে না, নিরাশ কোরে না আশা দিয়ে – যাবে যদি মার্জনা করিয়া যাও তবে । [ গুণবতীর প্রস্থান গেলে চলি ! কী কঠিন নিষ্ঠুর সংসার – ওরে, কে আছিস — কেহ নাই ? চলিলাম ! বিদায় হে সিংহাসন ! হে পুণ্য প্রাসাদ, আমার পৈতৃক ক্রোড়, নির্বাসিত পুত্র তোমারে প্রণাম ক’রে লইল বিদায় । Y S \to