পাতা:বিসর্জন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রঘুপতি । জয়সিংহ । রঘুপতি । ফেটে গিয়ে সংগীত নীরব হত তার । মিথ্যা বলে তাই এত হাসি— শ্মশানের কোলে বসে খেলা, বেদনার পাশে শুয়ে গান, হিংসা-ব্যাভ্রিনীর খরনখতলে চলিতেছে প্রতিদিবসের কর্মকাজ ! সত্য হলে এমন কি হত ? হা অপর্ণা, তুমি আমি কিছু সত্য নই, তাই জেনে সুখী হও– বিষন্ন বিস্ময়ে, মুগ্ধ আঁখি তুলে কেন রয়েছিস চেয়ে ! আয় সখী, চিরদিন চলে যাই দুইজনে মিলে সংসারের পর দিয়ে, শূন্য নভস্তলে দুই লঘু মেঘখণ্ড-সম । রঘুপতির প্রবেশ জয়সিংহ ! তোমারে চিনি নে আমি । আমি চলিয়াছি আমার অদৃষ্টভরে ভেসে নিজ পথে, পথের সহস্ৰ লোক যেমন চলেছে । তুমি কি বলিছ মোরে দাড়াইতে ? তুমি চলে যাও— আমি চলে যাই । জয়সিংহ । জয়সিংহ। ওই তো সম্মুখে পথ চলেছে সরল— চলে যাব ভিক্ষাপাত্র হাতে, সঙ্গে লয়ে ভিখারিনী সখী মোর । কে বলিল, এই چوه