পাতা:বিসর্জন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সংসারের রাজপথ দুরূহ জটিল। যেমন করেই যাই, দিবা অবসানে পহুছিব জীবনের অন্তিম পলকে, আচার বিচার তর্ক বিতর্কের জাল কোথা মিশে যাবে। ক্ষুদ্র এই পরিশ্রান্ত নরজন্ম সমপিব ধরণীর কোলে— দু-চারি দিনের এই সমষ্টি আমার, দু-চারিটা ভুল-ভ্রাস্তি ভয় দুঃখ-সুখ, ক্ষীণ-হৃদয়ের আশা, দুর্বলতাবশে ভ্ৰষ্ট ভগ্ন এ জীবনভার ফিরে দিয়ে অনন্তকালের হাতে, গভীর বিশ্রাম | এই তো সংসার । কী কাজ শাস্ত্রের বিধি ! কী কাজ গুরুতে ! প্রভু ! পিতা ! গুরুদেব ! কী বলিতেছিনু ! স্বপ্নে ছিনু এতক্ষণ ! এই সে মন্দির— ওই সেই মহাবট দাড়ায়ে রয়েছে, অটল কঠিন দৃঢ় নিষ্ঠুর সত্যের মতো । কী আদেশ দেব ! । ভুলি নাই কী করিতে হবে । এই দেখো— ছুরি দেখাইয়া তোমার আদেশস্মৃতি অন্তরে বাহিরে হতেছে শাণিত । আরো কী আদেশ আছে প্রভু ! و هامات)