পাতা:বিসর্জন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জয়সিংহ । অপর্ণ । জয়সিংহ । অপর্ণ । জয়সিংহ । অপর্ণা । রঘুপতি । জয়সিংহ । দাও ওই বালিকারে । চলে যা অপর্ণা ! কেন যাব ! এই নারী-অভিমান তোর ? অভিমান কিছু নাই আর । জয়সিংহ, তোমার বেদনা, আমার সকল ব্যথা সব গর্ব চেয়ে বেশি। কিছু মোর নাই অভিমান । তবে আমি যাই । মুখ তোর দেখিব না, যতক্ষন রহিবি হেথায় – চলে যা অপর্ণা ! নিষ্ঠুর ব্রাহ্মণ, ধিক্‌ থাক্ ব্ৰাহ্মণত্বে তব । আমি ক্ষুদ্র নারী অভিশাপ দিয়ে গেনু তোরে, এ বন্ধনে জয়সিংহে পারিবি না বাধিয়া রাখিতে । বৎস, তোলো মুখ, কথা কও একবার ! প্রাণপ্রিয়, প্রাণাধিক, আমার কি প্রাপে অগাধ সমুদ্রসম স্নেহ নাই ! আরো চাস ? আমি আজন্মের বন্ধু, দণ্ডের মায়াপাশ ছিন্ন হয়ে যায় যদি, তাহে এত ক্লেশ । থাকৃ প্ৰভু, বোলো না স্নেহের কথা আর । কর্তব্য রহিল শুধু মনে।

  • @

[ প্রস্থান