পাতা:বিসর্জন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তাহাদের তুলনায় আর-সবে ছায়াপ্রায় আসে যায় নয়নের পরে । অাজ সব হল সারা , বিদায় লয়েছে তারা, নূতন বেঁধেছে ঘরবাড়ি— এখন স্বাধীন বলে বাহিরে এসেছে চলে অন্তরের পিতৃগৃহ ছাড়ি । তাই এতদিন পরে আজি নিজমূর্তি পরে প্রবাসের বিরহবেদন, তোদের কাছেতে যেতে তোদিকে নিকটে পেতে জাগিতেছে একান্ত বাসন | সম্মুখে দাড়াব যবে * কী এনেছ’ বলি সবে যদ্যপি শুধাস হাসিমুখ, খাতাখানি বের ক’রে বলিব "এ পাত ভ’রে আনিয়াছি প্রবাসের সুখ’ । সেই ছবি মনে আসে— টেবিলের চারি পাশে গুটিকত চৌকি টেনে আনি, শুধু জন দুই-তিন উধের জলে কেরোসিন, কেদারায় বসি ঠাকুরানী ! দক্ষিণের দ্বার দিয়ে বায়ু আসে গান নিয়ে, কেঁপে কেঁপে উঠে দীপশিখা ৷ খাতা হাতে সুর করে অবাধে যেতেছি পড়ে, কেহ নাই করিবারে টীকা । ఎ