পাতা:বেতালপঞ্চবিংশতি.pdf/১২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১১৮
১১৮
বেতালপঞ্চবিংশতি

এক দিবস অভয়চন্দ্র রাজার নিকট নিবেদন করিল মহারাজ সংক্ষেপে ধর্ম্মশাস্ত্রের মর্ম্ম প্রকাশ করিতেছি শ্রবণ করুন। যদি কোন ব্যক্তি কাহারও প্রাণহিংসা করে তবে সে জন্মান্তরে ঐ ব্যক্তির প্রানহন্তা হয়। এই উৎকট হিংসাপাপের প্রবলতা প্রযুক্তই মানবজাতি সংসারে আসিয়া জন্মমৃত্যুপরম্পরারূপ দুর্ভেদ্য শৃঙ্খলে বদ্ধ থাকে। এই নিমিত্তই শাস্ত্রকারেরা নিরূপণ করিয়াছেন অহিংসা মনুষ্যের প্রধান ধর্ম্ম। মহারাজ দেখুন হরিহর বিরিঞ্চি প্রভৃতি প্রধান দেবতারাও কেবল কর্ম্মদোষে সংসারে আসিয়া বারংবার অবতার হইতেছেন। অতএব অতি প্রবল জন্তু হস্তী অবধি অতি ক্ষুদ্র কীট পর্য্যন্ত প্রত্যেক জীবের প্রাণরক্ষা করা প্রধান ও পবিত্র ধর্ম্ম।

আর বিবেচনা করিয়া দেখুন মনুষ্যেরা যে পরমাংস দ্বারা আপন মাংস বৃদ্ধি করে ইহা অপেক্ষা গুরুতর অধর্ম্ম আর আছে। এবংবিধ ব্যক্তিরা দেহান্তে নরকগামী হইয়া অশেষপ্রকার যন্ত্রণা ভোগ করে। বিশেষতঃ যে ব্যক্তি স্বদৃষ্টান্ত অনুসারে অন্যের দুঃখ বিবেচনা না করিয়া প্রাণহিংসাপূর্ব্বক মাংসভক্ষণাদি দ্বারা আত্মসুখ সম্পন্ন করে সে রাক্ষস তাহার আয়ু বিদ্যা বল বিত্ত যশ প্রভৃতি হ্রাস প্রাপ্ত হয় এবং সে কাণ খঞ্জ কুব্জ মূক অন্ধ পঙ্গু বধির রূপে পুনঃ পুনঃ