পাতা:বেতালপঞ্চবিংশতি.pdf/১৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১৩৫
১৩৫
বেতালপঞ্চবিংশতি

এবং তুমি নির্ভয় হও আমি কিয়ৎক্ষণমধ্যেই রাজার সমস্ত সৈন্য নষ্ট করিতেছি এই বলিয়া তৎক্ষণাৎ তথায় উপস্থিত হইয়া সৈন্যান্তগত নর করী তুরঙ্গ প্রভৃতি এক এক গ্রাসে ভক্ষণ করিতে আরম্ভ করিল। রাজা রাক্ষসের ভয়ানক আকার ও ক্রিয়া দর্শনে অত্যন্ত কাতর হইয়া পলায়ন করিলেন। ফলতঃ যে পলাইতে পারিল তাহারই প্রাণরক্ষা হইল অবশিষ্ট সমস্ত সৈন্য সেই দুর্দান্ত রাক্ষসের গ্রাসে পতিত হইয়া পঞ্চত্ব প্রাপ্ত হইল।

রাজা একাকী পলায়ন করিতে লাগিলেন। চোর রাক্ষসের সহায়তাতে সাহসী ও স্পর্দ্ধাবান্‌ হইয়া তাঁহার পশ্চাৎ ধাবমান হইল এবং ক্রমে ক্রমে সন্নিহিত হইয়া ভৎসনা করিয়া কহিতে লাগিল অরে কুলাঙ্গার ক্ষত্রিয়কুলে জন্মগ্রহণ করিয়া এরূপ কাপুরুষতা প্রকাশ করিতেছিস্‌। তোরে ধিক্‌। রাজা হইয়া ভঙ্গ দিয়া রণক্ষেত্র হইতে প্রস্থান করিলে ইহ লোকে অকীর্ত্তি ও পর লোকে নরকপাত হয়। রাজা তৎকালে নিতান্ত ব্যাকুল ও সর্ব্বথা উপায়হীন হইয়াও কেবল কুলাভিমান ও খড়্গ চর্ম্ম সহায় করিয়া চোরের সম্মুখীন হইলেন।

ঘোরতর সংগ্রাম হইতে লাগিল। পরিশেষে রাজা রণধীর চোরকে পরাজিত করিয়া বন্ধনপূর্ব্বক রাজধানীতে আনয়ন করিলেন এবং পর দিন প্রাতঃকালে শূলদানের ব্যবস্থা করিয়া