পাতা:বেতালপঞ্চবিংশতি.pdf/১৫১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১৪৫
১৪৫
বেতালপঞ্চবিংশতি

সম্মত হইলাম। ভূদেব অত্যন্ত হৃষ্ট চিত্তে আশীর্বাদ প্রয়োগপূর্ব্বক রাজার হস্তে পুত্ত্রবধূ সমর্পণ করিয়া তৎক্ষণাৎ তথা হইতে প্রস্থান করিলেন। রাজাও অনতিবিলম্বে অন্তঃপুরে প্রবেশ করিয়া কন্যার হস্তে কন্যাবেশধারী মনস্বীর ভার সমর্পণ করিলেন।

রাজকন্যা ব্রাহ্মণবধূকে সমবয়স্কা দেখিয়া আদরপূর্ব্বক তাহার ভার লইলেন এবং আপন সহোদরার ন্যায় যত্ন ও স্নেহ করিতে লাগিলেন। সর্ব্বদা একত্র উপবেশন একত্র ভোজন ও এক শয্যায় শয়নাদি দ্বারা পরস্পরের প্রণয়সঞ্চার হইতে লাগিল। ফলতঃ মনস্বী ক্রমে ক্রমে রাজকন্যার প্রাণ অপেক্ষা প্রিয় হইয়া উঠিলেন। এক দিবস তিনি রাজকন্যার মনের ভাবপরীক্ষার্থে কথাপ্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করিলেন প্রিয়সখি তুমি দিবানিশি কি চিন্তা কর এবং কি নিমিত্ত দিনে দিনে দুর্বল হইতেছ বল।

রাজপুত্ত্রী কহিলেন সখি বসন্তকালে এক দিবস সখীগণ সঙ্গে লইয়া বনবিহারে গিয়াছিলাম। তথায় দৈবযোগে এক পরম সুন্দর যুবা ব্রাহ্মণকুমার আমার নয়নপথের পথিক হইলেন। তদবধি তদাসক্তচিত্তা হইয়া তদ্বিরহে দিনে দিনে এরুপ দুর্বল হইতেছি। দুঃসহ বিরাহানল ক্রমে প্রবল হইয়া নিরন্তর অন্তর দাহ করিতেছে। আমার আহার বিহার শয়ন

১৯