পাতা:বেতালপঞ্চবিংশতি.pdf/১৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১৯০
বেতালপঞ্চবিংশতি

য়াছে। অমনি কমলাকর হা প্রেয়সি বলিয়া দীর্ঘ নিশ্বাস পরিত্যাগপূর্ব্বক ভূতলে পতিত ও পঞ্চত্ব প্রাপ্ত হইলেন।

 অনঙ্গমঞ্জরীর গৃহজন এই সমস্ত বৃত্তান্ত অবগত হইয়া উভয়কে শ্মশানে লইয়া এক চিতায় অগ্নিদান করিল। দৈবযোগে অর্থদত্তের জামাতা মদনদাসও সেই সময়ে শ্বশুরালয়ে উপস্থিত হইল এবং নিজ ভার্য্যা অনঙ্গমঞ্জরীর মৃত্যুবৃত্তান্ত শুনিয়া হাহাকার করিতে করিতে ঊর্দ্ধশ্বাসে শ্মশানে গিয়া জ্বলচ্চিতায় ঝম্পপ্রদানপূর্ব্বক প্রাণত্যাগ করিল।

 ইহা কহিয়া বেতাল জিজ্ঞাসা করিল মহারাজ এই তিনের মধ্যে কোন্‌ ব্যক্তি অধিক ইন্দ্রিয়দাস। রাজা কহিলেন মদনদাস। বেতাল বলিল কেন। রাজা কহিলেন তাহার স্ত্রী পরপুরুষে অনুরাগিণী হইয়া বিরহে প্রাণত্যাগ করিল তাহাতে তাহার অন্তঃকরণে বিরাগ জন্মিল না। প্রত্যুত তাহার বিয়োগে প্রাণধারণ করিতে অসমর্থ হইয়া অগ্নিপ্রবেশ করিল।

 ইহা শুনিয়া বেতাল ইত্যাদি।