পাতা:বেতালপঞ্চবিংশতি.pdf/৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৬১
৬১
বেতালপঞ্চবিংশতি

পর দিন প্রভাত হইবামাত্র গাত্রোত্থান করিয়া রাজা রূপসেন সভাসমারোহণপূর্ব্বক সর্ব্বভাজনসমক্ষে ধর্ম্ম সাক্ষী করিয়া প্রভুপরায়ণ বীরবরকে অর্দ্ধরাজ্যেশ্বর করিলেন। দেশে বিদেশে রাজা ও বীরবর উভয়ের নির্বিবাদ ধন্যবাদ হইল।

এই রূপে কথা সমাপ্ত করিয়া বেতাল জিজ্ঞাসা করিল মহারাজ পূর্ব্বাপর সমস্ত শ্রবণ করিলে। এক্ষণে জিজ্ঞাসা করি কাহার ঔদার্য্য অধিক হইল। বিক্রমাদিত্য উত্তর দিলেন আমার বোধে রাজার ঔদার্য্য অধিক। বেতাল কহিল কেন। রাজা বলিলেন স্বামীর নিমিত্ত সর্ব্বনাশস্বীকার ও প্রাণদান করা সেবকের উচিত কর্ম্ম। অতএব বীরবর রাজকার্য্যার্থে ঈদৃশ সাহস প্রকাশ করিয়া আত্মধর্ম্ম প্রতিপালন করিয়াছে। কিন্তু রাজা যে সেবকের নিমিত্ত রাজ্যাধিকার তৃণতুল্য বোধ করিয়া অনায়াসে প্রাণত্যাগে উদ্যত হইলেন ইহা কেবল দয়ার্দ্রচিত্ততা ও অকৃত্রিম ঔদার্য্যের কর্ম্ম।

ইহা শুনিয়া বেতাল ইত্যাদি।