পাতা:বেতালপঞ্চবিংশতি.pdf/৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৮০
৮০
বেতালপঞ্চবিংশতি

কোথায় যাই প্রাণনাথের নিকটে যাইবার ব্যাঘাত জন্মিল। কত দিন থাকিবেক কত জ্বলাইবেক তাহাও জানি না। এইরূপ চিন্তায় পড়িয়া স্নানভোজনাদি সমস্ত পরিত্যাগপূর্ব্বক বিষণ্ণ মনে সখীর সহিত নানাপ্রকার পরামর্শ করিতে লাগিল।

রজনী উপস্থিত হইলে জয়শ্রীর মাতা জামাতাকে পরম সমাদর ও যত্ন পূর্ব্বক ভোজন করাইয়া দাসী দ্বারা শয়নাগারে গিয়া বিশ্রাম করিতে কহিলেন এবং আপন কন্যাকেও পতিশুশ্রূষার্থে গমন করিতে আদেশ দিলেন। জয়শ্রী প্রথমতঃ অসম্মত হওয়াতে তাহার মাতা নানাবিধ প্রবোধবাক্য ও ভৎসনা দ্বারা নিরুত্তরা করিয়া বলপূর্ব্বক গৃহপ্রবেশ করাইলেন। তখন সে বিবশা হইয়া গৃহপ্রবেশপূর্ব্বক পল্যঙ্কে আরোহণ করিয়া বিযুক্ত মুখে শয়ন করিয়া রহিল। শ্রীদত্ত প্রণয়িনীকে সপ্রেম সম্ভাষণ করিয়া প্রীতিবাক্য প্রয়োগ করিতে লাগিল। সে তাহাতে অত্যন্ত বিরক্তি প্রকাশ করিতে লাগিল। তখন শ্রীদত্ত তাঁহার সন্তোষ জন্মাইবার নিমিত্ত নিজানীত নানাবিধ বহুমূল্য অলঙ্কার ও পট্টশাটী প্রভৃতি কামিনীজনকমনীয় দ্রব্য প্রদান করিলে জয়শ্রী অত্যন্ত কোপপ্রকাশপূর্ব্বক তদ্দত্ত সমস্ত বস্তু দূরে নিক্ষেপ করিল। তখন শ্রীদত্ত নিতান্ত নিরুপায় ভাবিয়া ক্ষান্ত রহিল এবং অত্যন্ত পথশ্রান্ত ছিল তৎক্ষণাৎ নিদ্রাগত হইল।