পাতা:বৈকালী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৪ । তপস্বিনী হে ধরণী* প্রবাসী । শ্রাবণ ১৩৩৩ । ৫৫৬ ২৫ । বিরস দিন, বিরল কাজ* প্রবাসী । শ্রাবণ ১৩৩৩ [ বিবশ দিন, বিরস কাজ। বিজয়ী । মহুয়া : ১৩৩৬ ]১২ ৫৫৬ [৩৪] বনে যদি ফুটল কুসুমঙ্গ প্রবাসী । আশ্বিন ১৩৩৩ । ৮৫৯ [৩৫] এসো আমার ঘরে* প্রবাসী। আশ্বিন ১৩৩৩ । ৮৫৯ [ ? ] আঁধারের লীলা আকাশে আলোক লেখায় লেখায় [ আঁধারের লীলা আলোর রঙ্গ বিরঙ্গে। রবীন্দ্রপাণ্ডুলিপি ২৭ ]১৩ [*७२'] নিশীথে কী কয়ে গেল* প্রবাসী আশ্বিন ১৩৩৩ । ৮৬০ [২৮] আমার প্রাণে গভীর গোপনঞ্জ প্রবাসী । শ্রাবণ ১৩৩৩ । ৫৫৬ ১২ বর্তমান তালিকার ‘[৩৭]' বাদ দিয়া একাদিক্রমে ২৫টি গান কবি উত্তর-বৈকালীর প্রথমাংশের জন্য লিথিয় দেন, এ অনুমান সংগত ; প্রচারিত বৈকালী খণ্ডিত হওয়াতেই ‘২৬ সংখ্য হইতে আমাদের দৃষ্টিগোচর। [৩৭] সংখ্যার গানটি স্থানবদল করিয়া পরে গিয়াছে, এক পৃষ্ঠাতেও আবদ্ধ থাকে নাই (পূর্ব-বৈকালীতে এক-পৃষ্ঠা-পরিমিত)। উত্তর-বৈকালীর স্থচনার ১৪ পাতা বা ২৮ পৃষ্ঠা হারাইয়াছে ; এই পৃষ্ঠার হিসাব ও ঠিক মিলিবে যদি মনে রাখা যায় ‘তোমার বীণা’ (৪) গানে ২ পৃষ্ঠা এবং ‘চপল তব নবীন অঁাখি’ (৫) গানে ৩ পৃষ্ঠাই লাগিবার কথা । ( 'প্রবাসী’-পাণ্ডুলিপিতে শেষোক্ত রচনা ঠাস-ভাবে লেখায় ২ পৃষ্ঠা হইয়াছে । ) পূর্ব ও উত্তর উভয় বৈকালীর যৌথ সম্পদ স্বদেশে লেখা গান ও কবিতা। সে হিসাবে উত্তর-বৈকালীর যে-দুটি গান পূর্ব-বৈকালীতে প্রত্যাশিত অথচ নাই, প্রথম স্থচীপত্রে তাহাদের সংখ্যা— ‘৩৬ ও ৩৮। দ্বিতীয় স্থচীপত্রে উহাদের স্থান শূন্ত । * ৩২টি গান প্রবাসী পত্রে ( আষাঢ়-কাতিক ১৩৩৩ ) বৈকালী’ পর্যায়ে মুদ্রিত। অধিকন্তু ইহার ৩টি গান ‘কষ্টিপাথর’ অংশে শাস্তিনিকেতন পত্র হইতে ( নববর্ষ : বৈশাখ ১৩৩৩ ) পূর্বেই সংকলিত (জ্যৈষ্ঠ ১৩৩৩)। ? ‘৩১ সংখ্যায় চিহ্নিত করিয়া কোনটির নির্দেশ হইতে পারে বলা যায় না। অর্থাৎ, উত্তর-বৈকালীর নষ্ট দুই পাতায় বা চার পৃষ্ঠায় ২৮-৩০ -সংখ্যক তিনটি গান সম্পর্কে অকুমানের ন্যায্যত থাকিলেও, তাহার বাহিরে আর-একটি সম্পর্কে সংশয় থাকিয়াই যায়। দ্রষ্টব্য প্রথম স্থচীপত্রে সংখ্যা ‘২৮ - ? ৩১ এবং ষষ্ঠ পাদটীকার প্রথম অনুচ্ছেদ । ১৩ শ্ৰীমতী লীলা মজুমদারের স্বাক্ষরসংগ্রহের খাতায় ৪ ছত্রে প্রথম রচনা ৫ চৈত্র ১৩৩২ তারিখে। সেইটি গান ও কবিতার বীজরুপ। সেই দিনে অথবা দু-এক Wo o