পাতা:বৈকালী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দিনে তার কাজে স্বর ছিল না যে তাই তো হেলা, বিজয়মন্ত্র বাজায় তন্ত্রী রাতের বেলা । তন্দ্রাবিহীন অন্ধকারের বিপুল গানে মন্দ্রিয় উঠে গৌরববাণী তাহার প্রাণে, তারার আলোয় কে তাহারে ছোয় বক্ষে এসে ॥ [ ૨૧-રી સૉસન ૭૭૬ ] ছন্দোভেদ ইহাতেও লক্ষ্য করিতে হইবে ; অনেক পাঠভেদের কারণ তাহাই । পাণ্ডুলিপিতে, পূর্ব সংকলিত রচনার অব্যবহিত পরে ইহার স্থান। দুটিতেই উত্তরবৈকালী -ধ্ৰুত মূল রচনার স্থান-কাল দেওয়া থাকিলেও, পরিবর্তনের কাল ২৭-২৮ শ্রাবণ ইহাতে সন্দেহ নাই । পরবর্তী সংকলন দ্বিধাভিন্ন ; আলোচ্য পাণ্ডুলিপিতে প্রথমটি লাঞ্ছিত এবং দ্বিতীয়টি “গ্রাহ' পাঠ— কেননা, বর্জনচিহ্ন নাই । や8 পান্থ পাখীর রিক্ত কুলায় : পান্থ পার্থীর রিক্ত কুলায় কান পেতে রয় ভালে পলাতকার পথের পানে পাতার অন্তরালে । বাসায় ফেরা ডানার শব্দ নিঃশেষে সব হল স্তব্ধ, সন্ধ্যাতারার মন্ত্র উঠে দিনের বিদায়কালে । ইত্যাদি দ্বিতীয় স্তবকে পরিবর্তন নাই, কোনো স্তবকেই ‘ধুয়া লেখা হয় নাই, শেষ ছত্র : বেণুশাখার তালে ॥ / পরিবতিত পাঠের রচনা মনে হয় : ২৬-২৭ অগস্ট, ১৯২৮ বা ১০-১১ ভাদ্র ১৩৩৫। সবট। বর্জনচিহ্নিত । > X •