পাতা:বৈকালী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পূর্বপ্রচারিত বৈকালীর উল্লিখিত স্থচীপত্রের পরিপূরক বা অনুপূরক হিসাবে আরও পূর্বের বৈকালীর ( প্রবাসী’-পাণ্ডুলিপি) “ক্রমিক” সংখ্যা -সহ এক সুচীপত্র এখানে দেওয়া আবশ্যক। তাহাতে প্রবাসী মাসিক পত্রে আংশিক প্রকাশের বিষয় যেমন জানা যাইবে তেমনি উত্তর-বৈকালীতে আছে বা ছিল বলিয়া যেগুলি দে খা যায় অথবা অ নু মা ন করা যা য় তাহারও হিসাব মিলিবে বর্তমান তালিকার অবদ্ধ এবং বন্ধনীবদ্ধ সংখ্যার সংকেতে। কেননা, পূর্বসংকলিত স্থচীপত্রের প্রয়োজনীয় সব সংখ্যাই এই স্থচীপত্রে দেখানে হইবে বন্ধনীর মধ্যে। প্রসঙ্গক্রমে বলা আবশ্বক, এই পূর্ব-বৈকালীতে ("প্রবাসী’পাণ্ডুলিপিতে ) রচনার স্থান কাল কোথাও লেখা নাই ; তাহ অন্য স্থত্রে, বিশেষত: আধার-পাণ্ডুলিপি দেখিয়া, পরে জানা যাইবে অথবা অনুমান করাও অসম্ভব হইবে না।– ২। পূর্ব-বৈকালী বা ‘প্রবাসী পাণ্ডুলিপি। রচনা ; মাঘ ১৩৩২-বৈশাখ ১৩৩৩ অংশতঃ প্রবাসী পত্রে মুদ্রণ : বৈশাখ-কার্তিক ১৩৩৩ সংখ্যা সূচনা বিশেষ শিরোনাম সাময়িক পত্রে প্রকাশ। পৃষ্ঠাঙ্ক ১। দোলে প্রেমের দোলন চাপা। দোল-পূর্ণিমায়। সবুজ পত্র। চৈত্র ১৩৩২ । ৫৭০ ২ । ফাগুনের নবীন আনন্দে ৷ তদেব। সবুজ পত্র। চৈত্র ১৩৩২ । ৫৭১ ৩ । অনন্তের বাণী তুমি [ বসন্তের দূতী তুমি । নববধূ। ভারতী। চৈত্র ১৩৩২ ৷৷ ৪৬৭ গান। রবি। ১১ চৈত্র [ ১৩৩২ ] ৩৮০ স্বীকার করিয়াছেন। রবীন্দ্রলেখাঙ্কনে আলোচ্য বৈকালীর আখ্যাপত্রে তারিখ আছে “১লা অগ্রহায়ণ’ বা ১৭ নভেম্বর ১৯২৬ । মনে করা যাইতে পারে, ঐ সময়ের মধ্যে এই বৈকালীর উদ্দেশে ধাতব পত্রে ‘দিনাবসান’ কবিতা অবধি লেখা হয় এবং উহাই সংকলনের শেষ রচনা কল্পনা করায় কবি উহার শেষে স্বাক্ষরও করেন। পরে আরও যে-দুটি গান লিখিয়া দেন তাহার তারিখ যথাক্রমে ২১ ও ২৪ । আরও পরের গান হয়তো ধাতুপত্রে লেখার সময় বা সুযোগ হয় নাই কিন্তু বর্তমান গ্রন্থে সংকলিত। ১১ ‘রবি ত্রিপুরা রাজ্যের ত্রৈমাসিক পত্র, এ ক্ষেত্রে ত্রিপুরাদ ১৩৩৫ । রবি পত্রে ও ভারতী’তে পাঠভেদ অল্পই কিন্তু রচনাকালের নির্দেশ পৃথকৃ— ভারতী : ২১শে ফাল্গুন ১৩৩২ রবি : ১৮ই ফাল্গুন ১৩৩২ রবীন্দ্রনাথ আগরতলায় সম্মানিত রাজ-অতিথি-রূপে ছিলেন ১৩৩২ ফাঙ্কনের ১০-১৪ ԵԵ