পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Wor বৌ-ঠাকুবাণীব কীট গিষাছেবে ভাই । যে দিন বসন্তবাঘের মাথায এক মগ্ন চুল ছিল, সে দিন কি অব এত রাস্ত ৬ টা তোম দেব খোর্থীমোদ কবিতে আসিতাম ? একগাচি চুল পাকিলে তোমাদেব মতে পাচট রূপসী চল তুলিবাব জন্য উনে%ন হইত ও মনের অগ্রাহ দশষ্ট কঁ চা চুল তুলিয। ফেলিত ।” ! বিভ। গম্ভীব স্বরে জিজ্ঞ স ক বিল, “ ত ছে। দাদামহাশয, তোমাব যখন একমাথ৷ চুল ছিল, তখন কি নেম কে এখনকার চেয়ে ভাল দেখিতে ছিল ?” মনে মনে বিভাব সে বিলনে বিষম সন্দত ছিল। দাদা মহাশষেব টীকৃটি, হাব গুম্বসম্পর্কশ্বন্ত অলবের প্রশস্ত হাসিটি, তাহাব পাক৷ আস্রেব ন্যায ভাবটি, সে মনে মনে পলিবর্তন কৰিতে চেষ্টা কৰিল, কোনো মতেই ভাল ঠেকিল না। সে দেখিল, সে টাকটি না দিলে তাহাব দাদামহাশষকে কিছুড়ে মান্য না । আন গোফ জুডিয়া দিলে দাদা মহাশষেব মুখখানি একেবারে থাবাপ দেখিতে হইম যাব । এত খাবাপ হইয়া যায যে, সে তাহ কল্পন। কবিলে ইপসি বাথিতে পাবে না । দাদামহাশযেব আবাল গোফ দাদামহাশযেব আবাব টাক নাই । , * বসন্তবায কহিলেন, “সে বিষযে অনেক মতভেদ আছে । আমার নাতনীবা আমাৰ টক দেখিযা মোহিত হয়, তাহাবা মামাব চুল দুনাই। মামাব দিদিমালা আমব চুল দেখিয়। মোহিত হষ্টতেন, তাঙ্কার আমাব টাক দেখেন নাই । যাহাৰ উভযই দেখিয়াছে, তাহাৰা এখনে৷ একটা মত স্থির কবিতে পালে নাই" বিজ্ঞা কহিল, “কিন্তু তা বলিয। দাদা মহাশষ যতটা টীক পড়িলাt তাহাব অধিক পডিলে অাব ভাল দেখাইবে না ।” . স্বরম কহিল, "দামহাশষ টাকে আলোচনা পরে হক্টৰে , }খন বিজ্ঞার একটা ষাহা হৰ্ষ উপায় কবিয দাও।”