পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুবাণীর হাট ● ● মন্ত্রী দীর্ঘ এক কাগজ বাহিব কবিয বজাব হাতে দিলেন, বাজা পডিতেgাগিলেন। কিয়দুব পডিম্ব একবাব চোখ তুলিয়। জামাতাকে জিজ্ঞাসা কবিলেন, “গত বৎসবেব মতো এবাব ত তোমাদেব ওখানে বন্ত হয় নাই ?” বামচন্দ্র, “আজ্ঞ। না। অশ্বিন মাসে একবাব জল বুদ্ধি—” প্রতাপাদিত্য —“মন্ত্রি, এ চিঠিখানাব অবশ্য একটা নকল বাখ। হঈখছে ৷’’ বলিয। অবাব পডিতে লাগিলেন । পড। শেষ করিয়া জামাতাকে কহিলেন, “যাও, বাপু, অন্তঃপুবে যাও।” বামঞ্জু বাবে বাবে উঠিলেন। তিনি বুৰিতে পাবিয়াছেন ত হব অপেক্ষা প্রতাপাদিতা কিসে বড় । নবম পরিচ্ছেদ বামমোহন মাল যখন অস্তঃপুবে আসিয। বিভাকে প্রণাম কবিয, কহিল, “ম, তোমায় একবাব দেখিতে এলাম” তখন বিভাব মনে বড আহলাদ হইল। কামমোহনকে সে বড় ভালবাসিত। কুটুম্বিতাব নানাবিধ কাৰ্য্যভাব বহন কবিয বামমোহন প্রায মাঝে মাঝে চন্দ্রদ্বীপ হইতে যশোহবে অসিত। কোনে আবশ্বক না থাকিলেও অবসব পাইলে সে এক একবাৰু বিভাকে দেখিতে আসিত। বামমোহনকে বিভ। কিছুমাত্র লজ্জ কবিত না । বৃদ্ধ, বলিষ্ঠ, দীর্ঘ, বামমোহন যখন $” बर्निं। আম্মুি"াডাইত তথন জুহাব মধ্যে এমন একটা বিশুদ্ধ সবল, “অঙ্কুবশ্বন্ত মেহেৰ ভাব থাকিতু, যে বিভা তাহাৰ । আপনাকে গনতান্ত বালিক মনে কবিতা বিভা তাহাকে কহিল, “মোহন, তুই এতদিন আসি নাই কেন ?” রামমোহন কহিল, “তা ম’, ‘কুপুত্র যদি বা হয়, কুমাত কখন নয়', তুমি কোন ঘাম মনে কবিলে ? আমি মনে মনে কছিলাম,"ম না