পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুরাণীর হাট Գ:Ջ করিব, তুমি আমার কথা রাপে। এই লও আমার কাছে যাহা আছে, এই দিলাম।” ভাগবত তৎক্ষণাং হাত বাডাইল, ও সেই টাকাগুলি মুহূৰ্ত্তের মধ্যে . তাহার টাকে আশ্ৰয লাভ করিল। বসন্তরায় কিয়ং পবিমাণে নিশ্চিন্ত হইয়। ফিরিয়া গেলেন । o প্রতাপাদিত্যের নিকট প্রহবীদ্বযেধ ডাক পড়িয়ছে । মন্ত্রী তাহাদিগকে সঙ্গে কবিয়া লইয়৷ গেলেন। প্রতাপাদিত্য তখন র্তাহার উচ্ছ্বসিত ক্রোধ দমন করিয়া স্থির গম্ভীব ভাবে বসিয়া আছেন । প্রত্যেক কথা ধীরে ধীরে স্পষ্টরূপে উচ্চারণ করিঘ কহিলেন, “কাল রাত্রে অন্তপুরের দ্বার খোলা হইল কী করিয়া ?” সীতারামের প্রাণ র্কাপিয়| উঠিল, সে ঘোড়হন্তে কহিল, "দোহাই মহারাজ, অামাব কোনো দোষ নাই ।” মহারাজ ভ্ৰকুঞ্চিত কবিয়া কহিলেন, “সে কথা তোকে কে জিজ্ঞাসা করিতেছে ?” সীতারাম তাড়াতাড়ি কহিল, "অজ্ঞ না, বলি মহারাজ ; যুবরাজ —যুবরাজ আমাকে বলপূৰ্ব্বক বাধিয়। অন্তঃপুর হইতে বাহির হইয়াছিলেন।” যুবরাজেব নাম তাহার মুখ দিয়া কেমন হঠাৎ বাহির হইয়৷ গেল। ঐ নামটা কোনে মতে কবিবে ন বলিয়া সে সৰ্ব্বাপেক্ষ অধিক ভাবিয়ছিল, এই নিমিত্ত গোলমালে ঐ নামটাই সৰ্ব্বাগ্রে তাহার মুখাগে উপস্থিত হইল। একবাব যখন বাহির হইল তখন আর রক্ষ নাই । এমন সময় বসন্তরায় শুনিলেন, প্রহরীদের ডাক পড়িয়াছে । তিনি ব্যস্তসমস্ত হইয়া প্রতাপাদিতোর কক্ষে গিয় উপস্থিত হইলেন। তখন সীতারাম কহিতেছে “যুবরাজকে আমি নিষেধ করিলাম তিনি শুনিলেন त्रीं ।”