পাতা:ব্যক্তিত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমূর্ত। আর্টের সত্য ভাষায় প্রকাশ করার মতে কিছুই এর নেই। কারণ আইন, দক্ষতা ও শোষণ মহৎ প্রস্তরগাথায় নিজেদের জয়গীতি । রচনা করতে পারে না। লর্ড লীটন তুর্ভাগ্যক্রমে ভারতবর্ষের একজন রাজপ্রতিনিধির পক্ষে যতটা প্রয়োজন তদপেক্ষা বেশি পরিমাণ কল্পনাশক্তিতে ভূষিত ছিলেন। তিনি মুঘলদের একটি সরকারী সমারোহ-অনুষ্ঠানের নকল করতে চেষ্টা করেছিলেন– তা হ’ল দরবার-অনুষ্ঠান । কিন্তু সরকারী সমারোহ-অনুষ্ঠানগুলি শিল্পকর্ম । সেগুলি স্বভাবতই প্রজাবৰ্গ ও তাদের রাজার মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্কের ভিত্তিতে গড়ে ওঠে । যখন সেগুলি কেবল নকল মাত্র তখন তারা জাল দ্রব্যের সব লক্ষণ প্রকাশ করে । ব্যবহারোপযোগিতা ও হৃদয়াবেগ কী ভাবে তাদের প্রকাশের ভিন্ন পথ খোজে, তা পুরুষের পোশাকের সঙ্গে রমণীর পোশাকের তুলনা করলেই দেখা যাবে। নিয়ম অনুযায়ী পুরুষের পোশাক সকল অপ্রয়োজনীয়কে ও নিতান্ত অলঙ্করণকে বর্জন করে । কিন্তু রমণীমাত্রেই স্বভাবতই কেবল পোশাকে নয়, তার আচার-ব্যবহারেও অলঙ্করণ ও সজ্জা পছন্দ করে । রমণীকে চিত্রাপিত ও গীতসমৃদ্ধ হতে হয় সে নিজে যা তা প্রকাশের জন্য ; কারণ, জগতে রমণীরূপে তার যে ভূমিকা, তাতে রমণী পুরুষ অপেক্ষ আরও বাস্তব ও ব্যক্তিগত । তাকে তার নিতান্ত উপযোগিতার দ্বারা বিচার করলে চলবে না, বরং তার আনন্দময়তার দ্বারা বিচার করতে হবে । সেই কারণে রমণী তার বৃত্তিকে নয়, তার ব্যক্তিত্বকে প্রকাশ করার জন্য অশেষ যত্ন নিয়ে থাকে । \_আর্টেরও মুখ্য উদ্দেশ্য ব্যক্তিত্বের প্রকাশ, এবং যা বিমূর্ত ও বিশ্লেষণমুখী তাকে সে প্রকাশ করে না, এবং সেজন্তে আর্ট তার প্রয়োজনের খাতিরে ছবি ও গানের ভাষা ব্যবহার করে এর