পাতা:ব্যক্তিত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


এমন-কি চেক-বই পর্যন্ত না । আদিম মানুষ গভীর মানসিক অজ্ঞতায় বিশ্বাস করত যে ব্যক্তিগত খেয়ালের বশে প্রতিটি আপেল মাটিতে পড়ে। কিন্তু তুলনায় আদিম মানুষের অজ্ঞতা কিছুই না বলে মনে হয় যখন জানি এমন মানুষও আছে যে এমন মাধ্যাকর্ষণ সূত্রের ধ্যানরত যেখানে আপেল বা কোনো কিছুই পড়ে না। তাই ঈশোপনিষৎ একটি শ্লোকে বলেছেন— সস্তৃতিং চ বিনাশং চ যস্তদ্বেদোভয়ং সহ। বিনাশেন মৃত্যুং তীত্বৰ্ণ সস্তৃত্যামৃতমশ্বতে। গান ও গান গাওয়া যেমন এক, সীমা ও অসীম তেমনি এক । গান গাওয়া ব্যাপারটি অসম্পূর্ণ; সম্পূর্ণ হল গান। গান গাওয়া তার ক্রমান্বয় মৃত্যুর মধ্য দিয়ে গানকে পথ ছেড়ে দেয়। পরম অসীম এমন এক সংগীত যা সকল স্পষ্ট সুর-ছাড়া, আর সে কারণেই অর্থহীন । পরম অনন্ত হচ্ছে কালহীনতা, আর তার কোনো অর্থই নেই— এ কেবল একটি শব্দ । যেখানে সকল সময় সংহত হয়ে আছে সেখানেই আনন্তের সত্যতা। সেই কারণে উপনিষৎ বলেছেন— বিদ্যাং চাবিদ্যাং চ যস্তদ্বেদোভয়ং সহ । অবিদ্যয়া মৃত্যুঃ তীত্বৰ্ণ বিদ্যয়াহমৃতমশ্বতে। অন্ধং তমঃ প্রবিশন্তি যেহসন্তুতিমুপাসতে । ততো ভূয় ইব তে তমো য উ সস্তৃতাং রতাঃ। আমরা দেখেছি যে বস্তুসমূহেব আকৃতি ও তাদের পরিবর্তনসমূহেব একেবারেই কোনো পরম বাস্তবতা নেই। আমাদেব ব্যক্তিত্বে তাদের সত্যের অধিষ্ঠান, আর কেবল সেখানেই তা বাস্তব. বিমূর্ত নয়। আমরা দেখেছি, যদি আমাদের মনের চলাফেরা, 8bア