পাতা:ব্যঙ্গকৌতুক - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৮১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বশী করণ 업이 বাড়িওয়ালা । আমাদের কী বা বুদ্ধি, তাই বুঝবো ! সবই তো জানতুম, তবু তো বুঝিনি : মাতাজি। তাই, ঐ দুইয়ের পিঠে দুই ব’লেই আমার মন্ত্র কিছুই সফল হ’চ্চে না ! স্ত্রী । ( আত্মগত ) বেঁচে থাকু আমার দুয়ের পিঠে দুই ! মন্ত্র সফল হ’য়ে কাজ নেই ! মাতাজি । উনপঞ্চাশের মতো এমন সংখ্য। আর হয় না ! বাড়িওয়াল । ( জনাস্তিকে ) শুনলে তো গিন্নি ! স্ত্রী । ( জনাস্তিকে ) শুনে হবে কী ! তোমার উনপঞ্চাশ যে অনেককাল হ’লে পেরিয়েচে । বাড়িওয়ালা । কিন্তু মাতাজিকে কি কালই সে বাড়িতে যেতে হবে ? মাতাজি কাল উনত্রিশ তারিখে মঙ্গলবার প’ড়েচে, এমন দিন আর পাওয়া যাবে না ! বাড়িওয়ালা । ঠিক কথা ! কাল উনত্রিশেও বটে, আবার মঙ্গলবারও বটে ! কী আশ্চৰ্য্য ! তা হ’লে তো কালই যেতে হ’চ্চে বটে ! তা-ই ঠিক ক’রে দেবো ! ( মাতাজির প্রস্থান ) এখন আমার সেই নতুন ভাড়াটেদের ওঠাই কী ব’লে । বিদেশ থেকে এসেচে, হঠাৎ তা’রা এখন বাড়িই বা পায় কোথায় ? স্ত্রী । তাদের আপাতত এই বাড়িতে এনে রাখো না ! আমরা না হয় কিছুদিন ঝামাপুকুরে জামাইবাড়ি গিয়েই থাকবো ! তোমার ঐ মন্তরজান মেয়েমানুষকে এখানে রেখে কাজ নেই ! বিদায় ক’রে দাও ! ছেলেপিলের ঘর, কার কখন অপরাধ হয়, বলা যায় কি ! বাড়িওয়ালা । সেই ভালো । তাদের কোনোরকম ক’রে ভুলিয়ে ভালিয়ে আজকের মধ্যেই উনপঞ্চাশ নম্বর থেকে বাইশ নম্বরে এনে