পাতা:ব্যঙ্গকৌতুক - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৮৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বশীকরণ bلانك س শ্যাম । বাবা, তোমার কথা শুনে আমার কান জুড়ালো—আমি নিশ্চয় অনেক তপস্যা ক’রেছিলেম, তাই— আশু । মাতাজি, আপনি তপস্যার দ্বারা যে নিরুপমা-সম্পদ লাভ ক’রেচেন, আমাকে তা’র— স্যাম । তোমাকে দেবার জন্তেই তো প্রস্তুত হ’য়ে এসেচি। অনেক সন্ধান ক’রে যোগ্যপাত্র পেয়েচি—এখন দিতে পারলেই তো নিশ্চিন্ত হই। : আশু । ( শুামার পদধূলি লইয়া) মাতাজি, আমাকে কৃতাৰ্থ ক’রলেন—এতে সহজেই যে ফললাভ করবো, এ আমি স্বপ্নেও জানতুম না। শু্যাম । বলে কী বাবা, তোমার আগ্রহ যতো, আমার আগ্রহ তা’র চেয়ে বেশি ! আশু । তাহ’লে যে কামনা ক’রে এসেছিলেম, আজ কি তা’র কিছু পরিচয়— শু্যাম । পরিচয় হবে বৈ কি বাবা, আমার তা’তে কোনো আপত্তি নেই— আশু । আপত্তি নেই মাতাজি ? শুনে বড়ো আরাম পেলেম— শুlাম । দেখাশুনা সমস্তই হবে বাবা, আগে কিছু খেয়ে নাও ! আশু । আবার খাওয়া ! আপনি আমাকে যথার্থ জননীর মতোই স্নেহ দেখালেন । শুাম । তুমিও আমাকে মার মতোই দেখবে, এই আমার প্রাণের ইচ্ছা—আমার তো ছেলে নেই, তুমিই আমার ছেলের মতো থাকবে। আহাৰ্য্য লইয়া ভূত্যের প্রবেশ আশু । ক’রেচেন কী ? এতে আয়োজন ? শু্যাম । আয়োজন আর কী ক’বৃলেম ? আজই * আসতে পারবে কি না, মনে একটু সন্দেহ ছিল, তাই—