পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/১৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


$ts ব্যবসায়ে বাঙালী থাকেন, তাহারা যদি দেশে শিল্প আবিষ্কারে বৈজ্ঞানিক গবেষণায় অর্থ দান করেন, তাহা হইলে আমাদের বাংলায় যেসমস্ত বৈজ্ঞানিক আছেন, তাহারা গবেষণা করিয়া অনেক নূতন শিল্প আবিষ্কারের পথ প্রদর্শন করিয়া দিতে পারেন। বাংলায় যে সমস্ত মনীষীরা বেকার-সমস্যা সমাধানে মনোযোগী, তাহারা লিমিটেড, কোম্পানী-গঠনে ঐ সমস্ত শিল্প প্রস্তুত করিয়া প্রতিযোগিতায় বিদেশী শিল্পকে দেশ হইতে হটাইয়া দিতে পারেন। ইহাতে ক্রমে ক্রমে বাংলায় বেকার-সমস্ত সমাধানের পথ প্রশস্ত হইবে । দেশের স্কুল-কলেজে অর্থদান করিলে, কেরাণী গড়-শিক্ষার সাহায্য করা হয় মাত্র। কিন্তু তাহাতে জীবিকা-নিৰ্ব্বাহের কোন উপায় হয় না। দেশের বেকার-সমস্যা সমাধান করিতে হইলে, বহু-সংখ্যক শিল্প-প্রতিষ্ঠান স্থাপন করিতে হইবে, তবে ঐ সমস্ত প্রতিষ্ঠানের প্রস্তুত শিল্প ষাহাতে বিদেশী শিল্পের সহিত প্রতিযোগিতায় দাড়াইতে সক্ষম হয়, সেরূপ ব্যবস্থা করিয়া শিল্প-প্রতিষ্ঠান স্থাপন করা উচিত। নচেৎ জন-সাধারণের অর্থের অপব্যবহার হইবে মাত্র। এই জাতীয় প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ব্যবসা-বুদ্ধি-সম্পন্ন, কৰ্ম্মঠ ও বিশ্বাসী লোক হওয়া দরকার । - দণতচত্র্য-চিকিৎসনালন্ত্ৰে দণন আমার উল্লিখিত যুক্তির বিরুদ্ধে অনেকে হয়তো এই প্রশ্ন তুলিতে "পারেন যে, দাতব্য চিকিৎসালয়ের জন্য যদি কেহ অর্থ দান করেন, তাহ অনর্থক নহে। গরীব দেশের পক্ষে দাতব্য-চিকিৎসালয় স্থাপন যে যথেষ্ট প্রয়োজন, ইহা অবশ্য অস্বীকার করা চলে না । কিন্তু মফস্বলে ডিট্রক্ট বোর্ডের অধীনে পরিচালিত দাতব্য চিকিৎসালয়ে জন-সাধারণের যে বিশেষ উপকার সাধিত হয়, তাহা মনে করা ভুল।