পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/১৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মোটর-যানে দেশ-শোষণ মোটর-গাড়ী আজকাল সভ্যভার অঙ্গ হইয়া দাড়াইয়াছে। “মোটর নাই, বড় লোক”—একথা আজিকার দিনে অর্থহীন । ইংরেজীতে একটা wool ofto–"Hamlet without Hamlet”—custo-ory दप्लলোকও লোকের চোখে আজ তাই । অভিজাত-পরিবারের আলোকপ্রাপ্ত কুমারীরা বাগদত্ত হওয়ার প্রাক্কালে নাকি এই খবরটাই ভাল করিয়া জানিয়া লন—ভাবী স্বামীর গাড়ীখানি কোন কোম্পানীর এবং কত হাজার টাকা মূল্যের। যদি শুনেন, ‘রোলস রয়েল” (Rolls Royce), তবে আর কোন প্রশ্নই উঠে না–হৃদয়ের ভাষা লঙ্গারুণ চাপাহাসিতে চোখে মুখে ফুটিয়া উঠে। মোট কথা মোটর-গাড়ীর দরে স্বামীর দর যাচাই হয় ৷ হইবারই কথা । এইবার ব্যবসায়ীর সাদা-চোখে ইহার ভাল মন্দ দিকটা যাচাই করা যাক । শোষণের পরিমানে ভারতবাসীর বিলাসিত চরিতার্থের জন্য, যে দিন হইতে ভারতে মোটর-গাড়ীর আমদানী স্বরু হইয়াছে, সেই দিন হইতে ভারতের অর্থ বন্যার স্রোতের মত বিদেশে চলিয়া যাইতে আরম্ভ করিয়াছে। ইহার একটি টাকাও আর ভারতে ফিরিয়া আসে না। একমাত্র কলিকাতা সহরে প্রায় ৫০ হাজার প্রাইভেটু মোটর-গাড়ীর নম্বর দেখা যায়। গড়ে এক একখানি গাড়ীর মূল্য মেরামতী ব্যয় সমেত যদি কমপক্ষে চারিহাজার টাকা ধরা যায়, তবে ৫০ হাজার ‘প্রাইভেট্ গাড়ীতে শুধু কলিকাতা হইতেই ২০ কোটা টাকা কয়েক ৰৎসরের মধ্যে আমরা বিদেশে মণি-অর্ডার করিয়াছি । ইহা ছাড়া >}