পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/২০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্থ্যবসায়ে বাঙালী పెఫి $ चाब्रछ কবির পূৰ্ব্বে আমি তাহাকে বলিয়াছিলাম, “এক বৎসরের মধ্যে নোমার মূলধন নষ্ট হইবে।” কিন্তু এক্ষণে যে নীতিতে কারবার চলিতেছে , তাহাতে বোধ হইতেছে, অত সময়ও লাগিবে না, মূলধন হারাইয়া শীঘ্রই দোকান ওটাইতে হইবে। • এই সমস্ত কারণেই অভিজ্ঞতা সঞ্চয় না করিয়া কোন ব্যবসা করা উচিত নহে । খুচরা মশলার দোকান-ইহাতে লাভ আছে বটে, কিন্তু এই কারবারে অসংখ্য প্রকারের মাল রাখিতে হয়। রীতিমত ওস্তাদ লোক না হইলে এ কারবার চলে না, কারণ এক পয়সার জিনিষের মধ্যে তিন রকমের মশলা দিয়াও আবার একটা পেয়াজ ফাও দিতে হয় । शज्र ঘুরাইয়া কাগজের মোড়ক করাই ইহার কায়দা। খুচরা মশলার কারবারে কৰ্ম্মচারী রাখিয়া স্ববিধা হয় না । যাহারা মশলার দোকানে হাতেকলমে শিক্ষালাভ করিয়া নিজে দোকানদারী করিতে পারিবে, তাহাদেরই খুচরা মশলার কাজ করা উচিত। অন্যের পক্ষে এ কারবার করাতে ঝুকি আছে । ষ্টেশন্সারী মণিহারী দোকান—এই কারবারেও অসংখ্য রকমের মাল রাখিতে হয়। প্রত্যেক জিনিসের খরিদ ও বিক্রয় দর সমস্ত মুখস্ত থাকা চাই। ইহার সব জিনিসে সমান লাভ হয় না। দুই টাকার জিনিসে হয়ত ২১০ লাভ হয়, আবার চারি আনার জিনিষেও হয়তো /• আনা লাভ হইয়া থাকে। খরিদ-বিক্রয়ে খুব অভিজ্ঞতা না থাকিলে, এই কাজ কোন নূতন লোকের দ্বারা চলিতে পারে না । ষ্টেসনারী দোকানে ষ্টিক রাখা চলে না। কোন জিনিস চুরি হইলে ধরিবার উপায় নাই। মালিক নিজে কারবার না করিতে পারিলে, কর্মচারী রাখিয়া এই কাজে সুবিধা হয় বলিয়া বিশ্বাস করি না। তবে مسقفا جس پرہی۔

  • এই পুত্ৰৰ মূত্রণকালে খবর পাইলাম, দোকান বন্ধ হইয়াছে। 醉