পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/২১০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ল্যৰসায়ে বাঙালী $stూ rবিপদ, পাইতে পারে, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা একেবারে মারা যায়। কিন্তু যদি বিবিধ প্রকারের শেয়ার খরিদ থাকে, তাহা হইলে এই জাতীয় আকস্মিক বিপদ হইতে রক্ষা হইবার উপায় আছে। কারণ সকল প্রকার শেয়ারের দর একই সময়ে হ্রাস হয় না, কোন কোন শেয়ারের भूले ER HRİR HNİR ( non-fluctuating ) {f(RF, কিংবা সামান্য কিছু হ্রাস হইতেও পারে। হঠাং বিপদ হইলে ঐ সমস্ত শেয়ার সামান্য কিছু লোকসানেও বিক্রয় করিয়া দিলে ব্যাঙ্কের ਝਾਂਸ-ਾਂ পূরণ করিয়া দেওয়া চলে। কারণ ব্যাঙ্ক শেয়ারবন্ধক, রাখিয়া টাকা ধার দেওয়ার সময় মূলা-হ্রাসের আশঙ্কায় শতকরা ২৫/৩০২ টাকা হাতে (margin) রাখিয়া ধার দেয় । পাচ হাজার টাকা যাহার মূলধন, সাত আট হাজার টাকার বেশী শেয়ার এককালীন তাহার খরিদ করিতে নাই। তাহা হইলে যদি শেয়ারের মূল্য শতকরা ২০২ টাকা হারেও হাস হয়,তাহাতেও ক্ষতিপূরণ করিতে আটকায় না এবং যদি একটু দীর্ঘকালও উক্ত শেয়ার ধরিয়া রাখিতে হয়, তাহা হইলে যাহা ডিভিডেও পাওয়া যায়, তদার ব্যাঙ্কের স্বদ পোষাইয়া যায়। যাহারা অল্প মূলধনে শেয়ার মার্কেটে ব্যবসায় আরম্ভ করিবে, তাহাদের পক্ষে অধিক মূল্যের অল্প শেয়ার খরিদ না করিয়া কম মূল্যের অথচ ডিভিডেও, বেশী —এই প্রকার শেয়ার খরিদ করা উচিত। কারণ যে সমস্ত কোম্পানীর শেয়ারের মূল্য অধিক তাহার দর যেমন হঠাৎ বৃদ্ধি পায়, তেমনি আবার হঠাৎ হ্রাসও হয় । অনেক সময় শেয়ার মার্কেটে বড় বড় ধনী ব্যবসায়ীরা চতুরতার সহিত বাজার-দর হ্রাস-বৃদ্ধি করিয়া থাকে। এই সমস্ত ব্যবসায়ীদের যদি কোন শেয়ার কম মূল্যে খরিদের প্রয়োজন হয়, তবে তাহারা নিজেদের কতকগুলি শেয়ার কিছু লোকসান