পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্যবসায়ে বাঙালীর পথ নির্দেশ ব্যবসায়-ক্ষেত্রে অ-বাঙালী ব্যবসায়ীদের আধিপত্যে সেদিকে বাঙালীর পথ প্রায় রুদ্ধ হইয়া আসিয়াছে। বাঙালী বৰ্ত্তমানে কোন পথে ব্যবসায়ে অগ্রসর হইবে, সৰ্ব্বসাধারণের মনে এই প্রশ্নই আজ জাগিয়াছে। অ-বাঙালীদের ব্যবসায় আজ কেবল কলিকাতা সহরেই সীমাবদ্ধ নাই, বাংলার সর্বত্র, এমন কি, মুদুর পল্লী অঞ্চলে পৰ্য্যস্ত অ-বাঙালীর দল নানাপ্রকার চালানী মালের ব্যবসা চালাইতেছে। বাঙালীরা যদি সন্ধান লইয়। ঐ সমস্ত ব্যবসায়ে লিপ্ত হইয়া অ-বাঙালীদের সহিত কিছুদিন প্রতিযোগিতা চালাইতে পারে, তবে ঐ সমস্ত অ-বাঙালীর দল ক্রমশঃ পথ ছাড়িয়া দিতে বাধ্য হইবে। হাজার হাজার মাইল দূর হইতে বাংলায় আসিয়া যদি তাহারা ব্যবসায় করিয়া প্রচুর অর্থ উপার্জন করিতে পারে, বাঙালীর ছেলেরা নিজেদের দেশে বসিয়া তাহা পরিবে না কেন ? এজন্য চাই কয়েকটি গুণ—চিস্তাশীলতা, অনুসন্ধিৎসা, পরিশ্রমশীলতা ও কষ্টসহিষ্ণুতা। নতুবা অ-বাঙালী ব্যবসায়ীর প্রতিযোগিতার মধ্যে স্থান করিয়া লওয়া কখনই সহজসাধ্য হইবে না। যে-কোন ব্যবসায় করিতে হইলে পূৰ্ব্বে ঐ ব্যবসায় সংক্রাপ্ত আবশ্যকীয় সমস্ত সংবাদ সংগ্ৰহ করিতে হইবে । যিনি যত বেশী সংবাদ রাখিয়া কাজ আরম্ভ করিতে পারিবেন, ব্যবসায়ে লিপ্ত হইয়া তিনি তত বেশী সাফল্য লাভ করিতে পারিবেন। হিসাব-পত্র কোন ব্যবসায় আরম্ভ করিবার পূৰ্ব্বে, কি ভাবে ব্যবসার হিসাব- o পত্র রাখিতে হয়, মোটামুটি সে সম্বন্ধে খানিকট অভিজ্ঞতা সঞ্চয়”