পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


दादनांरङ्ग कांछांजौ {{* বিদেশী ব্যাঙ্কেল্প সুবিধা বিদেশী ব্যাঙ্কের চলতি আমানত হিসাবে দৈনিক যদি পঞ্চাশজন জামানতকারী গড়ে পঞ্চাশ হাজার টাকা জমা দেয়, আর তাহাজের মধ্যে যদি পচিশজন আমানতকারী চেকের দ্বারা দৈনিক পচিশ হাজার টাকা উঠাইয়া লয়, তাহা হইলেও চলতি আমানতকারীদিগের দৈনিক পচিশ হাজার টাকা ব্যাঙ্কে মজুত থাকে। উক্ত টাকায় বার্ষিক শতকরা ॥৯ হিসাবে আমানতকারীদিগকে স্বদ দিয়া ব্যাঙ্ক যদি বাধিক ৬ টাকা হারে স্বদে খাটাইয়া লইতে পারে, তাহা হইলে ব্যাঙ্কের শতকরা বার্ষিক ৫০ টাকা হিসাবে লাভ থাকে। বাঙালী-পরিচালিত ব্যাঙ্কগুলি যদি চলতি হিসাবে ॥• আনার স্থলে শতকরা বার্ষিক ১২ টাকা স্বদ দিয়াও যথেষ্ট পরিমাণ টাকা আমানত পাইত, তাহা হইলেও ঐ পরিমাণ স্বদে টাকা খাটাইয়া না হয় ৫০ টাকার স্থলে তাহারা ৫২ টাকা লাভ করিত। বাঙালী-পরিচালিত ব্যাঙ্কগুলি এই প্রকার অসুবিধার সহিত সংগ্রাম করিয়া কোন উন্নতি প্রদর্শন করিতে সক্ষম হইতেছে না। টাকার অভাবে বাঙালীর ব্যবসা-বাণিজ্যেও এই সকল ব্যাঙ্ক কোনপ্রকার সাহায্য করিতে পারিতেছে না । লাভের টাকা হইতে ব্যাঙ্কের রিজার্ভ ফণ্ডে যথেষ্ট পরিমাণ মজুত তহবিল না থাকিলে ব্যাঙ্ক শক্তিশালী হয় না। উক্ত রিজার্ড ফাও যদি যথেষ্ট পরিমাণে টাকা মজুত থাকে, তাহা হইলে ব্যাঙ্ক নিৰ্ভয়ে দেশের শিল্প-বাণিজ্যে সাহায্য করিতে পারে। এমন কি, যদি কোন সময় কিছু টাকা আদায়ও না হয়, তাহাতেও ক্ষতির কারণ ঘটে না । বাঙালীপরিচালিত ব্যাঙ্কের তহবিল প্রায় সমস্তই অংশীদারগণের । কাজেই উক্ত তহবিল নিঃশঙ্কচিত্তে খাটাইতে সাহস করা চলে না । বেঙ্গল স্কাশনাল ব্যাঙ্ক ফেল হওয়ার পর হইতে ব্যান্ধ-ব্যবসায়ে বাঙালীর একটি দ্বর্ণাম হইয়াছে। জাতির সে দুর্ণাম মুছিবার জন্য বাঙালী-পরিচালিত