পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্যবসায়ে বাঙালী Éą ཕོ༽་རྒྱབ་ বসিয়াছে, এবং ঐ কারণেই কুম্ভকারের ব্যবসার অনেকটা ক্ষতি হইয়াছে। এইরূপ জাতীয় ব্যবসা ধ্বংসের ফলে, সকল-সম্প্রদায়ের লোকই নিরুপায় হইরা পড়িয়াছে, তাই আজ বেকার-সমস্তা এরূপ ভীষণ আকার ধারণ করিয়াছে। বর্তমানে জাতীয় বৃত্তি বলিয়া আর কিছু লাই। উচ্চবর্ণের হিন্দুরাও ধোপার দোকান, জুতার দোকান খুলিয়া বসিতেছেন। বর্তমানে সকল শ্রেণীর মধ্যেই শিক্ষার আলোক ছড়াইয়া পড়িয়াছে। স্বতরাং অন্যান্ত সম্প্রদায়ের যে-সমস্ত লোক শিক্ষিত হইয়া উঠিতেছে, নিজেদের জাতীয় বৃত্তি পরিত্যাগ করিয়া তাহারাও চাকুরীর বাজারে ভীড় জমাইয়া তুলিতেছে। তথাকথিত সভ্যভ। যতদিন মানুষ নিরক্ষর, অশিক্ষিত ও অসভ্য ছিল, ততদিন অভাবঅভিযোগ এত বেশী ছিল না । কিন্তু বর্তমানে ইংরাজী শিক্ষার প্রভাবে মানুষ যত শিক্ষিত ও সভ্য হইতেছে, তাহার দৈনিক অভাব-অভিযোগও সেই পরিমাণে বাড়িয়া চলিয়াছে। সাধারণের আয়ের পথ এদিকে যত সঙ্কীর্ণ হইয়া আসিতেছে, শিক্ষা ও তথা-কথিত সভ্যতা-বিস্তারের ফলে পোষাক-পরিচ্ছদের ব্যয় ওদিকে ততই বাড়িয়া চলিয়াছে। বেকারসমস্তায় প্রপীড়িত সাধারণ লোকের এই দারুণ দুরবস্থা দর্শনে এক এক বার মনে হয়, দেশ যদি শিক্ষিত ও সভ্য না হইয়াও অল্পবস্ত্রেব অভাব হইতে দূরে থাকিতে পারিত, এ শিক্ষা ও সভ্যতার বালাই না হয় নাই থাকিত । আধুনিক শিক্ষা এখানে যেন দেশবাসী আমাকে ভুল না বুঝেন। শিক্ষা যে খারাপ, একথা বলা আমার মোটেই উদ্বেগু নয়। দেশের জীবৃদ্ধির জন্ত