পাতা:মহর্ষি মনসুর - মোজাম্মেল হক.pdf/৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

প্ৰথম পরিচ্ছেদ অঙ্গ বলিয়া মনে করিতেন । প্ৰতিবাসিগণ তাহাকে সৌভাগ্য বান্‌ পুরুষ জানিয়া চিরদিন তদীয় আনুগত্য স্বীকার করিয়া চলিত । ফলতঃ পরম-কারণিক জগৎপিতা জগদীশ্বর তাহার প্ৰতি প্ৰসন্ন ছিলেন ; দয়াময়ের অনুগ্ৰহে তাহার কিছুরই অপ্ৰতুল ছিল না । সহধৰ্ম্মিণী পূৰ্ণগৰ্ভা । সেই পতিব্ৰতা পুণ্যময়ী মহিলা তদবস্থার পালনীয় নিয়মসকল প্ৰতিপালনপূৰ্ব্বক অতি সন্তোষের সহিত গৰ্ভধারণ করিয়া আসিতেছিলেন । অনন্তর যথাকালে শুভলগ্নে তাহার একটী সৰ্ব্ব-সুলক্ষণাক্ৰান্ত পরম সুন্দর তনয়রত্ন জন্মগ্ৰহণ করিলেন । পুত্রের সুবিমল শশধর সন্নিভ কমনীয় কান্তিচ্ছটায় অন্তঃপুর প্রতিভাসিত—তদৰ্শনে পিতার আর আনন্দের সীমা রহিল না । তিনি তৎক্ষণাৎ সন্তানের শুভ কামনায় একান্তচিত্তে সৰ্ব্ব আনন্দদাতা বিশ্ববিধাতার উদেশে প্ৰাৰ্থনা করিলেন এবং স্বীয় অবস্থানুযায়ী অৰ্থাদি বিতরণে দীন দুঃখীদের মনস্তুষ্টি সম্পাদন করিলেন । তাহারা পরিতুষ্ট হইয়া ১৫

  • ইনি ঠিক কোন সময়ে জন্ম পরিগ্ৰহ করেন, তাহা নিঃসংশয়িত ৰূপে অবধারণ

করা কঠিন । তবে এইরুপ অনুমিত হয়, মহামান্য পুণ্যপ্ৰাণ পয়গম্বর হজরত মোহাম্মদ মোস্তফার ( দ: ) অাবিৰ্ভাবের পর হিজরী তৃতীয় শতাব্দীর মধ্যভাগে তিনি ইহজগতে অবতীৰ্ণ হইয়াছিলেন । তাহার সহাধ্যায়ী ধৰ্ম্মপ্ৰাণ তাপস শেখ আবুবকর শিবলী হিজরী ৩৩৪ সালে মানবলীলা সস্বরণ করেন । আবার গ্ৰন্থান্তরে লিখিত অাছে যে, হজরত ওসমানের পুত্ৰ ওমরের সহিত ভঁাহার অসদ্ভাব ঘটায় তিনি মক্কা ভূমি পরিত্যাগ করিয়া বাগদাদে প্ৰস্থান করেন । এই ওমর কোন সময়ের লোক এবং মহৰ্ষি তাহার সমসাময়িক কি না, বিজ্ঞ পাঠকগণ তাহার মীমাংসা করিয়া লইবেন ।