পাতা:মহর্ষি মনসুর - মোজাম্মেল হক.pdf/৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

চতুৰ্থ পরিচ্ছেদ মন্‌সুরের ‘আনাল হক' উক্তি ধৰ্ম্মভীরু মুসলমান জন-সাধারণের হৃদয়ে যেন সুতীক্ষ্মী শেল বিদ্ধ করিতে লাগিল । তাহারা সাতিশয় উত্ত্যক্ত ও মৰ্ম্মাহত হইয়া তাহার বিরুদ্ধে দণ্ডায়মান হইলেন । অনেকে নিতান্ত নিৰ্দয়ভাবে তাহার প্রাণসংহার করিতেও কৃতসঙ্কল্প হইলেন । অগোঁণে মনসুরের মস্তক অসি প্ৰহারে দেহ হইতে বিচ্ছিন্ন করিয়া ফেলে, ইহাই অনেক অসহিষ্ণু অবিবেচক ব্যক্তির অভিপ্রায় । আলেম-সমাজক মন্‌সুরের অবৈধ আচরণের কথা শ্ৰবণ করিয়া বিষম বিরক্তি সহকারে বদনমণ্ডল বিকৃত পূৰ্ব্বক কৰ্ণে হস্তাৰ্পণ করিলেন । কিন্তু অলৌকিক ক্ষমতাশালী, ধৈৰ্য্যশীল, সিদ্ধপুরুষ মনসুর তাহাতেও বিচলিত হইলেন না । “হায় হায়, মন্‌সুরের কি হইল ! আহা, কেন তাহার এ কুমতি ঘটিল ?” এবংবিধ বাক্যে অগণ্য লোক অনুশোচনা করিতে লাগিলেন । বহু দয়া ব্যক্তি সমবেত হইয়া মনসুরকে সানুনয়ে কহিলেন, “আপনাকে আমাদের একটী অনুরোধ রক্ষা করিতে হইবে । আপনি ‘আনাল হক্‌’ উক্তির পরিবর্তে ‘হু অল হক্‌’ :- বলিতে থাকুন। বোধ হয়, আমাদের এই অনুরোধের কারণ আর আপনাকে বুঝাইয়া দিতে হইবে না। আপনি স্বয়ং শাস্ত্ৰজ্ঞ ও জ্ঞান-গরীয়ান ; অবশ্যই ইহার গৃঢ় মৰ্ম্ম হৃদয়ঙ্গম

  • ধৰ্ম্মশাস্ত্ৰবিদ পণ্ডিতমণ্ডলী ।

+ তিনিই সত্য ( ঈশ্বর ) ।