পাতা:মহর্ষি মনসুর - মোজাম্মেল হক.pdf/৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

মহৰ্ষি মনসুর ৫৬ গণ হস্ত-পদের বন্ধন-বিমুক্ত ও নরক-যন্ত্ৰণার অবসান হইল দেখিয়া সোৎসাহে উঠিয়া মহৰ্ষির সম্মুখে গিয়া দণ্ডায়মান হইল এবং সহৰ্ষে যুক্ত-করে কহিল, “মহাভাগ ! করুণাময় জগৎপাতার ইচ্ছায় এবং আপনার ঐকান্তিক যত্ন ও আশীৰ্ব্বাদে সংপ্ৰতি আমরা বন্ধন-যন্ত্ৰণা হইতে অব্যাহতি লাভ করিলাম বটে, কিন্তু বলুন, কি উপায়ে এই ঘোর তমসাচ্ছন্ন ভীষণ কারাপুরী হইতে প্ৰস্থান করি ? অত্যুচ্চ নগরাজ সদৃশ দুৰ্ভেদ্য উন্নত প্রাচীরে কারা ভবন পরিবেষ্টিত, যমদূতাকৃতি অসংখ্য ভীষণদৰ্শন সশস্ত্ৰ প্রহরী দিবারজনী তাহার চতুৰ্দিকে পরিভ্ৰমণ করিতেছে, লোঁহবিনিৰ্ম্মিত দৃঢ় কবাট কঠিন কুলিশোপম তালাসমূহে আবদ্ধ। এতদ্ব্যতীত অারও বহুবিধ অন্তরায় রহিয়াছে । পিপীলিকা প্ৰবেশ করিতে পারে, এরপ পথও এখানে নাই, তবে বলুন তো, আপনার এমন্দ ভাগ্য ভৃত্যগণের কি এমন দৈবশক্তি আছে যে, তৎপ্ৰভাবে তাহারা নিরাপদে নিদ্ৰান্ত হইয়া যথাস্থানে প্ৰস্থান করিতে পারে ?” এই খেদোক্তি শ্ৰবণে । তাপস প্ৰবর স্বীয় গ্ৰীবাদেশ উন্নত করিয়া এবং তৰ্জ্জনী উৰ্দ্ধে উঠাইয়া তীক্ষ দৃষ্টিতে একবার চতুঃপাশে নেত্ৰপাত করিলেন । তাহাতে মহৰ্ষির দৈবশক্তিবলে কারাবাসের চতুৰ্দ্দিকস্থ বিশাল ভিত্তিতে মানব-দেহ প্ৰবেশোপ যোগী বহু গবাক্ষের সৃষ্টি হইল । * তদৰ্শনে বন্দিগণের হৃদয় বিস্ময়-রসে আপ্লাত, সৰ্ব্বাঙ্গ রোমাঞ্চিত ও ঘৰ্ম্মাক্ত হইল—ভাবিয়া

  • বৰ্ত্তমানের নব্য সমাজ এক্সপ ঘটনা বিশ্বাস করিতে ইতস্ততঃ করিতে পারেন বটে,

কিন্তু অবিশ্বাস করিবার কোন কারণ নাই । মনুষ্য যোগবলে—সাধন-শক্তিতে অলৌকিক