পাতা:মহাত্মা কালীপ্রসন্ন সিংহ.djvu/১১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুর্থ পরিচ্ছেদ। - 3& AMAAMAAASAAAA م.م.م.م.م.سمبر-A.م.م.م-- .-\ আশঙ্কার কারণ ঘটিয়াছিল। তৎকালে স্বদেশপ্রাণ কালীপ্রসঙ্গ র্তাহাকে এই আশ্বাস দেন যে, যদি অর্থের স্বারা উহাকে রক্ষা করা সম্ভব হয়, তাহা হইলে তিনি নিশ্চিন্ত থাকিতে পারেন ; কারণ, কালীপ্রসন্ন সর্বস্ব দিয়াও তাহাকে বিপন্মুক্ত করিতে চেষ্টা পাইবেন । v পণ্ডিত দ্বারকানাথ বিদ্যাভূষণ সম্পাদিত পুরাতন সোমপ্রকাশ পত্র-দৃষ্টে প্রতীত হয় যে, এই সময়ে নীলদর্পণের প্রথম সংস্করণ নিঃশেষিত হওয়ায়, কালীপ্রসন্ন নিজব্যয়ে উহার দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত করিয়া বিনামূল্যে সাধারণ্যে বিতরণ করেন। জাতীয়-গৌরববৃদ্ধি ও জাতীয়-সম্মানরক্ষার জন্য কালীপ্রসন্ন সৰ্ব্বদাই প্রস্তুত ছিলেন । আমরা তাহার আর একটি দৃষ্টান্ত এই স্থলে প্রদান করিতেছি । ‘নীলদর্পণের মোকদ্দমার বিচারক স্তার মর্ডণ্ট ওয়েলস্ প্রায়ই হাইকোর্টের বিচারাসন হইতে বলিতেন, বাঙ্গালী মিথ্যাবাদী। অবশ্ব বিচারকের সম্মুখে যে সকল অপরাধী উপস্থিত করা হয়, তাহাদিগের মধ্যে অধিকাংশই মিথ্যাবাদী হওয়া অসম্ভব নহে, কিন্তু সমগ্ৰ ৰাঙ্গালী জাতিকে মিথ্যাবাদী বলিয়া বিঘোষিত করা হাইকোর্টের এক জন মাননীয় বিচারকের পক্ষে কত দূর অসঙ্গত, তাহা সহজেই অনুমেয় । লঙের দণ্ডাদেশ-প্রদানের পর স্তার মর্ডণ্ট বঙ্গীয় জনসাধারণের আরও বিরাগভাজন হইয়া পড়িলেন। বঙ্গসমাজের তৎকালীন নেতৃবর্গ এই অবিবেচক বিচারককে জাতীয়-সম্মান-রক্ষা । স্তার মর্ডন্ট ওয়েলস্ সভা।